৫ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  শুক্রবার ২২ নভেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: জাতীয় ক্রিকেট দল বিদেশে পা রেখেছিল। অথচ গোটা দলের জন‌্য কোনও দৈনিক ভাতার ব‌্যবস্থা ছিল না। হ্যাঁ এটাই সত্যি। ওয়েস্ট ইন্ডিজে গিয়ে তাই রীতিমতো ফেঁসে গিয়েছিলেন ভারতের মহিলা ক্রিকেট দলের সদস‌্যরা। শেষমেশ বোর্ড কর্তাদের হস্তক্ষেপে সমস‌্যার সমাধান হয়।

ক‌্যারিবিয়ান মাটিতে তিনটি ওয়ান ডে ও পাঁচটি টি-২০ ম‌্যাচ খেলেছে ভারতের মেয়েরা। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডে মেয়েদের দিকটি দেখেন সাবা করিম। বলা হচ্ছে, তাঁর জন‌্যই না কি দৈনিক ভাতা নিয়ে বিদেশে সমস‌্যায় পড়েছিল মেয়েরা। বোর্ডের অনেক কর্তা ভারতের প্রাক্তন ক্রিকেটারের খামখেয়ালি মনোভাবকেই এজন‌্য দায়ী করছেন। তাদের তরফ থেকে বলা হয়েছে, ব‌্যাপারটা নজরে আসতেই বিসিসিআই উদ্যোগ নেয়। এবং ৩০ অক্টোবর জাতীয় দলের মেয়েদের অ‌্যাকাউন্টে প্রয়োজনীয় টাকা পাঠিয়ে দেওয়া হয়।

[আরও পড়ুন: অনুষ্কা শর্মাকে নিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্য, ক্ষমা চাইলেন ফারুখ ইঞ্জিনিয়ার]

এক এজেন্সিকে বোর্ডের এক কর্তা জানিয়েছেন, আর্থিক ব‌্যাপারটা সিওএর (কমিটি অফ অ‌্যাডমিনিস্ট্রেটর্স) তরফ থেকে দেখা হচ্ছিল। এবং সাবা করিমকে  ১৮ সেপ্টেম্বর একটি মেলও করা হয়েছিল। তারপর ২৩ তারিখ ফের মেল পাঠিয়ে মনে করিয়ে দেওয়া হয় তাঁকে। তারপর থেকে পরিস্থিতির আর উন্নতি হয়নি। পুরো ব‌্যাপার নিয়ে বোর্ড এরপর নড়েচড়ে বসে ২৪ অক্টোবর।
বোর্ডের ওই কর্তা বলছিলেন, ‘‘সিওএর অধীনে ভারতীয় ক্রিকেট নাকি দারুণভাবে চলেছে। সেখানে না কি মেয়েরা দৈনিক ভাতা ছাড়াই ওয়েস্ট ইন্ডিজে চলে গেল। পকেটে অর্থ ছাড়াই বিদেশের মাটিতে পা। এর জন‌্য দায়ী কে?’’ শেষ নয়। ওই কর্তা এরপর যোগ করেছেন, ‘‘যদি পুরো আর্থিক ব‌্যাপারটা ১৮ অক্টোবর থেকে শুরু হয়ে থাকে তাহলে কী এমন হল যে  পরিস্থিতির উন্নতি করতে ২৪ অক্টোবর পর্যন্ত সময় লেগে গেল? বুঝতে পারছেন বোর্ডের কর্তারা ওই পরিস্থিতি সামলাতে ঝাঁপিয়ে না পড়লে বিদেশের মাটিতে আমাদের মেয়েরা কী দারুণ সমস‌্যায় পড়ত?’’

[আরও পড়ুন: বিশ্বকাপে অনুষ্কার চায়ের কাপ বয়েছেন নির্বাচকরা! বিতর্কের মোক্ষম জবাব অভিনেত্রীর]

এক বোর্ড কর্তা জানিয়েছেন, সাবা করিমকে  মেল করার পর পরিস্থিতির উন্নতি হয়নি কেন? তিনি বলছিলেন, ‘‘আমার অঙ্ক যদি ঠিক হয় তাহলে দৈনিক ভাতার ব‌্যাপারে সবুজ সংকেত দিতে সাবা করিমকে  মেল করা হয়েছিল ২৩ সেপ্টেম্বর। ২৫ সেপ্টেম্বর ফের তাঁকে মনে করিয়ে দেয়। তারপর ২৪ অক্টোবর আবার মেল করা হয়। এরপরই ও সিএফওতে  দৈনিক ভাতার ব‌্যাপারে সবুজ সংকেত দেয়। সিওএর কৃতিত্ব নিয়ে এত কথা বলা হয়েছে। এটাই   নমুনা? এমন পেশাদার মানসিকতা তৈরি হয়েছে তাহলে?  দৈনিক ভাতা ছাড়া বিদেশের মাটিতে জাতীয় ক্রিকেট দল? হোক না  মেয়েদের। মেনে নেওয়া কিন্তু কঠিন।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং