BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ধোনির জন্য আয়োজিত হোক ‘ফেয়ারওয়েল ম্যাচ’, বোর্ডকে অনুরোধ ঝাড়খণ্ডের মুখ্যমন্ত্রীর

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: August 16, 2020 8:48 am|    Updated: August 16, 2020 8:48 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: স্বাধীনতা দিবসেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানিয়েছেন মহেন্দ্র সিং ধোনি (MS Dhoni)। নীল রংয়ের জার্সি গায়ে আর দেখা যাবে না ক্যাপ্টেন কুলকে। সেটা অবশ্য গত প্রায় বছর দেড়েকই দেখা যায়নি। আসলে ২০১৯ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালের পর আর দেশের জার্সি গায়ে খেলতে দেখা যায়নি মাহিকে। তাই তাঁর অগণিত ভক্ত, তথা বিশ্বের কোটি কোটি ক্রিকেটপ্রেমীর মধ্যে শেষ হয়েও শেষ না হওয়ার একটা আক্ষেপ থেকে গিয়েছে। তাঁকে শেষবারের মতো মেন ইন ব্লুর জার্সি গায়ে দেখার ইচ্ছে এখনও প্রবল। সাধারণ ক্রিকেটপ্রেমীদের পাশাপাশি ধোনিকে আর অন্তত একটিবার জাতীয় দলের জার্সিতে দেখার ইচ্ছেটা রয়ে গিয়েছে ঝাড়খণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সোরেনের (Hemant Soren) মনেও। তিনিও চাইছেন ‘ঝাড়খণ্ডের লাল’ আরও একবার নীল জার্সিতে খেলুন। আর তাঁর খেলা দেখুক গোটা বিশ্ব।

ধোনির অবসর সংবাদের কিছুক্ষণ পরেই হেমন্ত সোরেন টুইট করে বিসিসিআইকে (BCCI) অনুরোধ করেন ধোনির জন্য একটা ফেয়ারওয়েল ম্যাচের আয়োজন করতে। তিনি বলেন, “ঝাড়খণ্ডের লাল মাহিকে আমরা আর নীল জার্সিতে দেখতে পাব না। কিন্তু দেশবাসীর মন তো এখনও ভরেনি। আমার মনে হয়, আমাদের মাহির জন্য একটা ফেয়ারওয়েল ম্যাচ আয়োজন করা উচিত। বিসিসিআইকে অনুরোধ আমাদের মাহির জন্য একটা বিদায়ী ম্যাচের ব্যবস্থা করুন। যে ম্যাচ আমরা রাঁচিতে আয়োজন করব।আর গোটা বিশ্ব সেই ম্যাচের সাক্ষী থাকবে।”

[আরও পড়ুন: অ্যাঙরি ইয়াং ম্যানের সংলাপ দিয়ে নিজস্ব স্টাইলেই কেরিয়ারে ইতি টানলেন ক্যাপ্টেন কুল]

আসলে অনেকেই মনে করছেন, ভারতীয় ক্রিকেটে তাঁর যা অবদান, সে তুলনায় ক্রিকেট জীবনের সায়াহ্নে এসে সম্মান পাননি মাহি। গত বছর বিশ্বকাপে সেমিফাইনালে শেষবার নীল জার্সি গায়ে নেমেছিলেন। তারপর থেকে একপ্রকার স্বেচ্ছাবসরেই রয়েছেন। কখনও সীমান্তে সেনা প্রশিক্ষণে ব্যস্ত থেকেছেন তো কখনও তাঁকে শুধুই বাবার ভূমিকায় দেখা গিয়েছে। কিন্তু ক্রিকেট মাঠে আর দেখা যায়নি। তাই অনেক সমর্থকই চাইছেন আর একবার অন্তত নীল জার্সি গায়ে মাঠে নামুন ধোনি। অবসরের আগে টিম ইন্ডিয়ার স্বপ্নপূরণের কাণ্ডারিকে যদি আর একবারও খেলতে দেখা যায়, সেটাই বা মন্দ কী!

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement