২৩  শ্রাবণ  ১৪২৯  বুধবার ১০ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

ভূ-স্বর্গে দাঁড়িয়েই ভারত-পাক সিরিজ নিয়ে মুখ খুললেন ধোনি

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: November 26, 2017 12:31 pm|    Updated: September 22, 2019 2:57 pm

MS Dhoni speaks on India vs Pakistan series future

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সীমান্তে সন্ত্রাস বন্ধ না হলে ভারত-পাক দ্বিপাক্ষিক সিরিজ আয়োজনের কোনও প্রশ্নই উঠছে না। বিসিসিআইকে সাফ জানিয়ে দিয়েছিল কেন্দ্র। ফলে বাইশ গজে ভারত-পাক লড়াইয়ের যেটুকু সম্ভাবনা ছিল, তাও শেষ হয়ে যায়। কেন্দ্রের সেই সুর এবার শোনা গেল ক্যাপ্টেন কুলের গলাতেও। পরোক্ষভাবে সরকারের সিদ্ধান্তকেই সমর্থন জানালেন মহেন্দ্র সিং ধোনি।

[বিরাট-রোহিতের দাপুটে ব্যাটিংয়ে জয়ের দোরগোড়ায় টিম ইন্ডিয়া]

ক্রিকেটের বিরতিতে ভারতীয় সেনার লেফটেন্যান্ট কর্নেল ধোনি আপাতত কাশ্মীরে। স্থানীয় যুবকদের ক্রিকেটে উৎসাহ দিতে এবং সেনা জওয়ানদের সঙ্গে সময় কাটাতে ভূ-স্বর্গে পৌঁছে গিয়েছেন। বারামুলার কুনজারে চিনার ক্রিকেট প্রিমিয়াম লিগের আয়োজন করেছিল ভারতীয় সেনা। যার ফাইনাল ছিল রবিবার। প্রধান অতিথি হিসেবে হাজির হয়ে এদিন ক্রিকেটারদের সঙ্গে গল্প করা থেকে ম্যাচে তাঁদের উৎসাহ দেওয়া, সবই করলেন প্রাক্তন ভারত নেতা। আর সেখানেই ভারত-পাক দ্বিপাক্ষিক সিরিজের ভবিষ্যৎ নিয়ে মুখ খুললেন তিনি। লাগাতার জঙ্গিহানার জেরে বর্তমানে ভারত-পাক সম্পর্ক তলানিতে গিয়ে ঠেকেছে। এমন অবস্থায় কি সত্যিই দুই দেশের মধ্যে সিরিজ সম্ভব? ধোনি বলছেন, “ভারত-পাকিস্তান সিরিজ মানে তা কিন্তু শুধুই আর পাঁচটা ম্যাচের মতো মাঠের খেলা নয়। তার চেয়েও অনেক বেশি কিছু। আর সেই জন্য কেন্দ্রই এ বিষয়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারবে। তারাই বলে দেবে প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে আমাদের খেলা উচিত কি না।”

উল্লেখ্য, ২০১৪ সালে দুই দেশের বোর্ড কর্তাদের মধ্যে একটি মউ সাক্ষরিত হয়। যাতে উল্লেখ ছিল, ২০১৫ থেকে ২০২২ পর্যন্ত মোট ছ’টি দ্বিপাক্ষিক সিরিজে মুখোমুখি হবে দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী। কিন্তু দুই দেশের মধ্যে তিক্ত সম্পর্ক এবং সীমান্তে লাগাতার অশান্তির কারণে সেই সিরিজ বাস্তবায়িত হয়নি। বোর্ড চেয়ারম্যান শাহরিয়ান খান ভারতে এসে তা নিয়ে একাধিকবার আলোচনাও করেছেন। কিন্তু নিট ফল সেই শূন্য। এমনকী বলা হয়েছিল, পাকিস্তানে সিরিজ আয়োজন না করে নিরপেক্ষ কোনও ভেন্যুতে খেলতেও রাজি পাক দল। যার জন্য প্রথমে গররাজি হলেও পরে কেন্দ্রের কাছে আবেদন জানিয়েছিল বোর্ড। কিন্তু কেন্দ্রের সম্মতি না মেলায় কোনও উদ্যোগ নিতে পারেনি বিসিসিআই। যার ফলে বোর্ডের কাছে ক্ষতিপূরণ দাবি করে পাকিস্তান বোর্ড। আর এদিন ধোনিও যেন বুঝিয়ে দিলেন, সন্ত্রাস ও ক্রিকেট একসঙ্গে চলা সম্ভব নয়।

[হঠাৎ হাজির মাহি, খুশিতে ডগমগ উপত্যকার স্কুলপড়ুয়ারা]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে