BREAKING NEWS

১৪ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২৮ মে ২০২০ 

Advertisement

এবার পুজোয় ট্রেন্ড রানু্ শাড়ি, আপনি কিনেছেন তো?

Published by: Sayani Sen |    Posted: September 15, 2019 11:43 am|    Updated: September 15, 2019 12:28 pm

An Images

পলাশ পাত্র, তেহট্ট: সারাবছর একঘেয়ে পোশাক পরেই কেটে যায়। তা বলে পুজোর চারদিন সেভাবে কাটবে, তা হতেই পারে না। ওই কটাদিন যেন এক্কেবারে অন্যরকম। আপনিও নিশ্চয়ই এরকম চিন্তাভাবনাতেই বিশ্বাসী? ট্রেন্ড মেনে কেনাকাটিই পছন্দ আপনার। তাহলে এবার কিনে ফেলুন রানু শাড়ি।

[আরও পড়ুন: হ্যান্ডলুমের দাপটে কোণঠাসা বালুচরি, পুজোর আগে মাথায় হাত শিল্পীদের]

রানাঘাট স্টেশনে বসে আপন মনে গান গেয়ে যেতেন রানু মণ্ডল। তাঁর গান নেটদুনিয়ায় ভাইরাল করেন অতীন্দ্র নামে এক যুবক। ভাগ্য বদলে গিয়েছে রানুর। সম্প্রতি মুম্বইতে হিমেশ রেশমিয়ার পরিচালনায় সিনেমায় গানও গেয়েছেন রানাঘাটের রানু মণ্ডল।

Ranu-Mandal

মেকওভারের পর থেকে এক ধরনের সিল্ক শাড়িতে দেখা যাচ্ছে রানু মণ্ডলকে। শাড়ি ব্যবসায়ীদের কথা অনুযায়ী আদতে সেটি তুষার সিল্ক নামে পরিচিত। সেই শাড়িই বর্তমানে পুজোর বাজার কাঁপাচ্ছে। তেহট্ট বাজারের বিভিন্ন দোকানে রানু শাড়ি নামে বিকোচ্ছে ওই সিল্ক।

ranu

শাড়ি ব্যবসায়ীরা বলছেন, “তুষার সিল্ক প্রায় প্রতি বছরই দোকানে রাখি। কিন্তু হ্যান্ডলুমের দাপটে এই সিল্ক বিক্রি প্রায় বন্ধই হয়ে গিয়েছিল। তবে রানু মণ্ডল ওই ধরনের শাড়ি পরার পর থেকে চাহিদা বেড়েছে কয়েকগুণ। এখন প্রায় ৮০ শতাংশ ক্রেতাই রানু শাড়ি কিনছেন।”

[আরও পড়ুন: ডিজাইনার সব্যসাচীর পোশাকে নজর কাড়ছেন ‘প্লাস সাইজ’ মডেল! কে এই বর্ষিতা?]

সিনেমা কিংবা সিরিয়ালের কোন জনপ্রিয় চরিত্রের নামে শাড়ি আগেও বাজার কাঁপিয়েছে। এর আগে জনপ্রিয় ধারাবাহিক ‘ইষ্টিকুটুম’-এর প্রধান চরিত্র ‘বাহা’ পরিহিত শাড়িও একসময় বাজার ছেয়ে গিয়েছিল। বর্তমানে ‘ফাগুন বউ’ শাড়িও বাজারে চলছে ভালই। কালীগঞ্জ, পলাশিপাড়ায় রমরমিয়ে বিক্রি হচ্ছে এই শাড়ি। ‘বকুল কথা’ শাড়ি, ‘কুসুমদোলা’ শাড়ি, ‘কলের বউ’ শাড়ির চাহিদাও কম নয়। ফ্যাশন ট্রেন্ড মেনে শাড়ি কিনতে বেশ ভালই লাগে বলেই জানিয়েছেন এক ক্রেতা। ব্যবসায়ীদের দাবি, পুজোর সময় অতি সাধারণ শাড়িও সিরিয়াল কিংবা সিনেমার দৌলতে হিট হয়ে যায়। তবে ধারাবাহিকের চরিত্রের নাম অনুযায়ী শাড়িগুলির তুলনায় এখন সবচেয়ে বেশি বিক্রি হচ্ছে রানু শাড়ির। ক্রেতাদের পছন্দমতো জোগান দিতে গিয়ে মাঝে মাঝে ক্লান্ত হয়ে যাচ্ছেন বিক্রেতারাও।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement