BREAKING NEWS

১৫ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  বৃহস্পতিবার ২ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

হায়দরাবাদের বিরুদ্ধে তিন পয়েন্ট না পেলে প্লে-অফের স্বপ্ন শেষ লাল-হলুদের

Published by: Abhisek Rakshit |    Posted: February 12, 2021 1:25 pm|    Updated: February 12, 2021 1:25 pm

ISL 2020: Hyderabad Fc vs SC East Bengal Preview | Sangbad Pratidin

ফাইল ছবি

স্টাফ রিপোর্টার: গত ম্যাচের মতোই কি ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে পারবে এসসি ইস্টবেঙ্গল (SC East Bengal)? নাকি আজ জিতে সুপার ফোরে যাওয়ার রাস্তা অনেকটা তৈরি করে ফেলতে পারবে হায়দরাবাদ (Hyderabad FC)? দু’টো দলের কাছে এই ম্যাচটা দারুণ গুরুত্বপূর্ণ। কারণ, এসসি ইস্টবেঙ্গল যদি আজ জিতে যায় তাহলে তারাও সুপার ফোরে ঢোকার রাস্তা তৈরি করতে সক্ষম হবে।

সার্থক গোলুই ও সৌরভ দাস যোগ দেওয়ার পর লাল-হলুদ বিগ্রেডের শক্তি অনেকটা বেড়ে গিয়েছে। গত ম্যাচে জামশেদপুরের বিরুদ্ধে তা দিনের আলোর মতো পরিষ্কার। কোচ রবি ফাউলার শাস্তির কবলে থাকা সত্ত্বেও দল তাই জিতে ফিরতে পেরেছিল। ব্রিটিশ কোচ আজও রিজার্ভ বেঞ্চে বসতে পারবেন না। তবু সহকারী কোচ টনি গ্রান্ট অনেকটা নিশ্চিন্ত। কারণ সার্থকদের জন্য। লিগের শুরু থেকে টেবিলে নীচের দিকে থাকা এসসি ইস্টবেঙ্গল তাই সুপার ফোরে যাওয়ার স্বপ্ন দেখা এখনও ছাড়েনি। নাহলে গ্রান্ট বলবেন কেন, “অন্যান্য দলের তুলনায় হায়দরাবাদকে উপরের দিকে রাখতে চাই। গত দু’বছর ধরে তারা সত্যি ভাল খেলছে। আসলে এই দলে বেশ কিছু তরুণ ফুটবলার রয়েছে। যারা গুণগত মানে অন্যদের থেকে এগিয়ে। এমনিতেই ওরা আমাদের থেকে পয়েন্টের নিরিখে এগিয়ে আছে। তাই ওরা চেষ্টা করবে সেই অবস্থান ধরে রেখে এগোতে।”

[আরও পড়ুন: দ্বিতীয় টেস্টে অ্যান্ডারসনকে বসাতে পারে ইংল্যান্ড! ভারতীয় দলে অক্ষরের ঢোকার সম্ভাবনা]

ব্রাইট এনোবাখারে আসার পর দলের শক্তি অনেকটাই বেড়েছিল। তার উপর সার্থকরা দলের সঙ্গে সদ্য যুক্ত হওয়ায় এখন আক্রমণে বৈচিত্র এসেছে। সার্থক গোলুই ও সৌরভরা ডিফেন্সে ভরসা জোগাতে পারছে। ফলে মাঝমাঠে ও ফরোয়ার্ড লাইনে বিদেশিদের বেশি ব্যবহার করছেন গ্রান্ট। যা আগে হচ্ছিল না। ফলে প্রথম লেগের খেলায় জামশেদপুরের কাছে হারলেও এখন দলের মধ্যে সম্পূর্ণ বিপরীত ছবি। গ্রান্ট তাই বলছেন, “প্রথম একাদশ যে আমাদের ঠিক হয়ে গিয়েছে তা বলব না। তবে দুই নবাগত এসে দলের শক্তি অনেকটা বাড়িয়ে দিয়েছে। আসলে সার্থকরা আসায় দলের মধ্যে অনেক অপশন তৈরি হচ্ছে। যা আগে হচ্ছিল না। স্কট নেভিলকে একমাত্র ডিফেন্সে রেখে স্টেইনম্যানকে আক্রমণে পাঠানো সম্ভব হচ্ছে। আগে স্টেইনম্যান শুধুমাত্র রক্ষণের দিকে নজর দিতে গিয়ে সেভাবে আক্রমণে উঠতে পারত না। অথচ স্টেইনম্যান রক্ষণ সামলাতে তেমন দক্ষ নন। “গতম্যাচে ওরা প্রথম খেলল। তবু আমাদের মন ভরিয়ে দিয়েছে,” সহজ স্বীকারোক্তি গ্রান্টের।

মুশকিল হচ্ছে, ড্যানিয়েল ফক্স, নারায়ণ দাস, মাঘোমারা তিনটে করে হলুদ কার্ড দেখেছেন। আর একটা দেখলেই সামনের ম্যাচ খেলতে পারবেন না। তাহলে এদের কি এই ম্যাচে সেভাবে ব্যবহার করবেন না গ্রান্ট? “হলুদ কার্ড দেখার ভয়ে কখনও কাউকে বসানো ঠিক হবে না। ফুটবলে কেউ কার্ড দেখতেই পারে। সেটা খেলারই অঙ্গ। তাই কেউ যদি একটা হলুদ কার্ড দেখে পরের ম্যাচে না খেলতে পারে তাহলে অন্য কেউ সেই সুযোগ নেবে। নিজেকে প্রমাণ করবে,” বলেন গ্রান্ট।

[আরও পড়ুন: অর্জুন তেণ্ডুলকরকে দলে নেওয়া হোক, নিলামের আগে আরজি মুম্বই ইন্ডিয়ান্স সমর্থকদের]

আজকের ম্যাচের পর এসসি ইস্টবেঙ্গলের সামনে এটিকে মোহনবাগান, নর্থইস্ট ও ওড়িশা ম্যাচ বাকি থাকবে। তবে এসসি ইস্টবেঙ্গল বেশিরভাগ গোল খেয়েছে দ্বিতীয়ার্ধে। এটাও একটা ভয়ের কারণ। সদ্য হায়দরাবাদ কোচ ম্যানুয়েল মার্কোয়েজের সঙ্গে আরও এক বছরের জন্য চুক্তির মেয়াদ বেড়েছে। গত আটটা ম্যাচে তারা হারেনি। “এসসি ইস্টবেঙ্গলকে ছোট করে দেখার কোনও মানে হয়না। দলে বেশ কিছু নবাগত ফুটবলার আসায় অনেক শক্তি বেড়ে গিয়েছে। তবে সুপার ফোরে যেতে হলে আমাদের সব ম্যাচ না জিতে উপায় নেই,” জানিয়েছেন মার্কোয়েজ।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে