২২ চৈত্র  ১৪২৬  রবিবার ৫ এপ্রিল ২০২০ 

Advertisement

পায়ে চোটের জন্য দ্বিতীয় টেস্টে অনিশ্চিত পৃথ্বী, লজ্জার রেকর্ড রুখতে মরিয়া কোহলি

Published by: Sulaya Singha |    Posted: February 27, 2020 2:06 pm|    Updated: February 27, 2020 2:06 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রথম টেস্টে কিউয়িবাহিনীর কাছে লজ্জার হারের পর ঘুরে দাঁড়াতে মরিয়া টিম ইন্ডিয়া। যে কারণে দলে একাধিক পরিবর্তনের কথা ভাবা হচ্ছে। আর অশ্বিনের বদলে দলে নেওয়া হতে পারে রবীন্দ্র জাদেজাকে। তেমনই প্রথম একাদশে শুভমন গিলের সুযোগ পাওয়ার সম্ভাবনাও উজ্জ্বল হয়েছিল। তবে এবার তাঁর খেলা একপ্রকার নিশ্চিতই হয়ে গেল। কারণ দ্বিতীয় টেস্টের আগে চোটের জন্য অনিশ্চিত হয়ে পড়লেন পৃথ্বী শ।

[আরও পড়ুন: ফের ঝলসে উঠল শেফালির ব্যাট, নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে বিশ্বকাপের সেমিতে ভারত]

বাঁ-পায়ের পাতা ফুলে গিয়েছে। যে কারণে বৃহস্পতিবার অনুশীলনে আসেননি ভারতীয় তরুণ ওপেনার পৃথ্বী। এমনকী ওয়ার্ম-আপ সেশনেও যোগ দেননি তিনি। শোনা যাচ্ছে, পায়ে ঠিক কী হয়েছে, তা বুঝতে এদিনই তাঁর রক্তপরীক্ষা হবে। মেডিক্যাল রিপোর্ট দেখার পর বোঝা যাবে শুক্রবার তিনি অনুশীলন করতে পারবেন কি না। তখনই দ্বিতীয় টেস্টে পৃথ্বীর খেলা নিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। আগামিকাল নেটে স্বাভাবিক ছন্দে তিনি ব্যাট করতে না পারলে তাঁকে বিশ্রাম দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিতে পারে টিম ম্যানেজমেন্ট।

ওয়েলিংটন টেস্টে কোনও ইনিংসেই রান পাননি পৃথ্বী। যথাক্রমে ১৬ আর ১৪ রানে আউট হন। তা সত্ত্বেও পৃথ্বীর পাশে দাঁড়িয়েছিলেন অধিনায়ক বিরাট কোহলি। তাঁকে আরও সময় দিতে হবে বলে মনে করেন কোহলি। তবে দ্বিতীয় টেস্টেই অনিশ্চিত হয়ে পড়লেন পৃথ্বী। তাঁর অনুপস্থিতিতে এদিন নেটে ভাল ব্যাট করেন শুভমন। কোচ রবি শাস্ত্রীকেও দেখা গেল, গিলের দিকে বিশেষ নজর রাখছেন। ফুটওয়ার্ক নিয়ে তরুণ তারকাকে পরামর্শও দেন কোচ। তাই মনে করা হচ্ছে, শেষ মুহূর্তে পৃথ্বী বাদ পড়লে মায়াঙ্ক আগরওয়ালের সঙ্গে ওপেনার হিসেবে জুটি বেঁধে টেস্টে অভিষেক ঘটাতে পারেন শুভমনই। এবার দেখার, সুযোগ পেলে তিনি তাঁর সদ্ব্যবহার করতে পারেন কি না।

[আরও পড়ুন: ভারতীয় বংশোদ্ভূত যুবতীর সঙ্গে বাগদান, নেটদুনিয়ায় ছবি পোস্ট অজি তারকা ম্যাক্সওয়েলের]

এদিকে খারাপ পারফরম্যান্সের জেরে ইতিমধ্যেই আইসিসি টেস্ট ব়্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষস্থান খুইয়েছেন কোহলি (Virat Kohli)। আপাতত তাঁর স্থান ২ নম্বরে। গত ২০ ইনিংসে একটিও সেঞ্চুরি নেই। তাই রানে ফিরতে মরিয়া ক্যাপ্টেন। শুধু তাই নয়, অধিনায়ক হিসেবে লজ্জাজনক রেকর্ড রুখতেও বদ্ধপরিকর তিনি। বিদেশের মাটিতে সর্বোচ্চ ১৫টি টেস্ট হারের রেকর্ড রয়েছে প্রাক্তন অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির। ১০টি টেস্ট হেরে এই তালিকায় সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের সঙ্গে দ্বিতীয় স্থানে কোহলি। ক্রাইস্টচার্চে ভারত মুখ থুবড়ে পড়লে ধোনির পর দ্বিতীয় ক্যাপ্টেন হিসেবে বিদেশে সবচেয়ে বেশি হারের লজ্জা বহন করতে হবে কোহলিকে। 

Advertisement

Advertisement

Advertisement