৮ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৬  বুধবার ২২ মে ২০১৯ 

Menu Logo নির্বাচন ‘১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ঘুমন্ত দৈত্য! যা শুধু জেগে ওঠার অপেক্ষায়! ভারতীয় ফুটবল সম্পর্কে এটাই প্রাথমিক ধারণা ইগর স্টিমাচের। লুকা মদ্রিচদের প্রাক্তন এবং ভারতের সদ্য নিযুক্ত কোচ স্টিমাচ। আগেই যাঁর কোচ হওয়ার ব্যাপারটা নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল। বুধবার শুধু সরকারিভাবে নামটা ঘোষিত হল। ওই তারপরই ভারতীয় ফুটবল সম্পর্কে তাঁর ধারণা এবং হোমওয়ার্ক প্রসঙ্গে দু-চার কথা মিডিয়ার সঙ্গে। ক্রোয়েশিয়ায় তিনি কিংবদন্তি। এবং, এত হাই-প্রোফাইল কোচ ভারতে আগে আসেননি। পারবেন ভারতীয় ফুটবলের হাল ফেরাতে? স্টিমাচ জানেন এটা বিশাল চ্যালেঞ্জ। সেজন্যই বললেন, “কঠিন চ্যালেঞ্জ নিতে ভালবাসি। আর আমার যেটুকু ধারণা হয়েছে, তাতে বলতে পারি ফুটবলের দুনিয়ায় ভারত এক ঘুমন্ত দৈত্য। জেগে ওঠার অপেক্ষায়। এবং আমি আশাবাদী।”

[আরও পড়ুন: শতবর্ষ উপলক্ষে প্রাক্তন অধিনায়কদের সংবর্ধনা জানাবে ইস্টবেঙ্গল]

অবশ্যই এর জন্য হোমওয়ার্কও করেছেন। বললেন, “এএফসি টুর্নামেন্টে ভারতের সবক’টা ম্যাচ দেখেছি এরিনা স্পোর্টস টিভি চ্যানেলে। আর ভারতের কোচের পদে আবেদন করার পর সিরিয়াসলি আইএসএল এবং আই লিগ নিয়ে গবেষণা করেছি। কী ধারণা হয়েছে সেপ্রসঙ্গে বলতে পারি, খেলা নিয়ে ওদের (ফুটবলারদের) মনোভাব খুব ইতিবাচক। যেটা ভাল। আর কয়েকজন কম বয়সী ছেলেকে দেখলাম, যাদের ভবিষ্যতে বড় তারকা হয়ে ওঠার ক্ষমতা আছে।”

[আরও পড়ুন: ইগরকেই সুনীল ছেত্রীদের কোচ হিসাবে বেছে নিল টেকনিক্যাল কমিটি]

আন্তর্জাতিক ফুটবলে সাফল্য পেতে হলে ইউথ বা যুব ফুটবলে জোর দেওয়ার বরাবরের পক্ষপাতী স্টিমাচ। ভারতীয় ফেডারেশন এই যুব ফুটবলেই ইদানীং বাড়তি জোর দিয়েছে। যা স্টিমাচের খুব মনপসন্দ। নিজে যুগোশ্লাভিয়ার অনূর্ধ্ব ২০ দলের হয়ে ফিফা যুব বিশ্বকাপ জিতেছিলেন ১৯৮৭-তে। ফলে মনে করেন যুব ফুটবলে জোর দিলে তবেই একটা দেশের সিনিয়র স্তরের ফুটবলে উন্নতি সম্ভব। বললেন, “এআইএফএফ ছোটদের ফুটবল দলের জন্য যা যা উদ্যোগ নিয়েছে সেটা আমার খুবই ইতিবাচক মনে হয়েছে। আমরা সবাই মিলে চেষ্টা করলে একটা উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ দেখব আশা করি।”

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং