BREAKING NEWS

২৬ শ্রাবণ  ১৪২৭  মঙ্গলবার ১১ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

অবশেষে গৃহীত হল ইস্তফা, বিসিসিআই থেকে বিদায় সিইও রাহুল জোহরির

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: July 10, 2020 2:09 pm|    Updated: July 10, 2020 2:09 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের মসনদে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় বসতেই সিইও পদে থেকে ইস্তফা দিয়েছিলেন #MeToo অভিযোগে বিদ্ধ রাহুল জোহরি। এতদিন পর অবশেষে বৃহস্পতিবার পদত্যাগপত্র গ্রহণ করল বিসিসিআই (BCCI)। গত বছর #MeToo অভিযোগে বিদ্ধ হওয়ার পর থেকে বোর্ড প্রশাসনে টালমাটাল অবস্থা হয়ে গিয়েছিল জোহরির। এটা মোটামুটি ধরেই নেওয়া হয়েছিল যে বোর্ড প্রশাসনে জোহরি জমানা শেষ হতে চলেছে। তার উপর ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডে পালাবদলের পর তাঁর প্রশাসনে টিকে থাকা মুশকিল, এমনটাই ধরে নিয়েছিলেন সবাই। সেই জল্পনাকে সত্যি করে গত ডিসেম্বরে পদত্যাগপত্র পাঠিয়ে দেন জোহরি। এতদিন পর তা গ্রহণ হল।

বিসিসিআইয়ের (BCCI) টালমাটাল পরিস্থিতির সময় প্রথমবারের জন্য চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসার বা সিইও পদটি তৈরি হয়। বোর্ডের প্রথম সিইও হিসেবে বেছে নেওয়া হয় সেসময় ডিসকভারি নেটওয়ার্কের শীর্ষকর্তা রাহুল জোহরিকে। ২০১৬ সালে রাহুল যখন প্রথমবার সিইও পদে আসীন হন, তখন বোর্ডের সভাপতি ছিলেন শশাঙ্ক মনোহর। সচিব ছিলেন বর্তমান কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুর। শশাঙ্ক-অনুরাগের অধীনে কাজ করার পর সুপ্রিম কোর্ট নির্দেশিত প্রশাসক প্যানেলের অধীনেও কাজ করেছেন রাহুল জোহরি।

[আরও পড়ুন: জল্পনার অবসান করে এ বছর বাতিলই হয়ে গেল এশিয়া কাপ]

আসলে সিইও পদটি তৈরিই করা হয়েছিল লোধা কমিটির সুপারিশের ভিত্তিতে। সুপ্রিম কোর্ট নির্দেশিত প্রশাসক প্যানেল দায়িত্ব নেওয়ার পর সেই পদটির গুরুত্ব আরও বেড়ে যায়। কারণ, সেসময় বোর্ডের সভাপতি বা সচিব পদে কেউ ছিলেন না। রাহুল জোহরির হাত ধরে আর্থিকভাবে বড়সড় লাভেরও মুখ দেখে বোর্ড। তিনিই আইপিএলের সম্প্রচার স্বত্ত্ব মোটা টাকায় বিক্রি করেন স্টার ইন্ডিয়ার কাছে। এই চুক্তিতে বোর্ডের কোষাগারে ঢোকে ১৬ হাজার ৩৪৮ কোটি টাকা। সিইও হিসেবে বেশ দাপটের সঙ্গেই কাজ করেছিলেন এতদিন।

[আরও পড়ুন: নিউজিল্যান্ডে হচ্ছে এবছরের আইপিএল? কী বলছে কিউয়ি বোর্ড?]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement