২১ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  রবিবার ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

স্টাফ রিপোর্টার: নির্বাচনের আগে যা যা প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, একবছরের মধ্যে দেখা গেল তার বেশিরভাগটাই পালন করেছে স্বপনসাধন বোসের নেতৃত্বাধীন কমিটি। স্পনসরের সঙ্গে কথাবার্তা যে প্রায় চূড়ান্ত, তা কিছুদিন আগেই বলা হয়েছিল। সোমবার তাতেই যেন সরকারিভাবে সিলমোহর দিলেন মোহনবাগান সচিব স্বপনসাধন (টুটু) বোস। বলা যায়, সভ্য সমর্থকদের জন্য মোহনবাগান সচিবের পক্ষ থেকে দীপাবলির উপহার।


মঙ্গলবার ক্লাবের সভ্য সমর্থকদের এক বার্তায় মোহনবাগান সচিব বলেন, “ক্লাবের জন্য উপযুক্ত বিনিয়োগকারী নিয়োগ করার জন্য যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম, তা পালন করতে আমরা দায়বদ্ধ। বিনিয়োগকারী নিয়োগের পুরো পদ্ধতিটা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছিল, ভারতীয় ফুটবলের ভবিষ্যতের কোনও ‘রোডম্যাপ’ না থাকায়। কিন্তু এখন এএফসি এবং এআইএফএফ-এর গাইডলাইন মেনে রোডম্যাপ প্রকাশিত হওয়ায় আপনাদের নিশ্চিত করছি, কিছুদিনের মধ্যেই ক্লাবের জন্য বিনিয়োগকারী এবং স্পনসর দুটোই নিয়ে আসছি। আগের মতোই আপনাদের সমর্থন এবং সহযোগিতা নিয়ে আমাদের ক্লাবকে ভবিষ্যতে অন্য উচ্চতায় নিয়ে যাব।”

[আরও পড়ুন: পিছিয়ে গেল শেখ কামাল কাপের সেমিফাইনাল, মঙ্গলবার নামছে মোহনবাগান]

গতকালই নির্বাচনে জিতে মোহনবাগান ক্লাবের ক্ষমতায় আসার এক বছর পূর্ণ করেছে স্বপনসাধন বোসের নেতৃত্বাধীন কমিটি। বছর পূর্ণ করার গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তে মোহনবাগান সচিব এক বার্তায় বলেন, “দায়িত্ব নেওয়ার সময় আমরা যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম, এক বছর পূর্ণ করার মধ্যেই তার বেশিরভাগটাই কিন্তু আমরা পালন করেছি। সদস্য-সমর্থকদের সহযোগিতাতেই আমরা ক্লাবের সোসাইটি রেজিস্ট্রেশন করাতে সক্ষম হয়েছি। ক্লাবের লোগো এবং রংয়ের ট্রেড মার্ক স্বত্ব নেওয়া হয়েছে। এই সময়ের মধ্যেই কোম্পানির শেয়ার ‘ট্রান্সফার’ করা হয়েছে ক্লাবে। নতুন করে গড়ে তোলা হয়েছে আধুনিক ড্রেসিংরুম, কোচেদের রুম, রেফারিদের রুম। নতুন মোড়কে তৈরি হয়েছে ক্লাব অফিস। সাংবাদিক সম্মলেন রুম। মহিলাদের শৌচাগার।”

[আরও পড়ুন: রোনাল্ডোই সর্বকালের সেরা ফরোয়ার্ড, মেনে নিলেন মেসি ]

মোহনবাগান সচিব বলেন, “ক্লাবে সদস্য-সমর্থকদের সাহায্য ছাড়া কিছুতেই সম্ভব ছিল না এই বিশাল কর্মকাণ্ড এক বছরের মধ্যে পুরো করা। এর বাইরেও কিছু কাজ রয়ে গিয়েছে, যা প্রতিশ্রুতি দেওয়ার পরেও এখনও করে উঠতে পারিনি। তবে ইতিমধ্যেই ক্লাবের সদস্যকার্ড কম্পিউটারের মাধ্যমে করা হচ্ছে। একই সঙ্গে ক্লাব তাঁবুও আধুনিকভাবে গড়ে তোলা হবে।”
দীপাবলির মুহূর্তে ক্লাব সচিবের থেকে এই লিখিত বার্তা পেয়ে সমর্থকরা উজ্জীবিত। সবাই এখন তাকিয়ে রয়েছেন চট্টগ্রামের দিকে। যেখানে আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপে ফাইনালে ওঠার লড়াই করছেন ফুটবলাররা। তার মধ্যেই স্বপনসাধন বোসের আশার বাণী।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং