৩০ আশ্বিন  ১৪২৬  শুক্রবার ১৮ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: এখনও অনেক গ্রামীণ মেলায় বিভিন্ন অদ্ভুত জিনিসের প্রদর্শনী হয়। কোথাও একটি বাচ্চার জোড়া মাথা কোথাও বা আবার দেখা যায় বাচ্চা ছাগলের জোড়া মুণ্ডু। একসময়ে বিভিন্ন মেলায় দেখা পাওয়া যেত এস কুমার বলে এক ব্যক্তির। যে কাঁচা সবজি থেকে কাঁচা মাছ, আলপিন থেকে কাচ খেত চোখের নিমেষে। যা দেখতে আট থেকে আশি, সবাই টিকিট কেটে ভিড় জমাত। এই রকমই এক ব্যক্তির খোঁজ পাওয়া গেল এবার মধ্যপ্রদেশে। জানা গেল, ৪০-৪৫ বছর ধরে কাচ চিবিয়ে খাচ্ছেন মধ্যপ্রদেশের এক আইনজীবী। দিনদোরি জেলার বাসিন্দা ওই আইনজীবীর নাম দয়ারাম সাহু। এই অভ্যেস খারাপ বলে মানলেও জানালেন গত চার দশকের বেশি সময় ধরে এটাই একমাত্র নেশা তাঁর।

[আরও পড়ুন: OMG! মাথায় গজিয়েছে আস্ত সিং, কী হল ব্যক্তির?]

শনিবার একটি সংবাদমাধ্যমকে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘৪০ থেকে ৪৫ বছর ধরে এটাই আমার নেশা। কাচ খাওয়ার জন্য আমার দাঁতের খুব ক্ষতি হচ্ছে। কিন্তু, কিছুতেই এটা ছাড়তে পারছি না। তবে আগে অনেক বেশি কাচ খেলেও এখন কমিয়ে দিয়েছি। নেশার জন্য আমি কাচ খেলেও বাকিদের এটা করতে বারণ করব। কারণ, কাচ খাওয়া স্বাস্থ্যের পক্ষে মারাত্মক ক্ষতিকর। এই অভ্যাস শরীরের পক্ষে অত্যন্ত ক্ষতিকারক হতে পারে।’

ওই সাক্ষাৎকারের ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, একটি চেয়ার বসে আছেন ওই আইনজীবী দয়ারাম সাহু। আর কোলে থাকা একটি প্লেটে বোতল ভেঙে রাখা হয়েছে। আর কথা বলতে বলতে সেই বোতলের ভাঙা কাচ কড়মড়িয়ে চিবিয়ে খাচ্ছেন তিনি। কিন্তু, খাওয়া দেখেই বোঝাই যাচ্ছে না যে তিনি কাচ খাচ্ছেন।

[আরও পড়ুন: ১৯ বছর পর গন্তব্যে পৌঁছল স্পিড পোস্টে পাঠানো চিঠি! অবাক কাণ্ড রায়গঞ্জে]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং