BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

এবছরই মালদহ-মুর্শিদাবাদ থেকে সাফ হয়ে যাবে কংগ্রেস: শুভেন্দু

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: August 11, 2016 12:25 pm|    Updated: August 11, 2016 12:25 pm

An Images

স্টাফ রিপোর্টার: আবারও অধীর দুর্গে ধস৷ কংগ্রেসের হাতছাড়া হল মুর্শিদাবাদের বেলডাঙা পুরসভা৷ তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিলেন কংগ্রেসের ছয় ও আরএসপি-র এক কাউন্সিলর৷ বুধবার তৃণমূল ভবনে এই যোগদান পর্বের পর প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতিকে কড়া হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তাঁর জেলার তৃণমূলের পর্যবেক্ষক তথা পরিবহণমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী৷ তিনি বলেছেন, “অধীরের সাম্রাজ্যের পতন শুরু হয়ে গিয়েছে৷ মালদাতেও কংগ্রেস ভাঙছে৷ ৩১ ডিসেম্বর ২০১৬ পর মালদহ-মুর্শিদাবাদে কংগ্রেস বলে কোনও বস্তুই থাকবে না৷” কংগ্রেস প্রভাবিত দুই জেলায় যে বড়সড় ভাঙন ঘটতে চলেছে, তা স্পষ্ট হয়েছে৷

মনে রাখতে হবে বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূল মুর্শিদাবাদে চারটি আসন পেলেও মালদহে কোনও আসনই মেলেনি৷ কিন্তু বিপুল আসন নিয়ে ফের তৃণমূল রাজ্যে ক্ষমতায় আসার পর এই দুই জেলায় বিরোধী দলে ভাঙন ঘটতে চলেছে৷ মালদহে গাজোলের সিপিএম বিধায়ক তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন৷ অন্যদিকে মুর্শিদাবাদে ভেঙে যাচ্ছে কংগ্রেস পরিচালিত পুরসভা ও পঞ্চায়েত৷ এদিনও বেলডাঙার কংগ্রেসের জেলা পরিষদ সদস্য মনিরুল হক তৃণমূলে যোগ দেন৷ দলীয় সূত্রে খবর, সিপিএম কংগ্রেস জোটের প্রভাবেই এই ভাঙন চলছে৷ বহু জায়গাতেই দুই দলের সদস্যদের দলত্যাগ অব্যাহত৷ এই অবস্থায়, যেভাবে দুই জেলা থেকে কংগ্রেসকে কার্যত তুলে দেওয়ার হুমকি শুভেন্দু দিলেন, তাতে এই ভাঙন আরও বাড়বে বলেই মনে করা হচ্ছে৷ ১৪ আসন বিশিষ্ট বেলডাঙা পুরসভায় কংগ্রেসের ছিল ৯ জন, বিজেপির ৩ জন, আরএসপি ও সিপিএমের একজন করে কাউন্সিলর৷

এদিন তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিলেন বেলডাঙা পুরসভার পুরপ্রধান ভরতকুমার ঝাঁওর, উপপ্রধান আবু সুফিয়ান মণ্ডল-সহ ছ’জন কংগ্রেস কাউন্সিলর৷ যোগ দিয়েছেন আরএসপির আরও একজন কাউন্সিলর৷ এই সাতজন কাউন্সিলরের হাতে দলীয় পতাকা তুলে দেন মুর্শিদাবাদ জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের পর্যবেক্ষক তথা রাজ্যের পরিবহণমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী৷ ছিলেন তৃণমূল নেতা সৌমিক হোসেন ও শান্তনু সেন৷

এখন বেলডাঙা পুরসভায় বিরোধীদের ৭ জন কাউন্সিলর থাকলেও শুভেন্দু অধিকারী স্পষ্টত জানিয়ে দিলেন, “মা-মাটি-মানুষের সরকারের উন্নয়ন আর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপর আস্থা রেখে তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন কংগ্রেস ও আরএসপির কাউন্সিলর৷ এখন কংগ্রেস, বিজেপি, সিপিএমের বাকি ৭ জন কাউন্সিলর একত্রিত হলেও, তাঁদের বিরু‌দ্ধে লড়াই করার রাজনৈতিক ক্ষমতা ভরতকুমার ঝাঁওরের আছে৷” ৭ কাউন্সিলরের যোগদান আইনানুগভাবেই হয়েছে বলে জানান শুভেন্দু অধিকারী৷

এদিন আবার কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন আরও এক জেলা পরিষদ সদস্য মনিরুল হক৷ এর ফলে মুর্শিদাবাদ জেলা পরিষদে তৃণমূলের সদস্য সংখ্যা বেড়ে হল ১৯৷ এর আগে জঙ্গিপুর, জিয়াগঞ্জ-আজিমগঞ্জ পুরসভা দখল করেছে তৃণমূল৷ শুভেন্দু অধিকারী বলেছেন, “২১ জুলাই থেকে তৃণমূলে যোগদান চলছে৷ এরপর জেলা পরিষদ, পুরসভাতেও ক্ষমতায় আসবে তৃণমূল কংগ্রেস৷” যদিও প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরি অভিযোগ করেছেন, “টাকা, চাকরির প্রলোভন এবং ভয় দেখিয়ে তৃণমূলে যোগদান করানো হচ্ছে৷ যাতে শামিল আছেন ডিএম, এসপিরা৷” এই অভিযোগকে উড়িয়ে দিয়ে শুভেন্দুর জবাব, “ওটা অধীর চৌধুরির হতাশার বহিঃপ্রকাশ৷ কারণ তাঁর দুর্গ তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়ছে৷”

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement