BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ধারাভাষ্যকারের তালিকা থেকে বাদ পড়া নিয়ে মুখ খুললেন মঞ্জরেকর, প্রতিক্রিয়া সৌরভেরও

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: March 15, 2020 9:01 pm|    Updated: March 15, 2020 9:14 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিসিসিআইয়ের ধারাভাষ্যকরের তালিকা থেকে বাদ পড়া নিয়ে অবশেষে মুখ খুললেন সঞ্জয় মঞ্জরেকর(Sanjay Manjrekar)। খানিকটা অভিমানের সুরে টিম ইন্ডিয়ার প্রাক্তন তারকা বললেন, হয়তো আমার পারফরম্যান্স ওদের ভাল লাগেনি। তাই বাদ দিয়েছে। এটা পেশাদার হিসেবে মেনে নিতে হবে। এদিকে বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় বলছেন, “এতে বিতর্কের কিছু নেই। কোনও ধারাভাষ্যকর কোনও একটি সিরিজ থেকে বাদ যেতেই পারেন। তার মানে এই নয় যে আর কোনওদিন তিনি সুযোগ পাবেন না। এটা খুব স্বাভাবিক বিষয়।”

Manjrekor
উল্লেখ্য, শনিবারই বিবিসিআইয়ের ধারাভাষ্যকরের প্যানেল থেকে বাদ বিসিসিআইয়ের দেওয়া হয়েছে মঞ্জরেকরকে। আগামী আইপিএলেও হয়তো শোনা যাবে না তাঁর কণ্ঠস্বর। যা নিয়ে নেটদুনিয়ায় জোর সোরগোল। অনেকেরই ধারণা, বিশ্বকাপের সময় জাদেজাকে নিয়ে কূকথা বলাই শাস্তি পেয়েছেন সঞ্জয়। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “আমি সবসময় ধারাভাষ্যকে আলাদা সম্মান হিসেবে বিবেচনা করি। আমাকে বাছা হবে কিনা, সেটা আয়োজকদের ব্যপার। আর ওদের সিদ্ধান্ত আমি সবসময় মেনে চলব। হয়তো বিসিসিআই আমরা পারফরম্যান্সে খুশি নয়। আর সেটা পেশাদার হিসেবে মেনে নেওয়ায় আমার কাজ।” সৌরভ অবশ্য এই সিদ্ধান্তের পিছনে যাবতীয় বিতর্কের তত্ত্ব খারিজ করেছেন। বোর্ড প্রেসিডেন্ট যতই বিতর্কের তত্ত্ব খারিজ করে দিন, তিনি নিজেও হয়তো বুঝতে পারছেন বিষয়টি অনেকদূর গিয়েছে। আর সেজন্যই তাঁকে মুখ খুলতে হয়েছে।

[আরও পড়ুন: কলকাতা হয়ে দেশে ফিরবে দক্ষিণ আফ্রিকা, দলকে তাজ বেঙ্গলে রাখতে আপত্তি রাজ্যের]

গত তিনটি ক্রিকেট বিশ্বকাপে ক্যামেরার ওপার থেকে ভেসে এসেছে মঞ্জরেকরের গলা। ক্রিকেটপ্রেমীদের কাছে তাঁর কণ্ঠ বেশ পরিচিত। আইসিসির একাধিক টুর্নামেন্টেও ধারাভাষ্যকারের ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছেন তিনি। ১৯৯৬ সালে ক্রিকেটকে বিদায় জানানোর পর ক্রিকেট বিশেষজ্ঞ এবং ধারাভাষ্যকার হিসেবেই তাঁকে চিনেছে যুবপ্রজন্ম। কিন্তু, ২০১৯ বিশ্বকাপে ভারতীয় অলরাউন্ডার রবীন্দ্র জাদেজার উপযোগিতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে বিতর্কে জড়িয়েছিলেন সঞ্জয় মঞ্জরেকর। আবার ভারত-বাংলাদেশ প্রথম দিনরাতের টেস্ট চলাকালীন গোলাপি বলের দৃশ্যমানতা নিয়ে ধারাভাষ্যকার হর্ষ ভোগলের সঙ্গে বচসায় জড়ান তিনি। যা নিয়ে সরগরম হয়ে উঠেছিল সোশ্যাল মিডিয়া।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement