BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

আখরোট-কাজু দিয়ে গণেশ মূর্তি বানিয়ে তাক লাগালেন চিকিৎসক, থাকবে কোভিড হাসপাতালে

Published by: Abhisek Rakshit |    Posted: August 22, 2020 11:19 am|    Updated: August 22, 2020 1:10 pm

An Images

‌সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:‌ করোনা (Corona) ভাইরাসের থাবা এবার গণেশ পুজোতেও। শনিবার গোটা দেশজুড়ে পালিত হচ্ছে গণেশ চতুর্থী। তবুও উৎসবে যেন অনেকটাই ভাটা পড়েছে। তাই যে যাঁর মতো করেই বিঘ্নহর্তার পুজো করছেন। তবে এর মধ্যেই শুকনো ফল দিয়ে গণেশের মূর্তি তৈরি করে তাক লাগালেন সুরাটের (Surat) চিকিৎসক অদিতি মিত্তাল। ইতিমধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে সেই গণেশ মূর্তির ছবি। নেটিজেনদের প্রশংসাও কুড়িয়েছেন অদিতি।

[আরও পড়ুন: প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে ‘ধর্ষণ’, ১৩৯ জনের বিরুদ্ধে থানায় FIR দলিত তরুণীর]

সংবাদসংস্থা এএনআই কেবলমাত্র শুকনো ফল দিয়ে তৈরি এই গণেশ মূর্তিটির ছবি পোস্ট করেছে। ২০ ইঞ্চির এই গণেশের মূর্তিটি তৈরি হয়েছে আখরোট, কাজু–সহ একাধিক শুকনো ফল দিয়ে। এর মধ্যে শুঁড়টি তৈরি করা হয়েছে আখরোট দিয়ে। চোখ তৈরি কাজুবাদাম ব্যবহার করে। অদিতি মিত্তালের তৈরি এই মূর্তিটি অবশ্য বিসর্জন দেওয়া হবে না। বদলে সেটি একটি কোভিড হাসপাতালে প্রতিষ্ঠা করা হবে। শুধু তাই নয়, ওই শুকনো ফলগুলো পরবর্তীতে হাসপাতালের হাতেই তুলে দেওয়া হবে।

 

এদিকে, করোনা আবহে গণেশ চতুর্থী (Ganesh Chaturthi) নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে রাজ্য সরকার। আদালত এ বিষয় কোনও সিদ্ধান্ত নেবে না। শুক্রবার ইতিমধ্যেই জানিয়ে দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট (Supreme Court)। এদিন জৈন ধর্মালম্বীদের জন্য দু’‌দিন মহারাষ্ট্রের (Maharashtra) তিনটি নির্দিষ্ট মন্দির খোলার নির্দেশ দিয়েছে শীর্ষ আদালত। কিন্তু এই নির্দেশ শুধুমাত্র এই তিন মন্দিরের জন্যই সীমাবদ্ধ তাও একবার মনে করিয়ে দিয়েছেন প্রধান বিচারপতি এস এ বোবদে (S A Bobde)। একইসঙ্গে, হিন্দু মন্দিরও এসওপি মেনে খোলা যেতে পারে বলে মত প্রকাশ করেন দেশের প্রধান বিচারপতি। তবে সেব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে রাজ্যগুলো। মনে করা হচ্ছে, বিখ্যাত হলেও করোনা সংক্রমণের কারণে এবার মুম্বইয়ের গণেশ বিসর্জনেও ভিড় বেশি হবে না। ইতিমধ্যে প্রশাসনের তরফ থেকে সাধারণ মানুষকে যতটা সম্ভব ভিড় এড়িয়ে যাওয়ার এবং বাড়িতে থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

[আরও পড়ুন: দেশে একদিনে করোনার কবলে প্রায় ৭০ হাজার, মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ লক্ষ ছুঁইছুঁই]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement