BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

আইপিএলে সুযোগ পাননি, অবসাদে আত্মঘাতী মুম্বই ক্রিকেটের ‘জুনিয়র স্টেইন’

Published by: Abhisek Rakshit |    Posted: August 12, 2020 9:40 pm|    Updated: August 12, 2020 9:57 pm

An Images

ছবি: প্রতীকী

‌সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:‌ করোনার কারণে বারংবার পিছিয়ে যাওয়ার পর অবশেষে আগামী ১৯ সেপ্টেম্বর থেকে দুবাইয়ে শুরু হতে চলেছে আইপিএল। কিন্তু তার আগেই ভারতীয় ক্রিকেটের জন্য এল দুঃসংবাদ। পারফর্ম করে দেখানোর মতো কোনও ভাল মঞ্চ বা IPL–এর মতো টুর্নামেন্টে কোনও দল না পাওয়ায়, অবসাদে আত্মঘাতী হলেন মুম্বই (Mumbai) ক্রিকেটে ‘‌জুনিয়র স্টেইন’ নামে পরিচিত‌ বছর সাতাশের করণ তিওয়ারি। সোমবার রাতে মালাডে (Malad) নিজের বাড়ি থেকেই উদ্ধার হয় করণের মৃতদেহ।

[আরও পড়ুন: বিপক্ষ দলের ক্রিকেটারকে কটূক্তি, ম্যাচ রেফারি ক্রিস ব্রড জরিমানা করলেন ছেলে স্টুয়ার্টকে]

দীর্ঘদিন ধরেই মুম্বইয়ের ক্লাব ক্রিকেটের সঙ্গে যুক্ত ছিল করণ। রঞ্জি দলে সুযোগ না পেলেও নেটে সিনিয়র ব্যাটসম্যানদের অনুশীলনের জন্য সবসময় ডাক পড়ত এই পেসারের। নিজের অ্যাকশনের জন্য সতীর্থদের মধ্যে জুনিয়র স্টেইন নামেও পরিচিত ছিলেন করণ। কিন্তু সম্প্রতি বড় জায়গায় সুযোগ না পাওয়া এবং আইপিএলে কোনও দল তাঁকে না নেওয়ায় কার্যত হতাশ হয়ে পড়েছিলেন তিনি। ধীরে ধীরে মানসিক অবসাদেও ভুগতে শুরু করেন।

এদিকে, ঘটনার দিন রাজস্থানে (Rajasthan) নিজের এক বন্ধুর সঙ্গে পেশাদার জীবন নিয়েই ফোনে কথা বলছিলেন করণ। কীভাবে সুযোগ না পেয়ে তাঁর কেরিয়ার নষ্ট হচ্ছে, সেই নিয়েই আলোচনা করছিলেন। তখনই সন্দেহ হয় করণের বন্ধুর। তিনি ফোন করে এব্যাপারে রাজস্থানে থাকা করণের বোনকে সতর্ক করেন। আর করণের বোনও সময় নষ্ট না করে মালাডে করণের মা’‌কে ফোন করেন। কিন্তু ততক্ষণে অনেকটাই দেরি হয়ে গিয়েছিল।রাতের খাওয়ার পর অনেক আগেই করণ ঘরের দরজা বন্ধ করে দিয়েছিলেন।

[আরও পড়ুন: ঝগড়া হলে কে আগে ক্ষমা চান? দাম্পত্য জীবনের নানা গোপন কথা ভিডিওতে জানালেন বিরুষ্কা]

শেষপর্যন্ত আশঙ্কাই সত্যি হয়। ঘরের দরজা ভেঙে উদ্ধার হয় প্রতিশ্রুতিমান এই ক্রিকেটারের মৃতদেহ। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে পুলিশ। দায়ের করা হয় মামলা। প্রাথমিক সন্দেহে পুলিশের অনুমান, মানসিক অবসাদের কারণেই এই পথ বেছে নিয়েছেন করণ। এছাড়া ঘটনাস্থলে কোনও সুইসাইড নোটও মেলেনি। ফলে আত্মহত্যাই মনে করছেন পুলিশ আধিকারিকরা।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement