BREAKING NEWS

১৪ কার্তিক  ১৪২৭  শনিবার ৩১ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

‌পরীক্ষার মাঝে প্রসব যন্ত্রণা নিয়েই লেখা সম্পূর্ণ আইনের ছাত্রীর, কুর্নিশ জানাল নেটদুনিয়া

Published by: Abhisek Rakshit |    Posted: October 13, 2020 9:31 pm|    Updated: October 13, 2020 10:18 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:‌ কথায় আছে – যে রাঁধে, সে চুলও বাঁধে। সে কথা ফের একবার প্রমাণ করলেন শিকাগোর আইনের ছাত্রী ব্রিয়ানা হিলস। আইনের পরীক্ষা চলাকালীনই জন্ম দিলেন ফুটফুটে এক পুত্রসন্তানের। প্রথম দিনের পরীক্ষার পরই হাসপাতালে গিয়ে সন্তানের জন্ম দেন এবং পরদিন হাসপাতালেরই একটি ঘরে নিজের বাকি পরীক্ষাটুকুও দিলেন। সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে ব্রিয়ানার এই কাহিনি। নেটিজেনরা প্রত্যেকেই তাঁর এই লড়াইকে কুর্নিশ জানিয়েছেন।

জানা গিয়েছে, শিকাগোর (‌Chicago)‌ ল’‌ স্কুল লয়োলা ইউনিভার্সিটির (‌Loyola University)‌ ছাত্রী ব্রিয়ানা। তাঁর এই পরীক্ষাটি চলতি বছরের জুলাইয়ে হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু করোনা সংক্রমণে তা পিছিয়ে যায়। শেষপর্যন্ত গত ৫ অক্টোবর সমস্ত সুরক্ষাবিধি মেনে শুরু হয় পরীক্ষা। এদিকে, জুলাই মাসেই গর্ভবতী ছিলেন ব্রিয়ানা। তিনি জানতেন, এই সময় তাঁর গর্ভাবস্থার শেষ তিনমাস চলবে। তা সত্ত্বেও তিনি পরীক্ষায় বসার সিদ্ধান্ত নেন। কিন্তু পরীক্ষার দিনই প্রসব যন্ত্রণা শুরু হয়। এরপরই বাড়ির লোককে ফোন করেন ব্রিয়ানা। কিন্তু ওই পরিস্থিতিতেও সম্পন্ন করেন নিজের পরীক্ষা। এরপর সন্ধেবেলা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর সেখানে একটি ফুটফুটে সন্তানের জন্ম দেন তিনি। পরেরদিনের পরীক্ষাটিও হাসপাতালের একটি ঘরে বসে দেন।

[আরও পড়ুন:‌ কর্তব্যে অবিচল! সদ্যোজাত সন্তানকে কোলে নিয়েই কাজে যোগ দিলেন উত্তরপ্রদেশের ম্যাজিস্ট্রেট]

তাঁর এই কাহিনি সামনে আসতেই নেটিজেনদের অনেকেই ব্রিয়ানাকে কুর্নিশ জানিয়েছেন। কেউ আবার পুত্রসন্তানের জন্য শুভেচ্ছাও জানিয়েছেন। এক সাক্ষাৎকারে এই প্রসঙ্গে তিনি পাশে থাকার জন্য কলেজ কর্তৃপক্ষ, হাসপাতাল, বাড়ির লোক– প্রত্যেককে ধন্যবাদও জানান। পাশাপাশি এটাও বলেন, যতই প্রসবযন্ত্রণা উঠুক, পরীক্ষাও কিন্তু তিনি ভাল দিয়েছেন।

[আরও পড়ুন:‌ OMG! মাত্র ১৬ বছর বয়সেই প্রধানমন্ত্রীর কুর্সিতে এই কন্যা, জানেন কোথায়?]

এর আগে গত মাসে মার্কিন এক জনপ্রতিনিধি, যিনি সদ্য মা হয়েছিলেন তাঁকে দেখা গিয়েছিল শিশুকে কোলে নিয়ে ক্যালিফোর্নিয়ায় ভোট দিতে গিয়েছিলেন। জানা গিয়েছে, তিনি প্রক্সি ভোটের আবেদন করলেও তাঁর আবেদন গ্রাহ্য হয়নি। তাই শেষপর্যন্ত দুধের শিশুকে নিয়েই ভোট দিতে গিয়েছিলেন তিনি।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement