৪ ফাল্গুন  ১৪২৬  সোমবার ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

BREAKING NEWS

Menu Logo দিল্লি ২০২০ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

৪ ফাল্গুন  ১৪২৬  সোমবার ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রবিবার আই লিগ ডার্বিতে মুখোমুখি দুই প্রধান। অন্যান্য বারের থেকে এবার পরিস্থিতি অনেকটাই আলাদা। ডার্বির ঠিক আগেই এটিকের সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধার কথা ঘোষণা করেছে মোহনবাগান। আর ইস্টবেঙ্গলের তরফে জানা গিয়েছে, ইনভেস্টর কোয়েসের সঙ্গে তাদের সম্পর্ক শেষের পথে। মাঠের বাইরের পরিস্থিতি যখন এরকম তখন আবার লিগের নিরিখে মোহনবাগান-ইস্টবেঙ্গল সম্পূর্ণ বিপরীত মেরুতে দাঁড়িয়ে। একদিকে মোহনবাগান লিগ টেবিলের শীর্ষে। অন্যদিকে ইস্টবেঙ্গল শেষ ম্যাচ গোকুলামের কাছে হেরে লিগ টেবিলে চলে গিয়েছে ছ’নম্বরে। তাই সবমিলিয়ে ডার্বির আগে ভিন্ন আবহ দুই প্রধানে। প্রশ্ন হল, ভিন্ন আবহ কি স্পর্শ করে ডার্বিকে?

মোহনবাগান কিংবা ইস্টবেঙ্গলের সিনিয়র ফুটবলাররা এমনটা মানতে নারাজ। তাঁদের সাফ কথা, এসব নিয়ে চিন্তিত নয় কোনও দলই। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মোহনবাগানের এক সিনিয়র ফুটবলার বলছিলেন, “এটিকের সঙ্গে যুক্ত হচ্ছে মোহনবাগান। অর্থাৎ পরের বছর মোহনবাগান আইএসএল খেলবে। ভাল কথা। এটাও হয়তো জানি, আমাদের বাদ দিয়ে হয়তো আগামী বছর দল গড়া হবে। তাতে কী! আরে বাবা দিনের শেষে আমরা পেশাদার। এখানে সুযোগ না পেলে অন্য কোথাও খেলব।” ইস্টবেঙ্গলের সিনিয়র ফুটবলারটির সুর অবশ্য ভিন্ন। বলেন, “আমরা জানি, কোয়েস আগামী বছর থাকবে না। তারা তো আগেই তা ঘোষণা করে দিয়েছে। সমস্যা হচ্ছে কিছু? তারা সরে যাচ্ছে বলে আমাদের চুক্তি অনুযায়ী টাকা দেবে না তা তো বলছে না। এবছর খেলার পর যদি দেখি ইস্টবেঙ্গল আর্থিক সমস্যায় রয়েছে তাহলে আমরা অন্যত্র চলে যাব।”

[আরও পড়ুন: মুম্বইয়ে হারের মধুর প্রতিশোধ, ব্যাটে-বলে দুরন্ত পারফর্ম করে অজি বধ কোহলিদের]

কিন্তু ডার্বিতে কী হবে? মোহনবাগানের ফুটবলার স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন, “ডার্বি বরাবর ইজ্জতের সওয়াল ফুটবলারদের কাছে। সেখানে ক্লাবের জার্সি ফ্যাক্টর করে না। তাই আমাদের লক্ষ্য থাকবে যেভাবে হোক ম্যাচ জিতে মাঠ ছাড়া।” একই সুর ইস্টবেঙ্গল ফুটবলারটির গলাতেও।

তবে সমর্থকরা আশা করেছিলেন, ডার্বির আগে হয়তো নতুন ফুটবলার এনে চমক দেবে কোয়েস ইস্টবেঙ্গল। পরিবর্তে আলেজান্দ্রোর সহকারি কোচ আনলেন কোয়েস কর্তারা। পারিবারিক সমস্যায় দেশে ফিরে যেতে বাধ্য হয়েছেন কোকো। একদা থাইল্যান্ডের বুরিরাম ইউনাইটেড এফসিতে তাঁর সহকারি থাকা মার্সেল ট্রুলসকে আনলেন আলেজান্দ্রো। ডার্বিতে মোহনবাগানের বিরুদ্ধে এখনও অপরাজিত ইস্টবেঙ্গলের স্প্যানিশ কোচ। গোকুলাম ম্যাচের যে ক্ষোভ-বিক্ষোভ দেখা গিয়েছিল, মোহনবাগানকে হারানো গেলে তা নিমেষেই ভ্যানিশ হয়ে যেতে পারে। উলটোদিকে বাগানও চাইবে জিতে শীর্ষ স্থান ধরে রাখতে। সবমিলিয়ে দু’দলের জন্যই এই ডার্বি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

[আরও পড়ুন: গাঁটছড়া নিয়ে ফুটবলারদের আশ্বস্ত করলেন বাগান কর্তারা, ডার্বিতে আমন্ত্রণ গোয়েঙ্কাকে]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং