৩০ কার্তিক  ১৪২৬  রবিবার ১৭ নভেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

এটিকে: ১ (কার্ল)
কেরালা ব্লাস্টার্স: ২ (বের্থোলোমেও- ২ একটি পেনাল্টি)

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কলকাতার ফুটবলপ্রেমীদের জন্য রবিবাসরীয় সন্ধেটা একেবারেই সুখকর হল না। একদিকে বাংলাদেশে যেখানে ইয়ং এলিফেন্ট এফসির তরুণদের কাছে নাস্তানাবুদ হল মোহনবাগান, তখন কোচিতে কেরালা ব্লাস্টার্সের বিরুদ্ধে হার মানলেন বলবন্ত সিংরা। নতুন করে দলের দায়িত্ব নিয়ে টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচে জয়ের মুখ দেখতে পেলেন না এটিকে কোচ লোপেস হাবাস।

শুরুটা মন্দ করেনি টুর্নামেন্টের প্রথম মরশুমের চ্যাম্পিয়নরা। মাত্র ৬মিনিটেই দুর্দান্ত শটে গোল করে দলকে এগিয়ে দেন কার্ল ম্যাকহিউজ। ঘরের মাঠে শুরুতেই পিছিয়ে পড়ে খানিকটা বেসামালই দেখায় কেরলকে। কিন্তু খেলার আধ ঘণ্টার মধ্যেই পেনাল্টি বক্সের মধ্যে ফাউল করে বসেন সুসাইরাজ। ভাল সময়ে পেনাল্টি উপহার পায় হোম ফেভরিটরা। সেখান থেকে গোল করতে কোনও ভুল করেননি বের্থোলোমেও। গোলকিপার অরিন্দম ঠিক দিকে ডাইভ দিয়েও গোল আটকাতে পারেননি। প্রথমার্ধেই আরও একটি গোল হজম করল কলকাতার দল। সৌজন্যে সেই বের্থোলোমেও। সিডোঞ্চার দুর্দান্ত টাচ থেকে জয়সূচক গোলটি করেন কেরল দলের স্ট্রাইকার।

[আরও পড়ুন: শেখ কামাল কাপে চমকে দিল তরুণ ইয়ং এফসি, লজ্জার হার মোহনবাগানের]

দ্বিতীয়ার্ধেও একাধিক গোলের সুযোগ তৈরি করে এলকো সাতোরির কেরল। যদিও এটিকের ডিফেন্স চিড়তে ব্যর্থ হয় প্রতিপক্ষের ফরোয়ার্ড লাইন। হাবাসের রক্ষণাত্মক মানসিকতাই আরও বড় ব্যবধানে হার বাঁচাল এটিকের। সাসপেনশনের জন্য আজ কেরলের বিরুদ্ধে নামতে পারেননি জবি জাস্টিন। খেলেননি আনাসও। এটিকের ভরসা ছিল, ফিজির স্ট্রাইকার রয় কৃষ্ণ অভিষেকেই বাজিমাত করবেন। কিন্তু সেভাবে নজর কাড়তে পারেননি তিনি। অ্যাওয়ে ম্যাচ থেকে তিন না হলেও অন্তত এক পয়েন্ট ঘরে তোলার ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী ছিলেন হাবাস। কিন্তু তেমনটা হল না। খালি হাতেই মাঠ ছাড়তে হল দু’বারের চ্যাম্পিয়নদের।

[আরও পড়ুন: শুরুতেই জোড়া ধাক্কা, ভারতের বিরাট রানের সামনে দিশেহারা দক্ষিণ আফ্রিকা]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং