BREAKING NEWS

২৪  মাঘ  ১৪২৯  বৃহস্পতিবার ৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ 

READ IN APP

Advertisement

ডেট ফান্ডে লগ্নিতে আগ্রহী? জেনে নিন বাজারের হালহকিকত

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: October 19, 2022 7:05 pm|    Updated: October 19, 2022 7:05 pm

This to know before investing in debt fund | Sangbad Pratidin

ভবিষ‌্যতে ডেট ফান্ডে রিটার্ন কম হবে, আগেভাগেই তার আভাস দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। তবুও যদি এই ধরনের ফান্ডে লগ্নিতে ইচ্ছুক হন, তাহলে ইনডেক্সেশন বিধি জেনে নেবেন। জানাল টিম সঞ্চয়

 

রিজার্ভ ব্যাংকের রেপো রেট সংক্রান্ত নীতির পরিবর্তন ইতিমধ্যে হয়েছে, ফিক্সড ইনকাম মার্কেটে তার অভিঘাত এখনই আমরা দেখতে পারছি। ডেট ফান্ডের রিটার্ন কমই হবে আগামিদিনে, এ-ও বলে রাখা যায় জোর গলায়। তবুও, যদি নতুনভাবে কেউ ডেটে বিনিয়োগ করতে চান, তাহলে তাঁকে অবশ‌্যই ‘রিস্ক’ নিয়ে সব কিছু বুঝে নিতে হবে। এরই সঙ্গে জানতে হবে ‘ইনডেক্সেশন’ সংক্রান্ত নিয়মকানুন। আজকের আলোচনা তা নিয়েই।

প্রথমে যে বিষয়গুলি মনে রাখবেন:
(১) ইনফ্লেশন তথা মুদ্রাস্ফীতিকে উড়িয়ে দেবেন না – রিটার্ন কম হওয়ার জন‌্য মুদ্রাস্ফীতির ভূমিকা প্রকাণ্ড।
(২) ডেট মার্কেটের ক্ষেত্রে প্রফিট (ক‌্যাপিটাল গেনস) হলে ট‌্যাক্স দিতেই হবে -ঠিক যেমন ইকুইটির ক্ষেত্রে দিতে হয়।
(৩) ইনফ্লেশনকে চালু ফর্মুলায় ফেলে গেনসের উপর ট‌্যাক্স কম দেওয়াই ইনডেক্সেশনের উদ্দেশ‌্য।
(৪) কস্ট ইনফ্লেশন ইনডেক্স (Cost Inflation Index বা CII). ব‌্যবহার করে এই সুযোগ নিতে পারেন বিনিয়োগকারী। যে বছর অ‌্যাসেট বিক্রি হয়েছে, সেই বছরই হবে পাখির চোখ।
(৫) CII প্রতি বছরে সরকারিভাবে ধার্য করা হয়। যে বছর ডেট ফান্ড কিনেছেন, সেই বছরে পারচেজ কস্ট ইন্ডেক্সের নিরিখে দেখা হয়। প্রতি ফাইন‌্যান্সিয়াল ইয়ারই এখানে বিবেচ‌্য – মানে, যত বছর ধরে থাকবেন সেই অ‌্যাসেটটি।
(৬) ক‌্যাপিটাল গেনসের পরিমান সেল প্রাইসের আঙ্গিকে দেখতে হবে। সেল প্রাইস থেকে ‘Indexed cost of acquisition’ বাদ দিতে হবে।

[আরও পড়ুন: কোন ধরনের অ্যানুইটি আদর্শ? জেনে নিন অবসর জীবনে সুখের ফর্মুলা]

এখনকার নিয়মে ডেট ফান্ড কতদিন বাদে বিক্রি করছেন তা বুঝে নিয়ে ইনডেক্সেশনের ফর্মুলা প্রয়োগ করতে হবে। তিন বছরের বেশি হলে তা লগ্নিকারীর জন‌্য সুবিধাজনক। লংটার্ম ক‌্যাপিটাল গেনস, যদি ইনডেক্সেশনের সুযোগ নিতে পারেন, আপনার জন‌্য আকর্ষণীয় হবে, এমন আশা করা যায়। সেই জন‌্য ফিক্সড ডিপোজিটের রিটার্ন কম না বেশি, এই প্রসঙ্গে আলোচনা এই পরিপ্রেক্ষিতে খুব তাৎপর্যপূর্ণ মনে করা হয়। উল্লেখযোগ‌্য ফিক্সড ডিপোজিটে সাধারণভাবে সুদের হার বেড়েছে। সার্বিক ভাবে ব্যাংক বা কর্পোরেট দুই-ই নিজেদের ডিপোজিটে রেট বাড়িয়েছে। তাই আগামিদিনে বিনিয়োগকারীদের FD না Debt Fund? এমন প্রশ্নের মুখোমুখি আবার পড়তে হবে বলে ‘সঞ্চয়’-এর ধারণা।

(লগ্নির যাবতীয় সিদ্ধান্ত একমাত্র বিনিয়োগকারীর নিজের, দায়িত্বও তাঁর। ‘সংবাদ প্রতিদিন’-এর এতে কোনও ভূমিকা নেই। লগ্নি-জনিত ফলাফল বিনিয়োগকারীর সিদ্ধান্তের উপর সম্পূর্ণভাবে নির্ভরশীল, তাই বাজারের ঝঁুকির ব্যাপারে সব জেনে নিয়েই পদক্ষেপ করবেন।)

[আরও পড়ুন: সঞ্চয় আগে না বিনিয়োগ?]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে