৫ মাঘ  ১৪২৬  রবিবার ১৯ জানুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo ফিরে দেখা ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

স্টাফ রিপোর্টার: প্রশ্ন শুনেই খেপে গেলেন ভিকুনা। ক্ষুব্ধ কণ্ঠে মোহনবাগান কোচ বলে বসলেন, “আমরা বলতে কতজনকে বোঝাচ্ছেন? আগে সেটা বলুন। তারপর উত্তর দেব।” ততক্ষণে সাংবাদিক বৈঠকে শুরু হয়ে গিয়েছে জোর গুঞ্জন। প্রশ্নটা কী? ২১টা ম্যাচ এই মরশুমে খেলেছে সবুজ-মেরুন বাহিনী। তারমধ্যে জিতেছে ১২টা। হেরেছে পাঁচটায়। বাকি ম্যাচ ড্র। পরিসংখ্যান খুব খারাপ বলা যাবে না। কিন্তু সমস্যা হচ্ছে, আসল সময়ে মোহনবাগান হারিয়ে যাচ্ছে। ঘরোয়া লিগ, ডুরান্ড কাপ থেকে শুরু করে বাংলাদেশ, সর্বত্র ছবিটা এক। তাহলে কি স্প্যানিশ ফুটবলাররা চাপ নিতে অক্ষম?

এই প্রশ্ন শুনেই খেপে যান ভিকুনা। তবে কোচ যাই বলুন, এখনও পর্যন্ত মোহনবাগান সত্যি আসল পরীক্ষায় ব্যর্থ। আজ চার্চিলের সঙ্গে খেলা। সেই খেলায় না জিতলে আরও চাপে পড়ে যাবে দল। পাহাড়ে গিয়ে আইজলের সঙ্গে ড্র করে ফেরায় এখনও পর্যন্ত সমালোচনার ঢেউ আছড়ে পড়েনি। কিন্তু কল্যাণীর মাটিতে আজ কোনও অঘটন ঘটলে বিপদ বাড়বে বই কমবে না।

[আরও পড়ুন: জোড়া গোল কৃষ্ণের, নর্থইস্টকে মাটি ধরাল এটিকে]

চার্চিল প্রথম ম্যাচে হারিয়ে এসেছে পাঞ্জাবকে। অথচ আইজলের কাছে ড্র করে বসে আছে মোহনবাগান। মনোবলের দিক থেকে এগিয়ে থাকার কথা প্লাজাদের। প্রথম ম্যাচে মোহনবাগান মন্দ খেলেনি। কিন্তু স্ট্রাইকিং ফোর্স ছিল দুর্বল। শনিবার প্র্যাকটিস দেখে মনে হল, সুহেরকে সামনে রেখে বেইতিয়া পিছনে খেললেও আসল কাজটা করবেন কলিনাস। চামোরোকে পরে ব্যবহার করা হতে পারে। চামোরোর মুশকিল হল, হেড ছাড়া তেমন কিছু নেই। সহজ সুযোগ পেলেও তিনি তেমন সুবিধে করতে পারেন না। কিন্তু চার্চিল দলের দু’টো উইং যেমন সচল। আবার ফরোয়ার্ড লাইনও বেশ শক্তিশালী। আক্রমণের সময় প্লাজা একটু আড়ালে থাকার চেষ্টা করেন। সিসে ও মাপুয়ারা বক্সের মধ্যে ঢুকে ত্রাস ছড়ান। তাই মোহনবাগানের রক্ষণকে সকলের উপর নজর রাখতে হবে।

চার্চিল দলের সিডি দেখেছেন স্প্যানিশ কোচ। তাই তাঁর ধারণা, “ওদের স্ট্রাইকিং ফোর্স বেশ ভাল। ডিপ-ডিফেন্সে একজন খেলে (আবু বাকার) যাকে বেশ ভাল লাগল। মাঝমাঠে দু’জন খেলা নিয়ন্ত্রণ করে। সবমিলিয়ে গত ম্যাচের তুলনায় এই দলের বিরুদ্ধে খেলা খুব একটা সহজ হবে না।” আজ ড্যানিয়েলের উপর নির্ভর করবে মোহনবাগানের ভাগ্য। যদি তিনি প্লাজাকে রুখে দিতে পারেন তাহলে সবুজ-মেরুন শিবিরের পক্ষে আক্রমণে যাওয়া কিছুটা সহজ হবে। তবে চার্চিলের নবাগত পর্তুগিজ কোচ তাবারেজ জানিয়ে দিলেন, তাঁরা তিন পয়েন্ট ছাড়া অন্য কোনও ভাবনা নিয়ে মাঠে নামবেন না। তাবারেজ বলছিলেন, “এক পয়েন্ট মাথায় নিয়ে খেলতে নামা মানে হেরে যাওয়া।” কথায় দৃঢ়তার ছাপ ফুটে উঠছিল।

[আরও পড়ুন: ‘ওকে জ্বালাতন করবেন না’! কিং কোহলির কীর্তি দেখে মজার টুইট বিগ বি’র]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং