BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

করোনার জেরে পুরোপুরি বাতিল হয়ে যেতে পারে ঘরোয়া ক্রিকেট মরশুম, আশঙ্কায় বোর্ডও

Published by: Abhisek Rakshit |    Posted: September 6, 2020 4:17 pm|    Updated: September 6, 2020 4:26 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:‌ করোনা (Covid-19) আবহে দেশে বন্ধ সবধরনের ক্রিকেট টুর্নামেন্ট। এই পরিস্থিতিতে এবারের IPL অনুষ্ঠিত হচ্ছে দুবাইয়ে (Dubai)। কিন্তু কি হবে ঘরোয়া ক্রিকেটের? কবে শুরু হবে রনজি (Ranji Trophy), দেওধর, দলীপ ট্রফির মতো টুর্নামেন্টগুলো? সেই প্রশ্নই এখন উঁকি মারছে বিসিসিআইয়ের (BCCI) অন্দরে।

[আরও পড়ুন:‌ ছেলে না মেয়ে, কী হবে বিরুষ্কার?‌ ভবিষ্যদ্বাণী করলেন জ্যোতিষী]

সর্বভারতীয় এক সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, চলতি মরশুমে এই টুর্নামেন্টগুলো আর আয়োজন করতে চাইছে না বোর্ড। করোনা পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখেই নাকি এই সিদ্ধান্ত। ইতিমধ্যে এই নিয়ে আলোচনাও শুরু হয়েছে বিসিসিআইয়ের অন্দরে। এমনকী রাজ্য সংস্থাগুলোর সঙ্গেও কথা চলছে। বোর্ডের এক আধিকারিককে উদ্ধৃত করে ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কিছু রাজ্যের অবস্থা খারাপ। আর কিছু কিছু রাজ্যের অবস্থা খুবই সঙ্গীন। হু হু করে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। এই পরিস্থিতিতে যেখানে আগামিকাল কী হবে, তারই ঠিক নেই!‌ কীভাবে তিন–চারমাসের টুর্নামেন্ট আয়োজন করা হবে?‌ এখানেই শেষ নয়, ওই বোর্ড কর্তা আরও বলেন, ‘‌‘‌প্রথমে রাজ্য সরকারের অনুমতি লাগবে। তারপর যে শহরে খেলা হবে, তার স্থানীয় প্রশাসনের অনুমতি প্রয়োজন। এরপর সমস্ত কিছু মিটলে রঞ্জির ৩৭টি দল, পাঁচটি দলীপ ট্রফির দল এবং অন্যান্য টুর্নামেন্টের প্রত্যেকটি দলের জন্য জৈব সুরক্ষা বলয়ের ব্যবস্থা করা, এককথায় অসম্ভব। এর সঙ্গে আবার যাতায়াতের ব্যবস্থা করতে হবে। যা খুবই কঠিন ব্যাপার।’‌’

[আরও পড়ুন:‌ লালারসে নিষেধাজ্ঞার পর বল পালিশ করতে স্যানিটাইজার ব্যবহার! সাসপেন্ড অজি পেসার]

এর আগে জুলাই মাসে বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গাঙ্গুলি (Sourav Ganguly) সমস্ত রাজ্য সংস্থাকে জানিয়েছিলেন, এই পরিস্থিতিতেও ঘরোয়া ক্রিকেট আয়োজন ‌করতে চায় বোর্ড। সেক্ষেত্রে কাউকে যাতে আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হতে না হয়, সেরকমই ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছিলেন সৌরভ। কিন্তু বর্তমানে দেশে যেভাবে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে, তাতে ঘরোয়া টুর্নামেন্টের আয়োজন বিশ বাঁও জলে। এমনটাই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement