৩০ ভাদ্র  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রেফারিকে ঘুসি মারার শাস্তি পেলেন ফুটবলার। সাদার্ন সমিতির শ্যাম মণ্ডলকে দু’বছরের জন্য নির্বাসিত করল আইএফএ। বুধবার শৃঙ্খলারক্ষা কমিটির বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

আগামী দু’বছরের জন্য আইএফএ-র কোনও টুর্নামেন্টে অংশ নিতে পারবেন না শ্যাম। এমনকী আইএফএ অনুমোদিত কোনও ম্যাচেও খেলতে পারবেন না তিনি। এককথায়, নিজের কৃতকর্মের জন্য আগামী দু’বছরের জন্য ফুটবল মাঠ থেকেই সম্পূর্ণ ছিটকে গেলেন ফুটবলার।

[আরও পড়ুন: হাড্ডাহাড্ডি সেমিফাইনালে তৃপ্তির জয়, ইস্টবেঙ্গলকে হারিয়ে ডুরান্ডের ফাইনালে গোকুলাম]

ঘটনা গত সোমবারের মহামেডানের বিরুদ্ধে সাদার্ন ম্যাচের। ম্যাচের ৯০ মিনিট পর্যন্ত এক গোলে এগিয়ে ছিল সাদার্ন। কিন্তু অতিরিক্ত সময় হিসেবে ১১ মিনিট সময় দেন রেফারি। হাওয়া গরম হয় তখন থেকেই। চার মিনিটের মধ্যে মহামেডান গোল শোধ করে দিতেই সেই আগুনে ঘৃতাহুতি হয়। রেফারি খেলা শেষ করতেই সাদার্ন ডাগ আউট থেকে তাঁর দিকে তেড়ে যান শ্যাম মণ্ডল। বাক-বিতণ্ডার মাঝে পুলিশের সামনেই রেফারি দেবাশিস মাণ্ডির কানের পাশে সজোরে ঘুসি মারেন তিনি। ঘটনাস্থলে ছিলেন ম্যাচ কমিশনার সুব্রত দাসও। বলেন, ঘটনার বিস্তারিত বর্ণনা দিয়ে রিপোর্ট জানানো দেওয়া হবে আইএফকে। মঙ্গলবারই রিপোর্ট জমা পড়ে আইএফএ-তে। তারপরই এদিন বৈঠকে বসেন শৃঙ্খলারক্ষা কমিটির সদস্যরা। সেখানেই শ্যাম মণ্ডলকে নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ময়দানে যাতে এমন ঘটনার পুনরাবৃত্তি না হয়, তার জন্য দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়ার প্রয়োজন ছিল। আর সেই কারণেই এমন কড়া শাস্তির সিদ্ধান্ত।

ঘটনার পরই সাদার্ন ফুটবলারের বিরুদ্ধে ময়দান থানায় লিখিত অভিযোগও জানান রেফারি দেবাশিস। সাদার্ন কোচ মেহতাব হোসেন রেফারির কাছে ক্ষমা চাইলেও নিজের অবস্থান থেকে নড়েননি রেফারি। “আজ আমার সঙ্গে হয়েছে। কাল অন্য কারও সঙ্গে হবে। এমন ঘটনায় আতঙ্কিত। ও যে ঘুসি মারবে ভাবতে পারিনি।” বলেন তিনি। তবে এই প্রথমবার নয়, এর আগে লিগেরই এক ম্যাচে রেফারি বরুণ সাহাকে পিটিয়ে ছিলেন শ্যাম। এবার শাস্তি পেতে হল তাঁকে।

[আরও পড়ুন: টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে নতুন রূপে টিম ইন্ডিয়া, দল বাছাই নিয়ে ধন্দে বিরাট]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং