১৫ ফাল্গুন  ১৪২৬  শুক্রবার ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

দু’বছর পর কোর্টে ফিরেই বাজিমাত, কামব্যাক ম্যাচে দুরন্ত জয় সানিয়ার

Published by: Sulaya Singha |    Posted: January 14, 2020 12:56 pm|    Updated: January 14, 2020 12:56 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: চ্যাম্পিয়নরা যখনই লড়াইয়ে নামেন, ঠিক নিজের জাত চেনান। যেমনটা চেনালেন সানিয়া মির্জা। দীর্ঘ দু’বছরেরও বেশি সময় কোর্টের বাইরে ছিলেন। আর প্রত্যাবর্তনেই বাজিমাত। মা হওয়ার পর টেনিসে নিজের দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করলেন জয় দিয়েই।

জানুয়ারিতেই ফের টেনিস র‍্যাকেট হাতে তুলবেন। সে কথা আগেই জানিয়েছিলেন হায়দরাবাদি সুন্দরী। মঙ্গলবার হোর্বাট ইন্টারন্যাশনাল দিয়ে নতুন করে কোর্টের সফর শুরু করলেন তিনি। আর সেখানেই ইউক্রেনের নাদিয়া কিচেনকের সঙ্গে জুটি বেঁধে জিতে নিলেন প্রথম রাউন্ডের খেলা। এদিন ওকসানা কলশনিকোভা এবং মিয়ু কাটোর বিরুদ্ধে চলে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই। প্রথম সেটে বিপক্ষের সামনে বেশ কোণঠাসাই হয়ে পড়েছিলেন সানিয়া-নাদিয়া। কিন্তু তারপরই ঘুরে দাঁড়ান তাঁরা। সানিয়াদের পক্ষে ম্যাচের ফল ২-৬, ৭-৬(৩), [১০-৩]। আর সেই সঙ্গে তাঁরা পৌঁছে যান টুর্নামেন্টের কোয়ার্টার ফাইনালে। মা হওয়ার পর সানিয়ার জন্য টেনিসে এর চেয়ে ভাল কামব্যাক আর কী-ই বা হতে পারত।

[আরও পড়ুন: খেলার অনুমতি পেলেন না তারকা স্পিনার, আইপিএল শুরুর আগেই ধাক্কা কেকেআরের]

অবাছাই হিসেবে টুর্নামেন্ট খেলতে নেমেছিলেন সানিয়া। ওকসানা ও কাটোর বিরুদ্ধে নিজের পারফরম্যান্সে খুশি ছ’টি গ্র্যান্ড স্লামজয়ী তারকা। মায়ের খেলা দেখতে স্টেডিয়ামে হাজির ছিল খুদে ইজহান মির্জা মালিকও। নিজের ছেলের সামনে জিততে পেরে উচ্ছ্বসিত সানিয়া। ইনস্টাগ্রামে ছবি পোস্ট করে টেনিসসুন্দরী লেখেন, “আজ আমার জীবনের অত্যন্ত স্পেশাল একটা দিন। প্রথমবার আমাকে সমর্থনের জন্য হাজির আমার ছেলে। ওর সামনে জিতে দারুণ লাগছে। সকলের ভালবাসা ও সমর্থনের জন্য অনেক ধন্যবাদ।” শেষ আটে সানিয়া ও নাদিয়া খেলবেন মার্কিন জুটি ক্রিস্টিনা ম্যাকহেল এবং ভানিয়া কিংয়ের বিরুদ্ধে। যাঁরা টুর্নামেন্টের চতুর্থ বাছাই স্প্যানিশ জুটিকে হারিয়ে কোয়ার্টারে পৌঁছেছেন।

আসন্ন অস্ট্রেলিয়ান ওপেনই এখন পাখির চোখ সানিয়ার। সেই কারণে চলতি টুর্নামেন্টে ভাল পারফর্ম করতে মরিয়া তিনি। কোর্টে নামার আগে বলছিলেন, “হোর্বাটে খেলছি। এরপর অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে নামব। পরের মাসে মুম্বইয়ে একটা টুর্নামেন্ট খেলার কথা ভাবছি। দেখা যাক, আমার হাত কতটা সঙ্গ দেয়।”

[আরও পড়ুন: অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদকে হারিয়ে সুপার কাপ চ্যাম্পিয়ন রিয়াল]

An Images
An Images
An Images An Images