৭ ফাল্গুন  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

ইস্টবেঙ্গল: ১ (আইদারা)
গোকুলাম এফসি: ৩ (হেনরি, ক্রেসপি-আত্মঘাতী, জোসেফ)

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ডার্বির আগে গোকুলামই ছিল ড্রেস রিহার্সালের মঞ্চ। ঘরের মাঠে আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে গোকুলামকে মাটি ধরিয়েই মোহনবাগানের বিরুদ্ধে বড় ম্যাচে নামার লক্ষ্য ছিল ইস্টবেঙ্গল কোচ আলেজান্দ্রোর। কিন্তু সে লক্ষ্য পূরণ হল না। উলটে তিন-তিনটে গোল হজম লাল-হলুদ কোচকে রীতিমতো চিন্তায় ফেলে দিল।

গত ম্যাচে চার্চিলের কাছে হারতে হয়েছিল কোলাডোদের। ফলে লিগ তালিকায় অনেকটাই নেমে যান তাঁরা। পাঞ্জাব এফসি, চার্চিল ব্রাদার্স সকলেই চলে যায় উপরে। অন্যদিকে ড্র করেও শীর্ষস্থান ধরে রাখে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী মোহনবাগান। তাই গোকুলামের বিরুদ্ধে তেড়েফুঁড়ে উঠতে মরিয়া ছিল ইস্টবেঙ্গল। কিন্তু নড়বড়ে ডিফেন্স নিয়ে তেমনটা সম্ভব হল না। খেলার ২১ মিনিটে বাঁ পায়ের জোড়াল শটে বল লাল-হলুদ জালে জড়ান হেনরি কিসেকা। মিনিট সাতেকের মধ্যে সেই গোল শোধও করে দেন কাসিম আইদারা। কিন্তু প্রথমার্ধের ইনজুরি টাইমে ক্রেসপির আত্মঘাতী গোলই ছিল গোদের উপর বিষফোঁড়া। জোসেফের শট আটকাতে গিয়ে নিজেদের জালেই বল জড়িয়ে ফেলেন ক্রেসপি। দ্বিতীয়ার্ধে ঘুরে দাঁড়ানো তো দূরস্ত, গোকুলামের লাগাতার আক্রমণ সামলাতে রীতিমতো হিমশিম খেল লাল-হলুদ রক্ষণ। ফলস্বরূপ, দুর্দান্ত ফর্মে থাকা গোকুলাম স্ট্রাইকার মার্কাস জোসেফ শেষ পেরেকটি পুঁতে দিলেন ইস্টবেঙ্গলের কফিনে। রালতে চেষ্টা করেও সে গোল আটকাতে পারলেন না।

[আরও পড়ুন: এবার রিচাকে বঙ্গরত্ন-বঙ্গবিভূষণ দিতে চায় রাজ্য, পর্যটনমন্ত্রীর মন্তব্যে জল্পনা তুঙ্গে]

ছয় ম্যাচে আট পয়েন্ট নিয়ে তালিকার ছয় নম্বরে নেমে গেল আলেজান্দ্রো অ্যান্ড কোং। ডার্বির আগে দলের এমন ছন্নছাড়া পারফরম্যান্স নিঃসন্দেহে চিন্তা বাড়াল শিবিরের। এক দল যখন শীর্ষে থেকে আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে ডার্বিতে নামবে, তখন হারের হতাশা ঝেড়ে কঠিন লড়াইয়ের মুখে পড়তে হবে ইস্টবেঙ্গলকে।

[আরও পড়ুন: আইসিসির বর্ষসেরা টেস্ট ও ওয়ানডে দলের অধিনায়ক কোহলি, দেখে নিন বাছাই একাদশ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং