BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

করোনা মোকাবিলায় নয়া উদ্যোগ, জিন তৈরি বন্ধ করে স্যানিটাইজার বানাচ্ছে ওয়ার্নের কোম্পানি

Published by: Sulaya Singha |    Posted: March 20, 2020 9:00 am|    Updated: March 20, 2020 9:00 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনার আতঙ্ক বাড়ার সঙ্গে দুষ্প্রাপ্য হয়ে উঠছে মাস্ক ও স্যানিটাইজার। অনলাইন থেকে খোলা বাজার, কোনও স্থানেই মিলছে না এই দুই সামগ্রী। অথচ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO) মাস্ক ও স্যানিটাইজারকে অত্যাবশ্যক বলে ঘোষণা করেছে। করোনা মোকাবিলায় স্যানিটাইজারের অভাব মেটাতে তাই এবার আসরে নামলেন শেন ওয়ার্ন।

গোটা বিশ্বের মতো অস্ট্রেলিয়াতেও দিনের পর দিন মহামারি করোনার প্রভাব বেড়েই চলেছে। বৃহস্পতিবার পর্যন্ত সে দেশে আক্রান্তের সংখ্যা ৫৬৫-র বেশি। মৃত্যু হয়েছে ছ’জনের। এমন পরিস্থিতিতে জনগণের পাশে দাঁড়িয়ে অভিনব উদ্যোগ নিলেন কিংবদন্তি স্পিনার। ওয়ার্নের মালিকানায় থাকা মদ প্রস্তুতকারক কোম্পানি সেভেনজিরোএইট অথবা ‘৭০৮’ এখন জিনের বদলে তৈরি করছে হ্যান্ড স্যানিটাইজার। ওয়ার্নের কোম্পানির বানানো স্যানিটাইজার ইতিমধ্যেই পশ্চিম অস্ট্রেলিয়ার দু’টো হাসপাতালকে সরবরাহ করা হচ্ছে। একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, “শেন ওয়ার্ন ও তাঁর সহকারী প্রতিষ্ঠাতা ঠিক করেছেন অনির্দিষ্টকালের জন্য জনপ্রিয় জিন তৈরি বন্ধ রেখে ৭০ শতাংশ অ্যালকোহল-যুক্ত স্যানিটাইজার তৈরি করবেন। সেই স্যানিটাইজার পৌঁছে যাবে পশ্চিম অস্ট্রেলিয়ার দুই হাসপাতালে। ইতিমধ্যেই এ নিয়ে চুক্তিও হয়ে গিয়েছে।”

[আরও পড়ুন: কোয়ারেন্টাইনের নিয়ম ভাঙার জের, বাংলাদেশে বিদেশ ফেরত নাগরিকদের জরিমানা করল প্রশাসন]

করোনা ভাইরাস থেকে সুরক্ষিত থাকতে মাঝেমধ্যেই স্যানিটাইজার দিয়ে হাত পরিষ্কার করতে বলা হয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তরফে। আর সেই কারণেই এর চাহিদার তুলনায় যোগান কমে যাচ্ছে। সেই জন্যই ওয়ার্ন ঠিক করেন তাঁর কোম্পানি যদি অন্তত অস্ট্রেলিয়ার প্রতিটা ঘরে ঘরে স্যানিটাইজার পৌঁছে দিতে পারে তাহলে এই কঠিন মুহূর্তে জনগণের অনেক সাহায্য হবে।

স্যানিটাইজার তৈরি করা নিয়ে টুইটও করেন ওয়ার্ন। কিংবদন্তি অজি স্পিনার লিখেছেন, “অস্ট্রেলিয়ার জন্য খুব কঠিন একটা সময়। আমাদের সবাইকে একজোট হয়ে এগিয়ে আসতে হবে। যা যা করা সম্ভব সেটা করতে হবে। স্বাস্থ্যকর্মীদের পাশে থাকতে হবে, যাঁরা করোনা মোকাবিলায় দিনরাত লড়াই করছেন। আমার কোম্পানি স্যানিটাইজার তৈরি করছে। আশা করছি এতে অনেকের সাহায্য হবে।”

[আরও পড়ুন: করোনার সংক্রমণ রুখতে মরিয়া রাজ্য, বন্ধ আধার কার্ড কেন্দ্রগুলিও]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement