BREAKING NEWS

১৫ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৭  শুক্রবার ২৯ মে ২০২০ 

Advertisement

করোনার কোপ, স্থগিত ভারতে আয়োজিত হতে চলা অনূর্ধ্ব-১৭ মহিলা বিশ্বকাপ

Published by: Sulaya Singha |    Posted: April 4, 2020 11:22 am|    Updated: April 4, 2020 11:22 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ভারতের মাটিতে সফলভাবে আয়োজিত হয়েছিল অনূর্ধ্ব-১৭ পুরুষ বিশ্বকাপ। তাই চলতি বছর নভেম্বরে হতে চলা অনূর্ধ্ব-১৭ মহিলা ফুটবল বিশ্বকাপ নিয়েও উত্তেজনা ছিল তুঙ্গে। কিন্তু করোনা থাবা বসাল সেখানেও। বর্তমান পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে টুর্নামেন্ট স্থগিতের সিদ্ধান্ত নিল ফিফা।

বিশ্বব্যাপী মহামারিতে পরিণত হয়েছে COVID-19। বাতিল হয়ে গিয়েছে প্রায় সমস্ত স্পোর্টস ইভেন্ট। ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ থেকে লা লিগা, আইপিএল থেকে ইউরো কাপ- সবই পিছিয়ে গিয়েছে। এমনকী চলতি বছর বসছে না অলিম্পিকের আসরও। আগামী বছর জুলাইয়ে টোকিও অনুষ্ঠিত হবে অলিম্পিক। এমন কঠিন সময়ে তাই আর কোনও ঝুঁকি নিল না বিশ্ব ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ামক সংস্থা ফিফা। অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত করে দেওয়া হল মহিলা জুনিয়র বিশ্বকাপ। শনিবারই নিজেদের সিদ্ধান্তের কথা ঘোষণা করে ফিফা। শুধু তাই নয়, স্থগিত করে দেওয়া হল ফিফা অনূর্ধ্ব-২০ বিশ্বকাপও।

[আরও পড়ুন: পাকিস্তানে বসবাসকারী হিন্দুদের পাশে দাঁড়ান, যুবি-ভাজ্জির কাছে আরজি দানিশ কানেরিয়ার]

শুক্রবার রাতে ফিফা-কনফেডারেশন ওয়ার্কিং গ্রুপের বৈঠক হয়। ফিফার কর্মকর্তাদের পাশাপাশি বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন সমস্ত ফেডারেশনের শীর্ষ কর্তারা। সেখানেই সর্বসম্মতিক্রমে টুর্নামেন্ট স্থগিতের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। তাদের তরফে শনিবার জানানো হয়, “পানামা/কোস্টারিকায় হতে চলা অনূর্ধ্ব-২০ বিশ্বকাপ হওয়ার কথা ছিল আগস্ট ও সেপ্টেম্বরে। সেটি আপাতত স্থগিত। সেই সঙ্গে নভেম্বরে ভারতে আয়োজিত হতে চলা অনূর্ধ্ব-১৭ মহিলা বিশ্বকাপও স্থগিত করে দেওয়া হয়। শীঘ্রই নতুন দিনক্ষণ ঘোষণা করা হবে।”

২ নভেম্বর শুরু হত অনূর্ধ্ব-১৭ মহিলা ফুটবল বিশ্বকাপ। চলত ২১ নভেম্বর পর্যন্ত। ভারতের পাঁচটি স্টেডিয়ামে ম্যাচের আয়োজন করা হয়েছিল। কিন্তু করোনা যেভাবে বিশ্বজুড়ে দাপট দেখিয়ে চলেছে, তাতে এত বড় ইভেন্ট আয়োজনের ঝুঁকি নিল না ফিফা। তাছাড়া করোনার কারণে আগেই বাতিল করতে হয়েছে বেশ কিছু কোয়ালিফায়িং ইভেন্টও। সবমিলিয়ে তাই টুর্নামেন্ট স্থগিত রাখারই সিদ্ধান্ত নেওয়া হল।

[আরও পড়ুন: সৌরভ-শচীনদের করোনা সচেতনতা প্রচারের আবেদন প্রধানমন্ত্রীর]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement