BREAKING NEWS

১৫ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৭  শুক্রবার ২৯ মে ২০২০ 

Advertisement

কোয়ারেন্টাইনের নিয়ম ভেঙে রাষ্ট্রপতি ভবনে মেরি কম, সমালোচনার মুখে ভারতীয় বক্সার

Published by: Sulaya Singha |    Posted: March 21, 2020 5:42 pm|    Updated: March 21, 2020 6:25 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিদেশ থেকে ফিরলেই সেল্‌ফ কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। ১৪ দিন সমাজ থেকে নিজেকে দূরে থাকার পরামর্শ দিচ্ছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO)। গোটা বিশ্বেই এই নিয়মের পালন করে বলা হচ্ছে। কারণ নিজে সুস্থ থাকলেই অন্যকে সুস্থ রাখা সম্ভব। কিন্তু অনেকেই এই পরামর্শ বা নির্দেশের তোয়াক্কা করছেন না। বিশ্বব্যাপী করোনার মহামারির মধ্যেও নির্দেশিকা অমান্য করে যেখানে-সেখানে ঘুরে-ফিরে বেড়াচ্ছেন অনেকে। বন্ধু-বান্ধবদের সঙ্গে মেলামেশাও করছেন। এমন দায়িত্বজ্ঞানহীন কাজ করায় সমালোচনার মুখেও পড়তে হয়েছে একাধিক তারকাকে। এবার সেই তালিকায় ঢুকে পড়লেন মেরি কম।

সম্প্রতি এশিয়া-ওশিয়ানিয়া অলিম্পিক কোয়ালিফায়ারের জন্য জর্ডন গিয়েছিলেন লন্ডন অলিম্পিকে পদকজয়ী ভারতীয় বক্সার। গত ১৩ মার্চ দেশে ফেরেন তিনি। তারপরই WHO-এর নিয়মাবলি মেনে তাঁর দু’সপ্তাহ সেল্‌ফ কোয়ারেন্টাইনে থাকার কথা ছিল। কিন্তু নিয়মকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে পাঁচদিন পরই মেরি কম হাজির হন রাষ্ট্রপতি ভবনে। রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ এবং অন্যান্য মন্ত্রীদের সঙ্গে প্রাতঃরাশে যোগ দিতে সেখানে উপস্থিত হয়েছিলেন তিনি। সেই আয়োজনের ছবি ১৮ মার্চ নিজেই সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেন কোবিন্দ। সেখানেই দেখা যায়, অতিথিদের মধ্যে রয়েছেন মেরি কমও। ছবির সঙ্গে লেখা, “উত্তরপ্রদেশ ও রাজস্থানের সাংসদদের এদিন সকালে রাষ্ট্রপতি ভবনে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন কোবিন্দ।”

[আরও পড়ুন: করোনা মোকাবিলায় কাইফ-যুবরাজের পার্টনারশিপের স্মৃতি উসকে টুইট মোদির]

তবে মেরি কম একাই দুশ্চিন্তা বাড়াননি, তাঁর দোসর বিজেপি নেতা দুষ্মন্ত সিং। করোনায় আক্রান্ত বলিউড গায়িকা কনিকা কাপুরের সঙ্গে সম্প্রতি সাক্ষাৎ হয়েছিল তাঁর। তারপরই তিনি রাষ্ট্রপতি ভবনে যান। যদিও বক্সার মেরি কমের দাবি, তিনি বিজেপি নেতার সংস্পর্শে আসেননি। সপক্ষে সাফাই দিয়ে তিনি বলেন, “জর্ডন থেকে ফেরার পর আমি বাড়িতেই ছিলাম। শুধু রাষ্ট্রপতি ভবনেই গিয়েছিলাম। কিন্তু দুষ্মন্ত সিংয়ের সঙ্গে দেখা করিনি। করমর্দনও করিনি। জর্ডন থেকে ফেরার পর কোয়ারেন্টাইনে থাকা হয়ে গিয়েছে। তা সত্ত্বেও আগামী ৩-৪ দিন বাড়িতেই থাকব।”

যদিও বক্সিং কোচ জানাচ্ছেন, জর্ডন থেকে ফেরা সব বক্সারই ১৪ দিনের অত্যাবশ্যক কোয়ারেন্টাইনে থাকছেন। কিন্তু মেরি কম কীভাবে পাঁচদিন পরই সোজা রাষ্ট্রপতি ভবন পৌঁছে গেলেন, ভেবে পাচ্ছেন না অনেকেই। নেটদুনিয়ায় ইতিমধ্যেই এ নিয়ে সমালোচনাও শুরু হয়েছে।

[আরও পড়ুন: মোদির ‘জনতা কারফিউ’র প্রশংসায় তারকারা, সকলকে বাড়িতে থাকার অনুরোধ জানালেন কোহলি]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement