১৬ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  শুক্রবার ৩ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

শেষ মুহূর্তে বিশ্রী গোল হজম, সেমিফাইনালের প্রথম লেগে ড্র করেই মাঠ ছাড়ল হাবাসবাহিনী

Published by: Abhisek Rakshit |    Posted: March 6, 2021 9:36 pm|    Updated: March 6, 2021 9:49 pm

ISL 2020: NorthEast United vs ATK Mohunbagan match report | Sangbad Pratidin

নর্থইস্ট ইউনাইটেড- ১ (সায়লা)
এটিকে মোহনবাগান- ১ (উইলিয়ামস)

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: তাহলে কি খালিদ জামিলের টানা ৯ ম্যাচ অপরাজিত থাকার রেকর্ড ভেঙে যাবে? এটিকে মোহনবাগান (ATK Mohunbagan) বনাম নর্থইস্ট ইউনাইটেডের (NorthEast United) ম্যাচের ৯০ মিনিট পর্যন্ত এটাই হয়তো ভাবছিলেন সবুজ-মেরুন সমর্থকরা। কারণ ওই সময় পর্যন্ত উইলিয়ামসের গোলে এগিয়ে ছিল এটিকে মোহনবাগান। কিন্তু একদম শেষ মুহূর্তে ছন্দপতন। বাগান রক্ষণের ভুলে গোল করলেন নর্থইস্টের সায়লা। ফলে জেতা ম্যাচ ১-১ গোলে ড্র করেই মাঠ ছাড়তে হল হাবাস বাহিনীকে।

গ্রুপ লিগের শেষ দু’টি ম্যাচ সবসময় ভুলতে চাইবে এটিকে মোহনবাগান শিবির। হায়দরাবাদের (Hyderabad FC) সঙ্গে ড্র’য়ের পর মুম্বই সিটি এফসির (Mumbai City FC) কাছে হেরে যায় সবুজ-মেরুন ব্রিগেড। যেখানে একটি ম্যাচ জিতলেই এএফসি চ্যাম্পিয়ন্স লিগে খেলার ছাড়পত্র পেয়ে যেত হাবাস বাহিনী। কিন্তু তা হয়নি। আর তাই ISL ট্রফিটিকেই পাখির চোখ করেছে এটিকে মোহনবাগান। আর তাই এদিন ম্যাচের শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক হতে দেখা যায় রয় কৃষ্ণ-ডেভিড উইলিয়ামসদের। তবে পালটা আক্রমণে গিয়েছেন খালিদ জামিলের ছেলেরাও। এই সময় বাগানের একের পর এক আক্রমণ নর্থইস্টের রক্ষণে এসেই আটকে যেতে থাকে। ২৪ মিনিটে একক দক্ষতায় প্রায় গোলের মুখ খুলে ফেলেছিলেন রয় কৃষ্ণ। কিন্তু তাঁর শট অল্পের জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে যায়। এরপর মনবীরও একটি সুযোগ নষ্ট করেন।

[আরও পড়ুন: ইংল্যান্ডকে হারিয়ে জোড়া ‘বোনাস’ ভারতের, লর্ডসে কিউয়িদের মুখোমুখি বিরাটরা]

তবে এরপরই সেই কৃষ্ণ-উইলিয়ামস জুটিই বাগানকে এগিয়ে দেয়। ম্যাচের বয়স তখন ৩৪ মিনিট। কৃষ্ণের পাস থেকে দুরন্ত শটে নর্থইস্টের গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন উইলিয়ামস। সেই সঙ্গে এটিকে মোহনবাগানও ১-০ গোলে এগিয়ে যায়। প্রথমার্ধের একদম অন্তিম মুহূর্তে অবশ্য সমতা ফেরাতে পারতেন খালিদের ছেলেরা। কিন্তু আশুতোষ মেহতার হেড দুরন্ত সেভ করেন এটিকে মোহনবাগান গোলরক্ষক অরিন্দম ভট্টাচার্য। তার হাত ছুঁয়ে বল পোস্টে লেগে বাইরে বেরিয়ে যায়। শেষপর্যন্ত ১-০ ব্যবধানেই শেষ হয় প্রথমার্ধের খেলা।

এরপর দ্বিতীয়ার্ধের শুরু থেকেই গোলশোধের মরিয়া চেষ্টা শুরু করে খালিদ জামিলের ছেলেরা। কিন্তু সন্দেশহীন বাগান রক্ষণ সেই সমস্ত আক্রমণ রুখে দেয়। একের পর এক বদল হলেও গোটা দ্বিতীয়ার্ধে গোলের মুখ খুলতে পারেনি খালিদ জামিলের দল। উলটে কৃষ্ণকে আটকাতেই বেশ বেগ পেতে হয় পাহাড়ি দলটির রক্ষণকে। এই সময় উইলিয়ামস-মনবীররা আরও গোলের সুযোগ পেয়েছিলেন। কিন্তু তাঁরা গোল করতে সক্ষম হননি। এদিকে, সবাই যখন ভাবছে, হাসতে হাসতেই ম্যাচ জিতে যাবেন হাবাস। থামবে নর্থইস্টের অপরাজিত থাকার দৌড়, তখনই ঘটল অঘটন। অতিরিক্ত সময়ের একবারে অন্তিম মুহূর্তে গোল খেয়ে যায় বাগান রক্ষণ। একেবারে ফাঁকায় হেড করে নর্থইস্টকে সমতায় ফেরান সায়লা। ফলে ড্র করেই মাঠ ছাড়তে হল এটিকে মোহনবাগানকে। আর টানা ১০ ম্যাচ অপরাজিতই রইলেন খালিদ জামিল। আপাতত দ্বিতীয় লেগের উপরেই ঝুলে রইল সবুজ-মেরুনের কাপ ভাগ্য।

[আরও পড়ুন: স্পিনের সামনে ‘অক্ষর’জ্ঞানহীন ইংল্যান্ড, চতুর্থ টেস্টেও অনায়াস জয় বিরাটদের]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে