৫ আষাঢ়  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার
বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ

৫ আষাঢ়  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ফের আই লিগ জয়ী ফুটবলার ধনচন্দ্র সিং ফিরতে চলেছেন মোহনবাগানে। সবুজ-মেরুনের একমাত্র আই লিগ জয়ী দলের সদস্য ছিলেন তিনি। এরপরেই আইএসএলে চেন্নাইয়িন এফসিতে চলে যান। সেখান থেকে বর্তমানে রয়েছেন জামশেদপুর এফসিতে।

আইএসএলের দলে খেললেও ধনচন্দ্রর মন এখনও পড়ে রয়েছে মোহনবাগানে। এই মণিপুরী সাইড ব্যাককে দলে নেওয়ার জন্য একটা সময় মাঠের বাইরেই শুরু হয়ে যায় ডার্বি। মধ্যরাত অবধি ইস্টবেঙ্গল তাঁবুতে তাঁকে আটকে রাখলেও সেখান থেকে ছিনিয়ে নিয়ে সই করায় মোহনবাগান। সবুজ-মেরুন জার্সির প্রতি ধনচন্দ্রর একটা দুর্বলতা রয়েই গিয়েছিল। তাই জামশেদপুরে খেলার সময়েই ঠিক করে ফেলেন তিনি আবার আই লিগেই ফিরবেন। আর সে ক্ষেত্রে তাঁর প্রথম পছন্দ স্বাভাবিকভাবেই মোহনবাগান।

[আরও পড়ুন: অর্থ-অক্সিজেনে টান, এভারেস্ট অভিযান বাতিল করে ফিরছেন পিয়ালি]

আইএসএলে খেলার জন্য এমনিতেই আই লিগে ভাল ভারতীয় ফুটবলারের অভাব। মোহনবাগান কর্তারা তাই খোঁজ রাখছেন আইএসএলের কোন ফ্র্যাঞ্চাইজি কোন কোন ফুটবলারকে লিয়েনে ছাড়তে পারে। অথবা কোন কোন ফুটবলার মোহনবাগানে খেলার জন্য আগ্রহী। সেই মতো ফ্র্যাঞ্চাইজি এবং ফুটবলারদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছেন মোহনবাগান কর্তারা। সেভাবেই ধনচন্দ্রর মোহনবাগানে ফেরা। তবে এখনও সবুজ-মেরুন চুক্তিপত্রে সই করেননি তিনি। কিন্তু কথাবার্তা প্রায় চূড়ান্ত হয়ে গিয়েছে। এর সঙ্গে গত মরশুম থেকে গুরজিন্দরকেও রেখে দিচ্ছে মোহনবাগান। আর শিল্টন পালের পাশাপাশি ভাল একজন গোলকিপারের খোঁজ চালাচ্ছেন ক্লাব কর্তারা।

মোহনবাগানের মতো আইএসএলের বিভিন্ন ফুটবলারকে লিয়েনে সই করানোর চেষ্টা করছে ইস্টবেঙ্গলও। এবং এক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় যে সমস্যায় পড়তে হচ্ছে কোয়েস কর্তাদের তা হল প্রত্যেক ফুটবলারই বলছেন তাঁরা আই লিগ নয়। আইএসএলেই খেলতে চায়। এরপরে কোয়েস যে ফুটবলারদের প্রস্তাব দিচ্ছে প্রত্যেককেই জানানো হচ্ছে দীর্ঘ চুক্তির কথা। ফুটবলারদের এখানেই সবচেয়ে বড় চিন্তা। কারণ যেভাবে কোয়েস এবং ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের মধ্যে সমস্যা চলছে তাতে ফুটবলাররা বুঝতে পারছেন না আদৌ কতদিন এই জুটি টিকে থাকতে পারবে। সেই কারণে দীর্ঘ চুক্তি করলে পরবর্তীকালে নতুন স্পনসর এলে সেই সমস্ত খারিজও হয়ে যেতে পারে। তখন সেই ফুটবলারদের হাতে হয়তো কোনও ক্লাব থাকবে না। যে কারণে কোয়েস কর্তারা এখনও নাম করা কোনও ভারতীয় ফুটবলারকে সই করাতে পারেনি।

[আরও পড়ুন: ইংল্যান্ড পাড়ি দেওয়ার আগে PUBG-তে মজে টিম ইন্ডিয়া, দেখুন দলের সফরসূচি]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং