BREAKING NEWS

০৮ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৯  সোমবার ২৩ মে ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

বিতর্কিত পেনাল্টিতে শেষ জুভেন্তাসের লড়াই, হেরেও শেষ চারে রোনাল্ডোরা

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: April 12, 2018 9:24 am|    Updated: January 10, 2019 4:30 pm

Despite loss Real Madrid in Champions League semis

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মঙ্গলবার রাতে ডি রোসিরা ‘রোমাঞ্চিত’ করেছিলেন মেসির বার্সাকে। দেখিয়ে দিয়েছিলেন এভাবেও ফির আসা যায়। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ আটের দ্বৈরথে অবিশ্বাস্য ফুটবলে হার মানিয়েছিলেন কাতালান জায়ান্টকে। তারই পুনরাবৃত্তির আশায় বুধবার রাতে বুক বেঁধেছিলেন তুরিনের ‘বুড়ি’ জুভেন্তাসের সমর্থকরা। সান্তিয়াগো বার্নাবেউতে হলেও অঘটন হতে পারত। রিয়ালের ঘরের মাঠেই রোনাল্ডোদের হারের স্বাদ দিতে কোনও কসুর বাকি রাখেননি মান্দজুচিচরা। কিন্তু ভাগ্যদেবী কবে কার সাথ দেয় কেউ বলতে পারে না। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে ফিরতি লেগে রিয়াল মাদ্রিদকে মাটি ধরিয়েও বিদায় নিল জুভেন্তাস। ইটালির ক্লাব ৩ গোল দিলেও ম্যাচের অন্তিম লগ্নে পেনাল্টিই সব শেষ করে দিল। গোল করে দলকে শেষ চারে পৌঁছে দিলেন সিআর সেভেন। স্বপ্নভঙ্গ হল জুভেন্তাসের।

টানটান উত্তেজনা, জুভেন্তাসের নাছোড় লড়াই, বিতর্কিত পেনাল্টি আর বহু যুদ্ধের সৈনিক জিয়ানলুইজি বুফোঁর লাল কার্ড। ম্যাচে সব রসদই ছিল। ম্যাচের প্রথম মিনিট থেকে শেষপর্যন্ত, রিয়ালকে ক্রমাগত চাপের ফল পেয়েছিল জুভেন্তাস। ক্রোয়েশিয়ান ফরোয়ার্ড মান্দজুচিচের দু’গোল এবং ফরাসি মিডিও মাতুইদির গোলে ভর করে ম্যাচ প্রায় বের করে নিয়েছিলেন চেলিনিরা। প্রথম লেগে ঘরের মাঠে রিয়ালের কাছে ৩-০ গোলে হারের পর এমন কামব্যাক চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ইতিহাসে কমই আছে। অ্যাগ্রিগেটে ৩-৩। একটা গোল দিতে পারলেই শেষ চারে চলে যাবে রিয়াল। এই অবস্থায় রোনাল্ডো-মার্সেলোরা মরিয়া চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছিলেন গোলের জন্য। আর স্বভাবসিদ্ধ ঢঙে তখন ডিফেন্সে লোক বাড়িয়ে অঘটনের পথ প্রস্তুত করছে জুভেন্তাস। ঠিক সেই মুহূর্তে, ইনজুরি টাইমের শেষ লগ্নে বক্সের মধ্যে রিয়ালের ভাজকেজকে ফাউল। পেনাল্টির সিদ্ধান্ত নেন রেফারি। যা নিয়ে মাঠের মধ্যে হই-হট্টগোল শুরু করে দেয় জুভেন্তাসের ফুটবলাররা। উত্তেজিত হয়ে রেফারিকে ধাক্কা মেরে দেন বুফোঁ। গ্লাভস পরে জুভেন্তাসের গোলপোস্টের নিচে বহু ঐতিহাসিক ম্যাচের সাক্ষী থেকেছেন। শরীর জবাব দেয়নি, তাই ৪০ পেরিয়ে এখনও যুবক জিজি। কিন্তু বুধবার কোথায় যেন তাল কাটল তাঁর ধৈর্যের। বিতর্কিত পেনাল্টির সিদ্ধান্তে মাথা গরম করার ফল লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়লেন তিনি। ততক্ষণে মুষড়ে পড়া গ্যালারি ফের জেগে উঠেছে। নিখুঁত শটে পেনাল্টি থেকে গোল করতে ভুল করেননি রোনাল্ডো। গোটা ম্যাচে কোনও কামাল না দেখিয়েও অদ্ভূতভাবে বুধবার রাতে বার্নাবেউর নায়ক হয়ে গেলেন রোনাল্ডো। হার মানল জুভেন্তাস নাছোড় লড়াই। দুই লেগ মিলিয়ে ৪-৩ গোলে জিতে শেষ চারে চলে গেল রিয়াল।

পেনাল্টিতে গোল করে উল্লাস সিআর সেভেনের
পেনাল্টিতে গোল করে উল্লাস সিআর সেভেনের
[অবসরের সময় হয়েছে, নেটদুনিয়ায় কটাক্ষের শিকার মেসির স্ত্রী]

ম্যাচের পর অবসর নিয়ে কোনও কিছু ভাঙেননি বুফোঁ। কিন্তু সূত্র বলছে, এটাই হয়তো তাঁর শেষ চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ম্যাচ ছিল। তবে মাঠে যতই রেষারেষি থাক। মাঠের বাইরে রোনাল্ডোর সঙ্গে খুব ভাব বুফোঁর। ম্যাচ শেষে তাই বুফোঁ যখন তাঁর লাল কার্ড দেখা প্রসঙ্গে টিভি চ্যানেলকে সাক্ষাৎকার দিচ্ছিলেন সেইসময় আচমকা পিছন থেকে এসে তাঁকে জড়িয়ে ধরে সৌজন্য বিনিময় করেন রোনাল্ডো। পরে সিআর সেভেন বলেন, বুফোঁকে তিনি যথেষ্ট শ্রদ্ধা করেন। পারস্পরিক ভালবাসা ভবিষ্যতেও অক্ষুন্ন থাকবে। এখনই বুফোঁর অবসর দেখতে নারাজ তিনি। তাঁর মতে, বুফোঁর মতো গোলকিপাররা দুর্লভ। তাঁদের গ্লাভস তুলে রাখা মানায় না।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে