১১ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  শুক্রবার ২৭ নভেম্বর ২০২০ 

Advertisement

কলকাতায় খেলা নেই, গোয়া থেকেই বাগান সমর্থকদের কাছে বিশেষ ‘‌উপহার’‌ চাইলেন হাবাস

Published by: Abhisek Rakshit |    Posted: November 4, 2020 2:31 pm|    Updated: November 13, 2020 2:51 pm

An Images

দুলাল দে: ISL-এর ছ’বছরের ইতিহাসে তিনিই সফলতম কোচ। তিনি— আন্তেনিও লোপেজ হাবাস (Antonio Lopez Habas)। দু’বার চ্যাম্পিয়ন টিমের কোচ তিনি। আইএসএলের ভাল মন্দ তাঁর নখদর্পণে। কিন্তু এবার সব কিছুই আলাদা। প্রস্তুতি থেকে পরিবেশ, সব। ফের কি তিনি চ্যাম্পিয়নের তকমা পাবেন? গোয়ার হোটেল থেকে সংবাদ প্রতিদিনকে এক্সক্লুসিভ ইন্টারভিউ দিলেন এটিকে মোহনবাগান (Atk Mohunbagan) কোচ আন্তেনিও লোপেজ হাবাস। সেখান থেকেই সমর্থকদের বিশেষ বার্তাও দিলেন।

প্রশ্ন: আইএসলের চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পথটা সবচেয়ে ভাল আপনি জানেন। এবারের প্রস্তুতি নিতে গিয়ে কোথাও কি মনে হচ্ছে, আগের আইএসএলের প্রস্তুতির থেকে সম্পূর্ন আলাদা?
হাবাস: যদি ট্রেনিংয়ের কথা বলেন, তাহলে আমার আলাদা কিছুই মনে হচ্ছে না। গত মরশুমে যেভাবে ট্রেনিংয়ের মধ্য দিয়ে প্রস্তুতি নিয়েছি, এবারও সেভাবেই নিচ্ছি। আগের মরশুমগুলো থেকে যদি পার্থক্য কিছু থেকে থাকে, তাহলে সেটা কোভিড-১৯ এর জন্য।
সাত মাস ধরে ফুটবলাররা কোনও প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচের মধ্যে নেই। তার উপর সবাইকে একসঙ্গে ট্রেনিংয়ে পাওয়া সম্ভব হয়নি। একেকজন ফুটবলার, এক এক সময়ে কোয়ারান্টাইনে গিয়েছে। ফলে ছোট ছোট গ্রুপ করে প্রস্তুতি নিতে হয়েছে। কিন্তু এটাই পরিস্থিতি। আমাদের এই পরিস্থিতির সঙ্গে মানিয়ে নিয়েই প্রস্তুতি সারতে হবে। এই সমস্যা তো শুধু এখানে নয়। সারা বিশ্বে। তবে এই সমস্যাকে কখনওই অজুহাত হিসেবে খাড়া করতে চাই না। কারণ, আমার যা অসুবিধা হবে, সব দলেরই একই সমস্যা হবে।
প্রশ্ন: এগারোতম রাউন্ড পর্যন্ত যা ক্রীড়াসূচী পেয়েছেন, কতটা ভাল হয়েছে এটিকে মোহনবাগানের জন্য?
হাবাস: দেখুন, আমার কাছে কোনও প্রতিযোগিতার ক্রীড়াসূচী মানে, প্রতি ম্যাচ থেকে তিন পয়েন্ট পেতে হবে। ফলে আপাতত যা ক্রীড়াসূচী পেয়েছি, আমার সমস্যা নেই।
প্রশ্ন: গ্রুপের মাত্র একটা ম্যাচ খেলেই ডার্বি ম্যাচ খেলতে নামতে হবে। কীভাবে দেখছেন ব্যাপারটা?
হাবাস: কোনও ম্যাচের আগেই মাঠের বাইরে ম্যাচ খেলতে পছন্দ করি না। আমাদের প্রথম ম্যাচ কেরালার বিরুদ্ধে। আপাতত যাবতীয় ভাবনা কেরালা নিয়েই। কোচিং নিয়ে আমার এতদিনের ভাবনা ডার্বি ম্যাচের জন্য নিশ্চয়ই বদলে ফেলব না।
প্রশ্ন: গতবারের দলের সঙ্গে এবারের দলের মূল পার্থক্যটা ঠিক কোথায়?
হাবাস: দেখুন, আমরা পুরো একটা দল গঠন করি। শুধুমাত্র প্রথম একাদশ দেখে দল বানাই না। এবারের সঙ্গে অন্যান্যবারের একটা পার্থক্য হতে পারে। এবার হয়তো প্রথম দলে প্রচুর ফুটবলার ঘুরে ফিরে সুযোগ পাবে, যা গতবার পায়নি। এই পার্থক্যটা এবার হবে, এখনই বলে দিলাম।

[আরও পড়ুন: মস্তিষ্কে জমাট বেঁধেছিল রক্ত, অস্ত্রোপচারের পর পর্যবেক্ষণে রাখা হল মারাদোনাকে]

প্রশ্ন: অনেকদিন ধরে ভারতীয় ফুটবলের সঙ্গে জড়িয়ে আছেন। প্রথম দিনের সঙ্গে এখনকার ভারতীয় ফুটবল কিংবা আইএসএলের মানের কোনও পার্থক্য দেখতে পান?
হাবাস: ২০১৪-তে যেদিন থেকে ভাল মানের বিদেশি ফুটবলার এবং ভাল বিদেশি কোচরা আইএসএলে আসছে, সেদিন থেকেই ভারতীয় ফুটবলে মানের দিক থেকে একটা পার্থক্য চোখে পড়ছে। কারণ, হাই লেভেলের কোচ এবং ফুটবলাররা এলে, একটা পেশাদারিত্বের আবহ এমনিতেই তৈরি হয়ে যায়। আর ২০১৪’র পর থেকে ভারতীয় ফুটবলে সেটাই হয়েছে।
প্রশ্ন: এবার ডার্বি কি ব্রিটিশ আর স্প্যানিশ ঘরানার দুই কোচের লড়াই?
হাবাস: দেখুন, লড়াইটা হবে দু’দলের ফুটবলারদের মধ্যে। ফুটবলাররাই লড়াইয়ে লিড রোল নেবে। কোচেরা থাকবে পিছনের সারিতে।
প্রশ্ন: কলকাতার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী এসসি ইস্টবেঙ্গলের ফুটবলারদের সম্পর্কে কোনও ধারণা আছে?
হাবাস: সবাইকে জানি না। তবে কিছু ফুটবলারকে অবশ্যই জানি। তবে সব ফুটবলার সম্পর্কেই জেনে যাব। হাতে এখনও তো অনেক সময় আছে।
প্রশ্ন: এটিকে মোহনবাগানের চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পথে কোন কোন দলগুলি বাঁধা হয়ে দাঁড়াতে পারে?
হাবাস: প্রতিযোগিতা শুরুর আগেই প্রতিযোগিতার ফেভারিট কিংবা কারা ফেভারিট নয়, এই প্রসঙ্গে মন্তব্য করা আমি পছন্দ করি না। আগের অভিজ্ঞতা থেকে দেখেছি, আইএসএলে সব সময় কিছু না কিছু চমক অপেক্ষা করে থাকে। ফেভারিটদের নিয়ে মন্তব্য করা যায় না।

[আরও পড়ুন: ‘আইপিএলটা কি দেশের হয়ে খেলার থেকেও জরুরি?’, রোহিতকে তোপ বেঙ্গসরকারের]

প্রশ্ন: মাঠে এটিকে মোহনবাগান খেলবে, যাদের প্রচুর সমর্থক। কিন্তু দুর্ভাগ্য, এবার আপনাদের সমর্থনে গ্যালারিতে সমর্থককেই দেখতে পারবেন না। কী করে উদ্বুদ্ধ করবেন নিজেকে?
হাবাস: এটা আমাদের জন্য সত্যি খুবই খারাপ যে, বিশাল সংখ্যক সমর্থকদের সামনে ম্যাচ খেলার সুযোগ পাব না। অথচ এই বছর প্রতিটা ম্যাচে আমাদের জন্য কী দারুণ অভিজ্ঞতা হওয়ার কথা ছিল। ভেবেছিলাম, কলকাতায় স্টেডিয়াম ভর্তি সমর্থকদের সামনে ম্যাচ খেলব। ফলে খারাপ তো লাগছেই। কিন্তু উপায় যখন নেই, তখন সমর্থকদের অন্যভাবে আমাদের সমর্থনে এগিয়ে আসতে হবে। ইতিমধ্যেই দেখতে পাচ্ছি, সমর্থকরা বিভিন্ন ভাবে আমাদের সমর্থন যোগাচ্ছেন। ওঁরা এমন কিছু করুক যাতে আমরা দূরে থেকেও অনুভব করতে পারি যে সমর্থকরা আমাদের সঙ্গেই রয়েছেন।
প্রশ্ন: আপনার প্রথম ম্যাচ ২০ নভেম্বর কেরালার বিরুদ্ধে? কোয়ারান্টাইন পর্ব কাটিয়ে প্রথম ম্যাচের প্রস্তুতির জন্য যথেষ্ট সময় পেয়েছেন মনে হয়?
হাবাস: আমার কোনও অসুবিধা নেই। কেরালা ম্যাচের আগে ঠিক ঠাক প্রস্তুতি হয়েছে আমাদের।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement