BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

লকডাউনের জেরে কমেছে দূষণ, জলন্ধর থেকে দৃশ্যমান হিমাচলের তুষারাবৃত পাহাড়

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: April 4, 2020 5:22 pm|    Updated: April 4, 2020 5:22 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে ভারতে ২১ দিনের লকডাউন (Lock down) চলছে। ঘরবন্দি হয়ে পড়েছেন কোটি কোটি মানুষ। বিষয়টি কেন্দ্র করে কারও কারও মনে অসন্তোষ তৈরি হলেও বাড়ি থেকে বাইরে বের হওয়ার কোনও উপায় নেই। অত্যাবশ্যকীয় পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত থাকা মানুষরা বাদে বাইরে ঘোরাফেরায় নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। তাই রাস্তাঘাটে যানবাহন একদমই চোখে পড়ছে না। আর জেরে দেশের বেশিরভাগ এলাকায় কমছে বায়ুদূষণের পরিমাণ। কলকাতা বা দিল্লির মতো শহরগুলিতে যেখানে অতিরিক্ত দূষণ হত। সেখানে আজ বইছে ফুরফুরে টাটকা বাতাস। এই লকডাউনের সৌজন্যেই এক দশক পরে পাঞ্জাবের জলন্ধর থেকে হিমাচলপ্রদেশের পাহাড় পরিষ্কার দেখতে পাচ্ছেন সেখানকার বাসিন্দারা। সম্প্রতি হিমাচল প্রদেশের পর্যটন দপ্তরের পক্ষ থেকে একটি ভিডিও পোস্ট করেই এই ঘটনার কথা জানানো হয়। তারপরই সোশ্যাল মিডিয়াতে ভাইরাল হয়েছে ভিডিওটি।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, পাঞ্জাবের জলন্ধর শহর থেকে প্রায় ২১৩ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত হিমাচলের ধৌলাধর পর্বতমালা। দীর্ঘদিন আগে যখন পরিবেশে দূষণের পরিমাণ খুব কম ছিল তখন ধৌলাধরের কিছু কিছু অংশ জলন্ধর শহর থেকে দেখা যেত। কিন্তু, গত ১০ বছরে দূষণের পরিমাণ এতটাই বেড়েছে যে সেইসব দিন এখন অতীত। কিন্তু, লকডাউনের ফলে পরিবেশ সতেজ হয়ে ওঠার ফলে ফিরে এসেছে পুরনো সেই দিনের স্মৃতি। এখনও বাড়ির ছাদে উঠলে বা ফাঁকা মাঠে দাঁড়ালে সহজেই চোখে পড়ছে ধৌলাধর পর্বতের মনভোলানো প্রাকৃতিক দৃশ্যের ছবি।

[আরও পড়ুন: করোনা আতঙ্কের মধ্যেই আকাশে উঠবে বৃহত্তম গোলাপি চাঁদ, অধীর অপেক্ষায় বিশ্ববাসী ]

হিমাচলপ্রদেশ পর্যটন দপ্তরের তরফে ভিডিও পোস্ট করে উল্লেখ করা হয়েছে, জলন্ধরের বাসিন্দারা তাঁদের বাড়ি থেকেই বরফঢাকা পাহাড়গুলি দেখতে পাচ্ছে। লকডাউনের ফলে বায়ুদূষণ কমেছে তাই শহরে বসে উপভোগ করা যাচ্ছে অপরূপ এই প্রাকৃতিক দৃশ্য। বয়স্ক মানুষরা অনেক আগে এই দৃশ্য দেখতে পেলেন নতুন প্রজন্মের কাছে এটা একটা অভাবনীয় সুযোগ।

[আরও পড়ুন: কানফাটানো আওয়াজ টেনে নেবে দেবদারুর দল, শব্দদূষণ রোধে গাছের ভূমিকা প্রকাশ গবেষণায়]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement