BREAKING NEWS

১৯ আষাঢ়  ১৪২৭  রবিবার ৫ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

চলতি বছর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজন অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ, আশঙ্কা প্রকাশ ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার

Published by: Sulaya Singha |    Posted: May 29, 2020 3:50 pm|    Updated: May 29, 2020 4:30 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: চলতি বছর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ কি না হলেই ভাল হয়? করোনার দাপটের জেরে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া এমন ইঙ্গিত কিন্তু ইতিমধ্যেই দিয়েছে। এবার বোর্ড প্রধানের কথায় সে ইঙ্গিত যেন আরও স্পষ্ট হল। তাঁর মতে, চলতি বছর বিশ্বকাপ আয়োজন করা অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ সিদ্ধান্তই হবে। 

মনে করা হয়েছিল, বৃহস্পতিবারই হয়তো আইসিসির বৈঠকে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ নিয়ে অনিশ্চয়তার মেঘ কাটবে। এ বছরই অক্টোবর-নভেম্বরে ব্র্যাডম্যানের দেশে টুর্নামেন্টের আসর বসবে নাকি দু’বছর পিছিয়ে যাবে, তা নিশ্চিত হয়ে যাবে। কিন্তু তেমনটা হল না। কোনও সমাধান সূত্রে পৌঁছতে পারেনি আইসিসি। তারই মধ্যে আসন্ন অক্টোবরেই ভারতের বিরুদ্ধে টি-টোয়েন্টি সিরিজের সূচি ঘোষণা করেছে অস্ট্রেলিয়া। যা খানিকটা হলেও পরস্পরবিরোধী। জিম্বাবোয়ের বিরুদ্ধে ওয়ানডে সিরিজ দিয়ে আগস্ট থেকেই ক্রিকেটে ফিরতে চাইছে ক্রিকেজ অস্ট্রেলিয়া। অক্টোবরেই তারা ভারতের বিরুদ্ধে তিন ম্যাচের টি-২০ সিরিজ খেলবে। ১১, ১৪ ও ১৭ অক্টোবর ম্যাচ হবে যথাক্রমে ব্রিসেবেন, ক্যানবেরা এবং অ্যাডিলেডে। অর্থাৎ অক্টোবরে বিরাট কোহলিরা অস্ট্রেলিয়ায় যাবেন। তারপর দেশে ফিরে আবার ডিসেম্বরে অস্ট্রেলিয়া যাবেন চার টেস্টের সিরিজ খেলতে। প্রথম টেস্ট ৩-৭ ডিসেম্বর ব্রিসবেনে। ১১-১৫ ডিসেম্বর দ্বিতীয় টেস্ট অ্যাডিলেডে। তৃতীয় টেস্ট এমসিজিতে ২৬ ডিসেম্বর থেকে। আর চতুর্থ টেস্ট সিডনিতে ৩ জানুয়ারি থেকে।

[আরও পড়ুন: পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য রোজ খাবারের বন্দোবস্ত করছেন শেহওয়াগ, মহৎ উদ্যোগের প্রশংসা ভাজ্জির]

লক্ষ্মীবারে এই সূচি ঘোষিত হওয়ার পর থেকেই ক্রিকেট মহলে প্রশ্ন উঠেছে, যদি নিজেদের মাঠে ১১ অক্টোবর থেকে টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে পারে অস্ট্রেলিয়া, তাহলে ১৮ অক্টোবর থেকে সে দেশে টি-২০ বিশ্বকাপ করতে অসুবিধে কোথায়? যদিও বিশ্বকাপ আর দ্বিপাক্ষিক সিরিজ আয়োজনে বিস্তর ফারাক।

বোর্ড প্রধান কেভিন রবার্টস বলছেন, “আমরা এখনও আশা ছাড়ছি না। অক্টোবর-নভেম্বরেই টুর্নামেন্ট হবে বলে আশা করছি। তবে এই সময় বিশ্বকাপ আয়োজন অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ হবে। তবে সে সময় নাহলে আগামী বছর ফেব্রুয়ারি-মার্চ কিংবা অক্টোবর-নভেম্বরে হতেই পারে। তবে আইসিসিকে নানাদিক বিবেচনা করেই সিদ্ধান্ত নিতে হবে।” তাছাড়া তিনি এও জানেন, এবার টুর্নামেন্ট হলে হয়তো দর্শকশূন্য মাঠেই তা করতে হবে।

[আরও পড়ুন: আমফানে বিধ্বস্ত বাংলা, দুর্দিনে রাজ্যবাসীর পাশে ফুটবলাররা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement