BREAKING NEWS

২৮ আষাঢ়  ১৪২৭  মঙ্গলবার ১৪ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

বিনামূল্যে শেয়ার ছাড়বে না, ইস্টবেঙ্গলকে সাফ জানিয়ে দিল কোয়েস

Published by: Sulaya Singha |    Posted: March 18, 2020 5:46 pm|    Updated: March 18, 2020 5:46 pm

An Images

দুলাল দে: ২০১৯ এর ২২ জুলাই কোয়েসের সিইও সুব্রত নাগ চিঠি পাঠিয়ে ইস্টবেঙ্গল ক্লাবকে বলেছিলেন, “২০২০-র ৩১ মে মাসের পর থেকে ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের কোনওরকম খেলাধুলোর ব্যাপারে দায়বদ্ধ থাকবে না কোয়েস। আপানাদের বিচ্ছেদ নিয়ে যা পরিকল্পনা, তাতে আমাদেরও সম্মতি রয়েছে।”

গত বছর কোয়েস সিইওর পাঠানো এই চিঠিটিকেই হাতিয়ার করে ইস্টবেঙ্গল কর্তারা ধরেই নিয়েছেন, তাদের সঙ্গে কোয়েসের চুক্তি শেষ হওয়া শুধু সময়ের অপেক্ষা। কিন্তু ইস্টবেঙ্গল কর্তারা কোয়েস সিইওর চিঠির অর্থ করছেন একরকম আর কোয়েস কর্তারা করছেন আরেকরকমভাবে। সুব্রত নাগের এই চিঠির ব্যাখ্যা করতে গিয়ে ইস্টবেঙ্গল কর্তারা বলছেন, “ইস্টবেঙ্গল থেকে খেলার সত্ত্ব নিয়েছিল কোয়েস। সুব্রত নাগের চিঠির মাধ‌্যমে সেই স্বত্ব ফিরিয়ে দেওয়ার কথা বলা আছে। শেয়ার ছাড়ার জন‌্য অর্থ দিতে হবে না।” আর সুব্রত নাগের চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে কোয়েস কর্ণধার অজিত আইজ্যাক বললেন, “বিনামূল্যে কোয়েস ইস্টবেঙ্গল এফসির শেয়ার ছেড়ে দেওয়া হবে না। কোয়েস ইস্টবেঙ্গল এফসির সত্ত্ব এবং ইকুইটি বিক্রি হবে অর্থের বিনিময়ে।”

[আরও পড়ুন: বিশ্বব্যাপী মহামারির মধ্যেই ইংল্যান্ডে চলল ব্যাডমিন্টন টুর্নামেন্ট, আয়োজকদের তীব্র ভর্ৎসনা সাইনার]

বলাই বাহুল্য অজিত আইজ্যাকের এই বক্তব্য জানার পর ইস্টবেঙ্গলের কর্তারা কিছুটা হলেও হতাশ। কোয়েস তাঁর ৭০ ভাগ শেয়ার ছাড়ার জন্য কত টাকা দাবি করবেন, সেটাই এখনও অজিত আইজ্যাক জানাননি। আশা করা হচ্ছে, চুক্তি ভাঙা নিয়ে দু’পক্ষ যখন আলোচনায় বসবে, তখনই শেয়ারের মূল্য বলবেন অজিত আইজ্যাক। ফলে, হয় ইস্টবেঙ্গল কর্তাদের ৭০ ভাগ শেয়ার কোয়েসের থেকে কিনে নিতে হবে। নাহলে ইস্টবেঙ্গল কর্তারা নতুন করে যে ইনভেস্টরের সঙ্গে কথা বলবেন, সেই ইনভেস্টরকে কোয়েসের থেকে কিনে নিতে হবে। সব মিলিয়ে ইস্টবেঙ্গলের আইএসএলে খেলা বিশ বাঁও জলে। যদিও ইস্টবেঙ্গল কর্তারা আশাবাদী সমস্যা কাটিয়ে উঠে সামনের মরশুমেই আইএসএলে খেলবেন। আর সেক্ষেত্রে হাতিয়ার কোয়েসের চিঠি।

কোয়েস সিইওর ২০১৯-এ পাঠানো চিঠি এদিন ক্লাব থেকে প্রকাশ হলেও এরপর কোয়েস থেকে শেয়ার বিক্রি নিয়ে যে চিঠি দেওয়া হয়েছে, তা অবশ্য জানানো হয়নি। এমনকী ইস্টবেঙ্গল চিঠি দিয়ে কোয়েসকে জানিয়েছিল, ‘গোল্ডেন হ্যান্ডশেক’ এর কথা। তারও উত্তর দেয়নি কোয়েস। তার থেকেও গুরুত্বপূর্ণ, মার্চের পর সিইও পদ থেকে সরে যাচ্ছেন সুব্রত নাগ। কোয়েস যে বিনামূল্যে শেয়ার ছাড়বে না, এতদিন কানাঘুঁষোয় শোনা গেলেও মঙ্গলবারই অজিত আইজ্যাক প্রথম সরকারিভাবে জানালেন, তিনি অর্থ ছাড়া ছাড়বেন না। তবে শোনা যাচ্ছে, সমস্যা সমাধানের জন্য নবান্নের দ্বারস্থ লাল-হলুদ কর্তারা। তাঁরা আশাবাদী, ঠিক সময়ে জট খুলে আইএসএলে খেলবে ইস্টবেঙ্গল।

[আরও পড়ুন: এপ্রিলে নয়, আইপিএলের জন্য বিকল্প দিনক্ষণ ভাবছে বোর্ড]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement