BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘স্করপেন’ মডেলের সাবমেরিনের তথ্য ফাঁস, তদন্তের নির্দেশ পারিক্করের

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: August 24, 2016 4:10 pm|    Updated: August 24, 2016 4:10 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ফরাসি অস্ত্র নির্মাণ সংস্থা ডিসিএনএস-এর প্রযুক্তিগত সাহায্যে তৈরি ‘স্করপেন’ মডেলের সাবমেরিনের তথ্য ফাঁস হওয়ার ঘটনায় উচ্চ পর্যায়ের তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রক৷ বুধবার প্রতিরক্ষা মন্ত্রক সূত্রে এ খবর জানানো হয়েছে৷

সম্প্রতি অস্ট্রেলিয়ার একটি সংবাদপত্রের অনলাইন সংস্করণে ওই সাবমেরিনগুলির সামরিক দক্ষতা নিয়ে চূড়ান্ত গোপনীয় প্রায় ২২ হাজার পাতার নথি ফাঁস হয়ে গিয়েছে৷ মুম্বইতে সরকারি বন্দরে ভারতীয় নৌসেনার জন্য ওই সাবমেরিনগুলি তৈরি হচ্ছে৷ প্রতিরক্ষামন্ত্রী মনোহর পারিক্কর আজ সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, সম্ভবত হ্যাক করে নথিগুলি ফাঁস করে দেওয়া হয়েছে৷ কী ভাবে এই ঘটনা ঘটল তা জানতে উচ্চ পর্যায়ের তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে৷ চলতি বছরের শেষের দিকেই এই মডেলের একটি সাবমেরিন নৌবাহিনীর হাতে তুলে দেওয়ার কথা প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের৷ কিন্তু নথি ফাঁসের ঘটনার পর সেই প্রক্রিয়া বিলম্বিতও হতে পারে বলে ইঙ্গিত মন্ত্রকের কর্তাদের৷

এই ঘটনায় অস্ট্রেলিয়ায় ডিসিএনএস-এর সাবমেরিন তৈরির প্রকল্পও ধাক্কা খেতে পারে বলে আশঙ্কা৷ ফরাসি সংস্থাটি প্রায় ৩৮.০৬ বিলিয়ন ডলারের বিনিময়ে নেক্সট জেনারেশন সাবমেরিন তৈরি করছে সেখানে৷ ফাঁস হয়ে যাওয়া নথিতে অবশ্য সেই সাবমেরিনগুলির কোনও উল্লেখ নেই৷ ডিসিএনএস-এর মুখপাত্র জানিয়েছেন, ভারতীয় স্করপেন প্রোগ্রাম-এর কোনও ক্ষতি যাতে না হয় তার জন্য সবরকম পদক্ষেপ করবে ফরাসি প্রতিরক্ষা মন্ত্রক৷ যে নথিগুলি অনলাইনে ফাঁস হয়ে গিয়েছে সেগুলির সত্যতা যাচাই করে দেখা হবে৷

সংবাদসংস্থা রয়টার্স এক আন্তর্জাতিক অস্ত্র প্রস্তুতকারক সংস্থার কর্তাকে উদ্ধৃত করে জানিয়েছে, ফাঁস হয়ে যাওয়া নথিগুলি ভারত, মালয়েশিয়া ও চিলির মধ্যে স্ট্র্যাটেজিক সম্পর্ককে প্রভাবিত করতে পারে৷ কারণ, তারাও ওই একই সাবমেরিন পরিচালনা করে৷ ওই কর্তার মতে, ২২ হাজার ৪০০ পাতার নথি যে কোনও সাবমেরিনের প্রতিটি ইঞ্চির তথ্য প্রকাশ্যে নিয়ে আসার জন্য যথেষ্ট৷ অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী ম্যালকম টার্নবুল নির্দেশ দিয়েছেন, সাবমেরিন তৈরির প্রকল্পের নিরাপত্তা ব্যবস্থা আরও জোরদার করতে৷

অন্যদিকে, ভারতীয় নৌবাহিনী সূত্রে খবর, এই গুরুত্বপূর্ণ নথিগুলি প্রকাশ্যে এসেছে সম্ভবত বিদেশ থেকে পরিচালিত হ্যাকিংয়ের মাধ্যমে৷ ডিজিটাল যুগে সাইবার নিরাপত্তা ব্যবস্থা আঁটসাঁট করাটা যে কতটা জরুরি, এই ঘটনার পর সম্ভবত সেটা বুঝতে পারবে ভারত, মন্তব্য করেছেন এক প্রাক্তন সেনাকর্তা৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement