BREAKING NEWS

১২ মাঘ  ১৪২৮  বুধবার ২৬ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

‘তিন তালাক’ মন্তব্যের জের, সোশ্যাল মিডিয়ায় হেনস্তার শিকার কাইফ

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: August 23, 2017 3:26 am|    Updated: October 4, 2019 2:10 pm

Mohammad Kaif supports SC verdict on triple talaq, gets trolled

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দেশ থেকে কার্যত উঠে গেল তিন তালাক। মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্টের ঐতিহাসিক রায় সাড়া ফেলেছে গোটা দেশে। এই রায়কেই স্বাগত জানিয়েছিলেন তিনি। আর এতেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ফের হেনস্তার শিকার হতে হল প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটার মহম্মদ কাইফকে।

[ফের ট্রেন দুর্ঘটনা উত্তরপ্রদেশে, লাইনচ্যুত কৈফিয়ত এক্সপ্রেসের ৯টি কামরা]

মঙ্গলবার শীর্ষ আদালতের পাঁচ বিচারপতির সাংবিধানিক বেঞ্চ জানিয়ে দেয়, আগামী ৬ মাস তিন তালাক দেওয়া যাবে না। তবে তালাক প্রথা পুরোপুরি নিষিদ্ধ করার দায় এখন সরকারের কোর্টে। এই ৬ মাসের মধ্যে সরকারকে মুসলিমদের ডিভোর্স সংক্রান্ত আইন আনতে হবে। এই সময়ের মধ্যে কোনও মুসলিম স্বামী তাঁর স্ত্রীকে তালাক দিতে পারবেন না বলেই জানিয়ে দেয় সর্বোচ্চ আদালত। টুইটারে এই রায়কেই স্বাগত জানান কাইফ। তিন তালাককে অসাংবিধানিক বলে তিনি মন্তব্য করেন, এই রায়ের মাধ্যমে মুসলিম নারীদের নিরাপত্তা সংরক্ষিত হবে। লিঙ্গবৈষম্য দূর করা খুবই প্রয়োজন।

কাইফের এই টুইট প্রশংসা পেয়েছে অনেকের। তবে কিছু নেটিজেন আবার এর বিরুদ্ধে ক্ষোভও জাহির করেছেন। যা জানেন না সে সম্পর্কে মন্তব্য না করার পরামর্শ প্রাক্তন ক্রিকেটারকে দিয়েছেন কেউ, কেউ আবার প্রশ্ন করেছেন কাইফ কাউকে খুশি করার জন্য এই এমন টুইট করছেন কিনা। এক নেটিজেনের আবার দাবি, মুসলিম ধর্মে নারীরা সবচেয়ে বেশি নিরাপদ। একজন মুসলিম হিসেবে তা কাইফের জানা উচিত।

সোশ্যাল মিডিয়ায় এর আগেও হেনস্তার শিকার হয়েছেন প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটার। কখনও ছেলের সূর্য নমস্কারের ছবি পোস্ট করে ইসলামিক মৌলবাদীদের রোষের মুখে পড়েন ন্যাটওয়েস্ট ট্রফি জয়ের নায়ক। কখনও আবার ছেলের সঙ্গে দাবা খেলার ছবি দিয়ে সমালোচনার শিকার হয়েছেন তিনি। তবে যতবারই নেটদুনিয়ায় সমালোচনার শিকার হয়েছেন, পালটা জবাব হামেশাই দিয়েছেন কাইফ। এবারেও তেমনটাই প্রত্যাশা করছেন তাঁর অনুরাগীরা।

[‘এবার আত্মসম্মান ও সমান অধিকার নিয়ে বাঁচতে পারবেন মহিলারা’]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে