BREAKING NEWS

১৯ আষাঢ়  ১৪২৭  রবিবার ৫ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

১৭ জুন মাঠে গড়াবে বল, একাধিক নির্দেশিকা মানতে হবে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের ক্লাবগুলিকে

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: May 31, 2020 8:29 pm|    Updated: May 31, 2020 8:29 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ১৭ জুন। ফুটবলবিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় লিগ আবার ফিরতে চলেছে। হ্যাঁ ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ। ব্রিটিশদের জীবনে আবার বিউটিফুল গেম ফিরছে ঠিকই। কিন্তু তাতেও ফুটবল ফেরার আগে প্রতিটা ক্লাব ও ফুটবলারদের জন্য থাকছে অভিনব সমস্ত নির্দেশিকা। কী সেই নির্দেশিকাগুলো সেটাই এক ঝলক দেখে নেওয়া যাক…

ট্র্যাক অ্যান্ড ট্রেস: করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দিনে দিনে বেড়েই চলেছে ইংল্যান্ডে। অনেক এমন লোকও আছেন যাঁদের মধ্যে করোনার উপসর্গ থাকলেও পরীক্ষা করা হচ্ছে না। সেই কারণেই নতুন অ্যাপ আনতে চলেছে ব্রিটেনের জাতীয় স্বাস্থ্য সংস্থা। যে অ্যাপের সৌজন্যে ট্র্যাক করা হবে করোনা আক্রান্তদের। বা দেখা যাবে আদৌ কোনও লোক করোনা আক্রান্তের সান্নিধ্যে এসেছেন কিনা। প্রিমিয়ার লিগ ফুটবলারদের মোবাইলেও সেই অ্যাপ রাখা হবে। যদি দেখা যায় সেই নির্দিষ্ট ফুটবলার কোনও করোনা আক্রান্তের সান্নিধ্যে এসেছেন তবে তাঁকে সঙ্গে সঙ্গে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হবে।

দশ মিনিটের বেশি সেট পিস ট্রেনিং নয়: প্রতিটা ক্লাবকে বলা হয়েছে যাতে অনুশীলনে সেট পিস ট্রেনিং যাতে দশ মিনিটের বেশি না করানো হয়। সেট পিসের সময় ফুটবলারদের জমায়েত হয়। আর সেটা এড়াতেই নির্দেশ সেট পিস ট্রেনিং খুব বেশি ন‌য়।

ট্রেনিং শেষে একসঙ্গে বসে লাঞ্চ নয়: সাধারণত ট্রেনিং শেষে ফুটবলাররা একে অপরের সঙ্গে বসে ‌লাঞ্চ করতেই অভ্যস্ত। কিন্তু এখন আর সেটা করা যাবে না। প্রতিটা ফুটবলারকে একা একা বসেই লাঞ্চ করতে হবে।

[আরও পড়ুন: সব ঠিক থাকলে ১৩ জুন সম্ভবত জুভেন্তাসের জার্সি গায়ে মাঠে নামবেন রোনাল্ডো]

বিমানে করে যাওয়া নিষিদ্ধ: অনেক ক্লাবই আছে যারা ব্যক্তিগত বিমানে করে ফুটবলারদের অ্যাওয়ে ম্যাচ খেলাতে নিয়ে যায়। তবে সেই বিমান করে আর ফুটবলারদের নিয়ে যাওয়া যাবে না। তার বদলে দুটো আলাদা বাসে অ্যাওয়ে টিমকে যেতে হবে।

ট্রেনিং গ্রাউন্ডের বাইরে লকডাউন: ফুটবলারদের কড়া ভাবে বলে দেওয়া হয়েছে তাঁরা একমাত্র বাড়ির থেকে বেরোবে ট্রেনিংয়ে আসার জন্য। ট্রেনিং সময়টা বাদ দিলে পুরোপুরি গৃহবন্দি থাকতে হবে ফুটবলারদের। মা-বাবা-স্ত্রী-সন্তান ছাড়া আর কোনও আত্মীয় স্বজনকে বাড়িতে থাকার অনুমতি দিতে পারবেন না ফুটবলাররা।

কোনও পার্টি নয়: এমন অনেক ফুটবলার আছেন যাঁরা ল‌কডাউনের নিয়ম অমান্য করেও পার্টি করেছেন। তবে এ বার সেটা বন্ধ করার জন্য সতর্ক করা হয়েছে ফুটবলারদের। কোনও পার্টিতে তাঁরা যেতে পারবেন না। আবার বাড়িতেও পার্টির আয়োজন করতে পারবেন না। বন্ধুদের সঙ্গেও দেখা করতে পারবেন না।

গাড়িতে অন্য কোনও ফুটবলার নয়: এমন অনেক ফুটবলার আছে যারা নিজের সতীর্থের সঙ্গে প্রতিদিন ট্রেনিং গ্রাউন্ডে ট্র্যাভেল করেন। কিন্তু এ বার থেকে নিজের গাড়িতে অন্য কোনও ফুটবলারকে তুলতে পারবেন না কেউ। ফলে একা একাই ট্রেনিং গ্রাউন্ডে আসতে হবে।

মাঠে থুতু নয়: লালা থেকে যেহেতু সংক্রমিত হচ্ছে করোনা সেই কারণে ম্যাচের মধ্যে কেউ থুতু ফেললেই তাঁকে হলুদ কার্ড দেখতে হবে।

কিট পরিষ্কার করা: প্রতিটা ম্যাচের পর নিজের ব্যক্তিগত কিট নিজেদেরই পরিষ্কার করতে হবে ফুটবলারদের।

উপসর্গ হলেই জানাও: শরীরে কোনও করোনা উপসর্গ হলেই সঙ্গে সঙ্গে সেই ফুটবলারকে তাঁর নির্দিষ্ট ক্লাব ডাক্তারকে জানাতে হবে। যারপর হয়তো সেই ফুটব‌লারকে কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে।

[আরও পড়ুন: করোনাতঙ্ক কাটিয়ে ছন্দে ফিরছে ফুটবল, এবার ঘোষিত এফএ কাপ ফাইনালের দিনক্ষণ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement