১১ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  শুক্রবার ২৭ নভেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ব্যর্থতা ঝেড়ে ঘুরে দাঁড়াল SpaceX, বেসরকারি উদ্যোগে মহাকাশে পাড়ি ৪ নভোশ্চরের

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: November 16, 2020 2:05 pm|    Updated: November 16, 2020 2:07 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বাধ সেধেছিল আবহাওয়া। হাওয়ার দাপটে শনিবার সন্ধের নির্ধারিত সময়ে নভোশ্চরদের নিয়ে পাড়ি দিতে পারেনি মার্কিন বেসরকারি সংস্থা SpaceX’এর ড্রাগন ক্যাপসুল। তাতে চড়ে আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনে (ISS) যাওয়ার কথা ছিল ৩ মার্কিন ও এক জাপানি নভোশ্চরের। পিছিয়ে দেওয়া হয়েছিল অভিযান। তবে বাধার মুখে পড়েও পিছু হঠেনি SpaceX। প্রায় ২৪ ঘণ্টার মধ্যে সফলভাবে তা উৎক্ষেপণ করা হল ফ্লোরিডার কেনেডি স্পেস সেন্টার থেকে। এতক্ষণে তা পৃথিবীর মাধ্যকর্ষণ কাটিয়ে মহাকাশ স্টেশনের কক্ষপথেও ঢুকে পড়েছে বলে খবর।

আসলে SpaceX’এর এই অভিযান নিছকই মহাকাশে সফলভাবে ঘুরে আসা, তাইই নয়। এর পিছনে মহাকাশ সফরে উন্নতমানের বেসরকারি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সংস্থার উদ্যোগ এবার আরও স্পষ্ট হয়ে গেল। এলন মাস্কের সংস্থা নাসার অনুমতি নিয়েই এই সফরের ব্যবস্থা করেছিল। এর আগে SpaceX শুধুমাত্র পণ্যসামগ্রী নিয়ে রকেট পাঠাত আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনে। এবার একসঙ্গে চারজন নভোশ্চরকে নিয়ে সফলভাবে রকেট উৎক্ষেপণের মাধ্যমে SpaceX যেন বুঝিয়ে দিল, সুযোগ পেলে সব কাজই সাফল্যের সঙ্গে করে ফেলা তার পক্ষে সম্ভব।

[আরও পড়ুন: বিশ্বের সেরা বিজ্ঞানীদের মধ্যে প্রায় দেড় হাজার ভারতীয়! বলছে স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়]

SpaceX-কে নিয়ে তাই আশাবাদী নাসাও। সংস্থার পরিশ্রম ও উদ্যমের প্রশংসা করেছেন নাসার অধিকর্তা জিম ব্রি়ডেনস্টাইন। তিনি বলেছিলেন, এই প্রথম বাণিজ্যিক সংস্থার উপর ভর করে মহাশূন্যে অভিযান হচ্ছে, যা মহাকাশ গবেষণার দুনিয়ায় এক নতুন যুগের সূচনা বলেই মনে করেন তিনি।

SpaceX
পাড়ি দিলেন এই চার নভোশ্চর

এর আগে মে মাসে ২ নভোশ্চরকে SpaceX পাঠিয়েছিল আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনে। অগাস্টে তাদের ফিরিয়েও আনে। গোটা প্রক্রিয়াটি বাধাহীনভাবে সুসম্পন্ন হয়েছিল। তারপরই আরও দায়িত্ব নিয়ে কাজ শুরু করে এলন মাস্কের সংস্থা। ৫ মাসের মধ্যেই ফের মহাকাশ অভিযানের জন্য প্রস্তুতি নেওয়া হয়। তৈরি করা হয় ড্রাগন-ক্যাপসুলকে।

[আরও পড়ুন: জ্ঞানের জগৎ এবার আরও প্রসারিত, সৌরজগতের বাইরে কী আছে? শুরু জানার তোড়জোড়]

রবিবার সন্ধেবেলা তাতে চড়েই পাড়ি দিলেন মার্কিন নভোশ্চর মাইকেল হপকিন্স, ভিক্টর গ্লোভার, শ্যানন ওয়াকার। আর তাঁদের সঙ্গী অভিযানে অত্যন্ত অভিজ্ঞ জাপানি নভোশ্চর সোইচি নোগুচি। তিনি এমন একজন ব্যক্তি, যিনি তিন ধরনের মহাকাশে চড়ে অভিযানের সুযোগ পেলেন। সব ঠিক থাকলে মঙ্গলবার ভারতীয় সময়ে সকাল সাড়ে ৯টা নাগাদ তা পৌঁছে যাবে ISS-এ। SpaceX’এর উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে এবং অভিযানের সাফল্যে কামনায় টুইট করেছেন আমেরিকার সদ্য নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বিডেন।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement