BREAKING NEWS

২১ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৭  শুক্রবার ৫ জুন ২০২০ 

Advertisement

দিল্লি সরকারের পাশে SAI, জওহরলাল নেহরু স্টেডিয়াম বদলে যাচ্ছে কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে

Published by: Sulaya Singha |    Posted: March 31, 2020 2:37 pm|    Updated: March 31, 2020 2:37 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: যতদিন যাচ্ছে, গোটা দেশে ততই চিন্তার ভাঁজ আরও গভীর হচ্ছে। লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা। অনেকেই লকডাউনের নিয়ম ভাঙায় কোনওভাবেই রোখা সম্ভব হচ্ছে না এই মারণ ভাইরাসকে। মহারাষ্ট্র, কর্ণাটক, তেলেঙ্গানার মতো রাজধানী দিল্লির অবস্থাও বেশ শোচনীয়। এমন পরিস্থিতিতে কেজরিওয়াল সরকারের পাশে দাঁড়াল স্পোর্টস অথরিটি অফ ইন্ডিয়া (SAI)। COVID-19 মোকাবিলায় কোয়ারেন্টাইন সেন্টার গড়ে তোলার জন্য দিল্লি সরকারকে জওহরলাল নেহরু স্টেডিয়াম ব্যবহার করতে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিল তারা।

সাইয়ের তরফে বলা হয়েছে, “নেহরু স্টেডিয়ামটি করোনা মোকাবিলায় ব্যবহার করতে দেওয়ার অনুরোধ জানিয়েছিল সরকার। আমরা আগেই আমাদের সোনপত সেন্টারটি তাদের ব্যবহারের জন্য দিয়েছি। পাটিয়ালার সাই প্রশিক্ষণ সেন্টারটিও দেওয়া হয়েছে। সেখানে ১২০ শয্যা বিশিষ্ট কোয়ারেন্টাইন সেন্টার হয়েছে। অ্যাথলিটরা যেখানে থাকেন, এই প্রশিক্ষণ সেন্টারটি তার বাইরে অবস্থিত।” এবার সিদ্ধান্ত নেওয়া হল রাজধানীর জওহরলাল নেহরুও স্টেডিয়ামটিও কোয়ারেন্টাইন সেন্টার বদলে যাবে। শুধু তাই নয়, ইতিমধ্যেই প্রধানমন্ত্রীর ঘোষিত পিএম-কেয়ার্স ত্রাণ তহবিলে ৭৬ লক্ষ টাকা অনুদান দিয়েছেন সাইয়ের কর্মীরা। গ্রুপ এ বি ও সি-র কর্মীরা যথাক্রমে তিন, দুই ও একদিনের বেতন করোনা মোকাবিলায় দান করেছেন।

[আরও পড়ুন: করোনার জেরে এবার অনিশ্চিত কলকাতা লিগ! চিন্তায় আইএফএ]

ইতিমধ্যে দেশে আক্রান্তের সংখ্যা ১২০০ ছাড়িয়েছে। মৃত্যু হয়েছে অন্তত ৩৫ জনের। হু হু করে ছড়িয়ে পড়ছে সংক্রমণ। যদিও কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তরফে বলা হয়েছে, ভারত এখনও করোনা ভাইরাসের স্টেজ টু-তেই রয়েছে। অর্থাৎ লোকাল ট্রান্সমিশন হচ্ছে, কমিউনিটি ট্রান্সমিশন নয়। তবে বাড়তে থাকা সংখ্যায় উদ্বেগও বাড়ছে।

এর আগে রাজ্য সরকারকে ইডেন গার্ডেন্স ব্যবহারের প্রস্তাব দিয়েছিলেন বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। বিদেশের বিভিন্ন ক্লাব নিজেদের স্টেডিয়াম দিয়েছে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার গড়ার জন্য। এবার করোনা রুখতে একই পথে হাঁটল সাইও।

[আরও পড়ুন: জল্পনার অবসান, আগামী বছর অলিম্পিকের দিনক্ষণ ঠিক করল IOC]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement