১১ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  শুক্রবার ২৭ নভেম্বর ২০২০ 

Advertisement

যে কোনও মূল্যে ডার্বি জিততে হবে, হুঙ্কার এটিকে-মোহনবাগান তারকা রয় কৃষ্ণর

Published by: Sulaya Singha |    Posted: November 22, 2020 3:28 pm|    Updated: November 22, 2020 3:28 pm

An Images

স্টাফ রিপোর্টার: আগামী শুক্রবার এসসি ইস্টবেঙ্গলের (SC East Bengal) বিরুদ্ধে যে কোনও মূল্যে জয় চান রয় কৃষ্ণ। শনিবার এক সাক্ষাৎকারে একথা জানিয়ে দিলেন এটিকে মোহনবাগান দলের প্রধান স্ট্রাইকার।

মাঝে পাঁচ দিন বাকি। কিন্তু এখন থেকেই ডার্বির উত্তাপ বাড়তে শুরু করেছে। কেরালা ব্লাস্টার্সকে তিন বছর হারাতে পারেনি কলকাতার দল। এই প্রথম হারাল। তা-ও আবার কিনা ডার্বির আগে। তাছাড়া টুর্নামেন্ট শুরুর প্রথম ম্যাচ স্বভাবতই যে কোনও দলের কাছে কঠিন হয়। তার উপর রয় কৃষ্ণ (Roy Krishna) গতবার ১৫টা গোল করলেও কেরালার বিপক্ষে একটাও গোল শুক্রবারের আগে পাননি। সেই গাঁট ভেঙে দিয়ে দারুণ গোল করায় ফিজির স্ট্রাইকার খুব খুশি। সামনে ডার্বি নিয়ে প্রশ্ন করতেই রয় কৃষ্ণ জানিয়ে দিলেন, “কলকাতা ডার্বি নিয়ে আগে অনেক শুনেছি। এতদিন কলকাতায় থেকেও এই ম্যাচ না খেলার জন্য আফসোস ছিল। এমনকী এই ম্যাচ আমি কখনও দেখিনি। গত বছর ডার্বির দিন হাসপাতালে যাওয়ার সময় প্রচন্ড জ্যামে গাড়ি আটকে পড়েছিল। তখন ভেবেছিলাম রাস্তায় যদি এত ভিড় হয় তাহলে মাঠে কত লোকই না যাবে! জানি সমর্থকরা এই ম্যাচ জেতার জন্য মুখিয়ে রয়েছেন। তাই যে কোনও মূল্যে জিততে হবে। কেরালা ম্যাচ জেতায় আমাদের মনোবল আরও বেড়ে গিয়েছে।”

[আরও পড়ুন: আইএসএলের প্রথম ডার্বি দেখানো হবে জায়ান্ট স্ক্রিনে, সিদ্ধান্ত লাল-হলুদ কর্তাদের]

কেরলের বিপক্ষে অসাধারণ গোল করে দলকে জেতানোর নায়ক জানিয়ে দিলেন, তিনি এই গোল তাঁর স্ত্রীকে উৎসর্গ করতে চান। ডার্বি খেলতে নামার আগে রয় কৃষ্ণের আক্ষেপও রয়েছে। সেটা কী? এটিকে মোহনবাগান স্ট্রাইকারের আক্ষেপ দর্শককুলের না থাকা নিয়ে। বলছিলেন, “সমর্থকদের উদ্দেশ্যে একটা কথাই বলব। আপনারা যে যেখানে আছেন আমাদের হয়ে প্রার্থনা করুন। যাতে আমরা অনায়াসে ডার্বি জিততে পারি। খুব খারাপ লাগছে, করোনার কারণে আপনাদের সান্নিধ্য পাব না ভেবে। কিন্তু কী আর করা যাবে।” গোল করে দলকে জেতালেও বেশ কয়েকটা সুযোগ নষ্ট করায় অখুশি রয় কৃষ্ণ। বলছিলেন, “হ্যাটট্রিক করতে পারতাম। প্রচুর সুযোগ নষ্ট করেছি। কেন এত মিস করলাম তা সত্যি ভাবাচ্ছে আমাকে। তবে এটুকু বুঝেছি, আরও পরিশ্রম করতে হবে। নিশানায় সঠিক হওয়া জরুরি। মাত্র দু’সপ্তাহ প্র‌্যাকটিস করে খেলতে নেমেছিলাম। এবার যতদিন গড়াবে তত আরও ভাল খেলব।”

প্রথম ম্যাচ জেতায় স্বভাবতই খুশি এটিকে মোহনবাগান (ATK Mohun Bagan) কোচ হাবাসও। ডার্বির আগে এই জয় তাঁর দলের আত্মবিশ্বাস আরও বাড়িয়ে দিয়ে গেল বলে মনে করছেন তিনি। তবে সুশাইরাজের চোট কতটা গুরুতর তা এখনও বোঝা যাচ্ছে না। শনিবার এমআরআই হয়নি। সুশাইরাজ চোট পাওয়া সত্ত্বেও রেফারি খেলা চালানোয় বিরক্ত হাবাস।

[আরও পড়ুন: দলে ‌একাত্মতা বাড়াতে টিম বাসের ড্রাইভারকে নিয়ে এবার টেবিল টেনিস খেললেন ফাউলার]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement