২৬ আষাঢ়  ১৪২৭  শনিবার ১১ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

লকডাউনে মাঠে নামতে চূড়ান্ত কড়াকড়ি, অ্যাথলিটদের জন্য জারি ২২টি নিয়ম

Published by: Sulaya Singha |    Posted: May 19, 2020 7:31 pm|    Updated: May 19, 2020 7:31 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: শপিং করতে কিংবা জন্মদিনের পার্টিতে যাওয়া যাবে না। সালোঁ কিংবা বিউটি পার্লার? নৈব নৈব চ। সাওনা কিংবা আইস বাথও নেওয়াতে ‘না’। বগিরাগত কারও সঙ্গে দেখা করা কিংবা কথা বলাতেও জারি নিষেধাজ্ঞা। এই সমস্ত বাধানিষেধ মানলেই নামা যাবে মাঠে। অ্যাথলিটদের জন্যই এই নির্দেশিকাই পাঠাল ভারতীয় অ্যাথলেটিক্স ফেডারেশন (AFI)।

দেশজুড়ে চতুর্থ দফার লকডাউন ঘোষণার দিনই বিস্তারিত গাইডলাইন প্রকাশ করেছিল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। ছাড় পেয়েছিল খেলার দুনিয়া। জানিয়ে দেওয়া হয়, সমস্ত স্টেডিয়াম এবং স্পোর্টস কমপ্লেক্স খোলা যাবে। তবে দর্শকদের স্টেডিয়ামে প্রবেশের অনুমতি নেই। এই নির্দেশের পর অ্যাথলিটদের মাঠে নেমে অনুশীলনে অন্তত আর কোনও বাধা রইল না। কিন্তু অ্যাথলেটিক্স ফেডারেশন মঙ্গলবার সাফ জানিয়ে দিল, প্র্যাকটিস করতে হলে পরিচ্ছন্ন থাকা এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা ছাড়াও বেশ কিছু নিয়ম মেনে চলতে হবে। এই মর্মে মোট ২২টি নিয়ম লাগু করছে ফেডারেশন। শুধু অ্যাথলিটই নয়, নিয়মাবলি মেনে চলতে হবে প্রশিক্ষণের সঙ্গে যুক্ত কোচ ও সাপোর্ট স্টাফদেরও। গাইডলাইনে সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, নিয়ম ভাঙলে অভিযুক্ত আর প্রশিক্ষণে যোগ দিতে পারবেন না।

[আরও পড়ুন: করোনার জের, বলে লালারস লাগানোয় নিষেধাজ্ঞার সুপারিশ আইসিসি ক্রিকেট কমিটির]

ঠিক কোন তারিখ থেকে মাঠে নেমে পড়তে পারবেন অ্যাথলিটরা, তা এখনও জানানো হয়নি। তবে স্পোর্টস অথরিটি অফ ইন্ডিয়া (SAI) বেঙ্গালুরু ও পাটিয়ালার জাতীয় ক্যাম্প শুরুর প্রস্তুতি নিচ্ছে। অ্যাথলিটদের জন্য জারি থাকবে কঠিন নিয়মকানুন। শোনা যাচ্ছে, রিহ্যাব বা চিকিৎসা ছাড়া অন্য কোনও কারণে হস্টেল থেকে বেরতে পারবেন না তাঁরা। “ক্যাম্পাসের বাইরে গিয়ে খাবারের প্যাকেট আনতে পারবেন না অ্যাথলিটরা। এছাড়া তাঁদে জন্য কোনও পার্সেল এলে তা অন্য কাউকে গ্রহণ করতে হবে। ২৪ ঘণ্টা আগে অ্যাথলিটের তাতে হাত দেওয়া বারণ।” জানিয়েছে সাই।

সামাজিক দূরত্ব যাতে মানা যায়, সেভাবেই প্রশিক্ষণের সময় সাজানো হবে। এর পাশাপাশি কেউ যাতে ক্যাম্পাসে থুতু না ফেলেন, পরস্পরের সঙ্গে হা না মেলান, অকারণে হস্টেলের বাইরে না যান, সেসব দিকেও কড়া নজর রাখা হবে। নিয়মভঙ্গ করলে শাস্তির মুখেও পড়তে হতে পারে অ্যাথলিটদের। এছাড়াও সাই জানিয়েছে, যে অ্যাথলিটরা বাইরে থেকে এসে ক্যাম্পাসে যোগ দেবেন, তাঁদের প্রত্যেকের কোভিড টেস্ট করা হবে। রিপোর্ট আসার আগে পর্যন্ত তাঁদের কোয়ারেন্টাইনেই থাকতে হবে। অর্থাৎ করোনা আবহে কঠিন নিয়ম মেনেই মাঠে নামতে হবে খেলোয়াড়দের।

[আরও পড়ুন: করোনা পরবর্তী ফুটবলের ঢাকে কাঠি বাংলাতেই, কলকাতাতে হবে ফুটসল ক্লাব চ্যাম্পিয়নশিপ!]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement