২২ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  সোমবার ৯ ডিসেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: একদিকে অনুষ্কা শর্মা কাণ্ডে প্রাক্তন ভারতীয় উইকেটকিপার-ব‌্যাটসম‌্যান ফারুখ ইঞ্জিনিয়ারকে শুনিয়ে রাখা। অন‌্যদিকে, ভারতীয় কোচ রবি শাস্ত্রীর সমালোচকদের তুলোধোনা করা। বাংলাদেশ টেস্ট সিরিজ শেষের পর হঠাৎই আগুনে মেজাজে আর্বিভাব ঘটল বিরাট কোহলির!

গত ইংল‌্যান্ড বিশ্বকাপে জাতীয় নির্বাচকদের একমাত্র কাজ ছিল অনুষ্কা শর্মাকে চা দেওয়া- এহেন মন্তব‌্য করে বড়সড় বিতর্কে জড়িয়েছিলেন ইঞ্জিনিয়ার। যার পর অতীতের বিখ‌্যাত এই কিপার-ব‌্যাটসম‌্যানকে পালটা দেন অনুষ্কা। পরে ইঞ্জিনিয়ার বলেন যে, তাঁর মন্তব‌্যের ভুল ব‌্যাখ‌্যা করা হয়েছে। ব‌্যাপারটা এরপর ধামাচাপা পড়ে যায়। কিন্তু এবার বিরাট সেই প্রসঙ্গ নিয়ে মুখ খোলায় ইঞ্জিনিয়ার বনাম অনুষ্কা বিতর্ক আবার স্ফুলিঙ্গ ছড়াতে শুরু করল।

[আরও পড়ুন: ভরা যুবভারতীতে রুদ্ধশ্বাস লড়াই, শেষ মুহূর্তের গোলে হার বাঁচাল এটিকে]

‘‘অনুষ্কা মাত্র একটা ম‌্যাচের জন‌্য এসেছিল বিশ্বকাপে। শ্রীলঙ্কা। আর ফ‌্যামিলি বক্স আর নির্বাচকদের বক্স পুরো আলাদা ছিল। ফ‌্যামিলি বক্সে একজনও নির্বাচক ছিলেন না। অনুষ্কা এসেছিল ওর বন্ধুদের সঙ্গে। আসলে কী জানেন, অনুষ্কা হল সফট টার্গেট। ওকে সবাই চেনে। খুব সফল একজন ব‌্যক্তিত্ব। তাই অনুষ্কার নাম নিয়ে কিছু বললে সহজেই সেটা চোখে পড়ে,’’ এক টিভি চ‌্যানেলে বলেন কোহলি। এরপরই তাঁর দ্রুত সংযোজন, ‘‘ওঁর (ইঞ্জিনিয়ার) নির্বাচকদের বিরুদ্ধে বক্তব‌্য থাকতেই পারে। উনি নির্বাচকদের নিয়েই বলতেন। অনুষ্কার নাম তাহলে টেনে আনলেন কেন?’’ কোহলির রাগ এরপরেও পড়েনি। ‘‘আসলে মিথ‌্যের পর মিথ‌্যে যদি টানা বলে যাওয়া হয়, সেটাকেই সত‌্যি তখন বলে মনে হয়। তাই কোনও না কোনও সময় পালটাটা দিতে হয়। আর এখানে ঠিক সেটাই হয়েছে,’’ ফুঁসতে ফুঁসতে বলে দেন ভারত অধিনায়ক। ‘‘অনুষ্কাকে নিয়ে কী না কী বলা হয়েছে। ওর নিয়ম ভাঙা নিয়ে, প্রোটোকল ভাঙা নিয়ে লোকে যা পেরেছে, বলেছে। কিন্তু অনুষ্কার মূল‌্যবোধ বা স্বভাব কোনওটাতেই এসব নিয়ম বা প্রোটোকল ভাঙার কোনও ব‌্যাপার নেই। এসব ও করে না। তাই আমি জানি না লোকে কেন ওকে জড়িয়ে দেয়? আমার তো মনে হয়, ও সফট টার্গেট।’’ মন্তব্য তাঁর।

ঠিক একইরকম খুনে মেজাজে রবি শাস্ত্রীর সমালোচকদের উপরও ঝাঁপিয়ে পড়েছেন কোহলি। প্রায়ই ভারতীয় কোচের সমালোচকরা বলে থাকেন যে, শাস্ত্রী নাকি কোহলির ‘ইয়েস ম‌্যান।’ যা নিয়ে ফেটে পড়েছেন কোহলি। ‘‘জানি না কেন এসব কথা বলা হয়? কিন্তু এসব মিথ‌্যে শুনলে সেগুলোকে উদ্দেশ‌্যপ্রণোদিত মনে হয়। যে লোকটা দশ নম্বর থেকে শুরু করে টিমের হয়ে ওপেন করেছে, ওপেনার হিসেবে ৪১ ব‌্যাটিং গড় রেখেছে, সে এসব লোকজনের ট্রোলিংয়ে এতটুকু আক্রান্ত হবে না। যারা রবিভাইকে নিয়ে বলছে, ট্রোল করছে, আমি তাদের বলব তোমরা রবিভাই যা করেছে, করে দেখাও। ওরকম সব বোলার খেলো, তারপর ওর সঙ্গে লড়তে যেও!’’

[আরও পড়ুন: ‘ধোনির সঙ্গে কথা হয়ে গিয়েছে’, মাহির ক্রিকেট ভবিষ্যৎ নিয়ে কী বললেন সৌরভ?]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং