২২ চৈত্র  ১৪২৬  রবিবার ৫ এপ্রিল ২০২০ 

Advertisement

দিল্লির হিংসায় উদ্বিগ্ন, সকলকে শান্তি বজায় রাখার আরজি জানালেন যুবি-শেহওয়াগ

Published by: Sulaya Singha |    Posted: February 26, 2020 9:16 pm|    Updated: February 27, 2020 11:32 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: গত ৭২ ঘণ্টা পার। এখনও অশান্তির আগুনে জ্বলছে রাজধানী দিল্লি। সংঘর্ষের বলি অন্তত ২৭ জন। আর এই বাড়তে থাকা হিংসা দেখে স্তম্ভিত দিল্লির ঘরের ছেলে বীরেন্দ্র শেহওয়াগ। টুইটারে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন প্রাক্তন ভারতীয় ওপেনার। দিল্লির ঘটনায় উদ্বিগ্ন যুবরাজ সিং, ইরফান পাঠানরাও।

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের (CAA) প্রতিবাদ ধীরে ধীরে রণক্ষেত্রের আকার ধারণ করে উত্তর-পূর্ব দিল্লিতে। প্রাণ হারান দিল্লি পুলিশের হেড কনস্টেবল রতন লাল। আধা সামরিক বাহিনী নামিয়েও পরিস্থিতি সামাল দিতে হিমশিম খেতে হয়েছে কেন্দ্রকে। শেষ পর্যন্ত রাজধানীকে শান্ত করতে দায়িত্ব পেয়েছেন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল। দায়িত্ব পাওয়ার পর থেকেই শক্ত হাতে কাজ শুরু করেছেন। দফায়-দফায় হয় বৈঠক। কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশও দেন। বেলা গড়াতে দিল্লির হিংসা উপদ্রুত এলাকা ঘুরেও দেখেন তিনি। কথা বলেন স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে। বুঝিয়ে দেন, পুলিশ-প্রশাসন তাঁদের সঙ্গে আছেন। শেষে সংবাদ মাধ্যমকে তিনি বলেন, “এখানে পরিস্থিতি সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে আছে। আমার পুলিশ-কেন্দ্রীয় বাহিনীর উপর ভরসা আছে। পুলিশ তাদের কাজ করছে।” এদিন নতুন করে অশান্তি ছড়ানোর খবর না এলেও মৃতের সংখ্যা বেড়েছে। যা নিয়ে বেশ উদ্বিগ্ন খেলার দুনিয়ার তারকারা।

[আরও পড়ুন: ভারতীয় বংশোদ্ভূত যুবতীর সঙ্গে বাগদান, নেটদুনিয়ায় ছবি পোস্ট অজি তারকা ম্যাক্সওয়েলের]

দিন দুয়েক আগেই রতন লালের মৃত্যুতে শোকপ্রকাশ করে টুইট করেন প্রাক্তন ভারতীয় তারকা তথা বিজেপি সাংসদ গৌতম গম্ভীর। লেখেন, “গণতন্ত্রে প্রতিবাদের ভাষা কখনও হিংসা হতে পারে না। সকলকে শান্ত হওয়ার আরজি জানাচ্ছি। আর দিল্লি পুলিশের কাছে অনুরোধ অপরাধীদের বিরুদ্ধে যথাযোগ্য ব্যবস্থা নেওয়া হোক।” গম্ভীরের মতোই সোশ্যাল মিডিয়ায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন শেহওয়াগ, যুবি, ইরফান পাঠানরা। “দিল্লিতে যা হচ্ছে, তা সত্যিই দুর্ভাগ্যজনক। সকলকে অনুরোগ শান্ত থাকুন, শান্তি বজায় রাখুন। এই হিংসায় রাজধানীর বুকে ক্ষতচিহ্ন তৈরি হচ্ছে।” বলেন শেহওয়াগ।

[আরও পড়ুন: নয়া ইনিংস সৌম্য সরকারের, প্রেমিকা পূজার সঙ্গে সাত পাকে বাঁধা পড়বেন ক্রিকেটার]

যুবির গলাতেও একই সুর। শান্তি বজায় রাখার অনুরোধ জানিয়েছেন তিনিও। তাঁর আশা, পরিস্থিতি দ্রুত নিয়ন্ত্রণে আনতে সরকার নিশ্চিতভাবে ব্যবস্থা নেবে। পাঠান লেখেন, “কে দেশের শান্তির প্রতীক হবে? আমার মনে, হয় এই আশা না করে নিজেদেরই সেই দায়িত্ব নিতে হবে। শান্তি ফিরুক।” সকলের প্রার্থনা, রাজধানীর পরিস্থিতি দ্রুত স্বাভাবিক হোক।

Advertisement

Advertisement

Advertisement