৩ বৈশাখ  ১৪২৮  শনিবার ১৭ এপ্রিল ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

পাকিস্তানে ফের আক্রান্ত হিন্দুরা, খুন একই পরিবারের ৫ সদস্য

Published by: Abhisek Rakshit |    Posted: March 6, 2021 7:12 pm|    Updated: March 6, 2021 7:12 pm

An Images

ছবি: প্রতীকী

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মর্মান্তিক ঘটনা ঘটল পাকিস্তানে (Pakistan)। ফের সেদেশে আক্রান্ত সংখ্যালঘু হিন্দুরা। এক পরিবারের পাঁচজন সদস্যকে নৃশংসভাবে খুন করল অজ্ঞাতপরিচয় আততায়ীরা।

জানা গিয়েছে, শুক্রবার রহিম ইয়ার খান শহর থেকে ১৫ কিলোমিটার দূরে আবু ধাবি কলোনীর ১৩৫-পি চকে ঘটনাটি। রাম চাঁদ নামে ৩৬ বছর বয়সি এক ব্যক্তি এবং তাঁর পরিবারের পাঁচজনকে খুন করেছে অজ্ঞাত পরিচয় দুষ্কৃতীরা। কোনও ধারাল অস্ত্র বা ছুরি দিয়ে প্রত্যেককে নৃশংসভাবে মারা হয়েছে। এই প্রসঙ্গে সমাজকর্মী বীরবল দাস এক আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমকে জানান, রাম চাঁদ দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় দরজির কাজ করতেন। এলাকায় সবার সঙ্গেই তাঁর ভাল সম্পর্ক ছিল। কোনওপ্রকার বিবাদেও কখনও জড়াননি রাম চাঁদ। আর সেই ব্যক্তি এবং তাঁর পরিবারকেই কিনা এরকম নৃশংসভাবে খুন! যা জানতে পেরে অনেকেই আবার অবাকও হয়েছেন।

[আরও পড়ুন: নয়া নজির প্রাণীজগতে, করোনা টিকা দেওয়া হল ওরাংওটাংদের]

উল্লেখ্য, কয়েকদিন আগেই পাক হিন্দুদের নিপীড়নের বিরুদ্ধে সরব হয়ে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনকে একটি চিঠি দেয় ‘হিন্দু ফোরাম অফ ব্রিটেন’। এই ফোরামের ছত্রছায়ায় রয়েছে বেশ কয়েকটি ব্রিটিশ হিন্দু সংগঠন। চিঠিতে বলা হয়েছে, “পাকিস্তানের সংখ্যালঘু হিন্দু নাগরিকরা খুব সমস্যার মধ্যে রয়েছেন। নানা অত্যাচার ও অবিচারের শিকার হচ্ছেন তাঁরা। ক্রমে পরিস্থিতি আরও খারাপের দিকে যাচ্ছে। এই অবস্থা থেকে হিন্দুদের রক্ষা করতে দ্রুত ও কার্যকরী ব্যবস্থার দাবি জানাচ্ছি।” জনসনের কাছে হিন্দু সংগঠনগুলির আবেদন, অবিলম্বে একটি উচ্চপর্যায়ের সরকারি কমিটি তৈরি করা হোক। সেই কমিটি পাকিস্তানে সংখ্যালঘুদের উপর অত্যাচার নিয়ে তদন্ত করবে।

রাষ্ট্রসংঘের নেতৃত্বে গণতান্ত্রিক দেশগুলিকে নিয়ে একইভাবে তদন্তের দাবি তুলেছেন সংগঠনগুলির কর্তারা। তাঁদের বক্তব্য, যেভাবেই হোক গণহত্যা, অত্যাচার-অবিচার থেকে সংখ্যালঘুদের রক্ষা করতে হবে। সংগঠনের সদস্যরা অভিযোগের আঙুল তুলেছেন পাকিস্তানের কিছু প্রভাবশালী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে। নির্দিষ্ট করে কোনও নাম উল্লেখ না করলেও বরিস জনসনকে লেখা চিঠিতে তাঁরা জানিয়েছেন, জনমানসে হিন্দু বিদ্বেষ তৈরি করতে পাকিস্তানের কিছু প্রভাবশালী মানুষ সক্রিয় ভূমিকা নিচ্ছে। আর তার মধ্যেই এই ঘটনা আরও একবার প্রশ্ন তুলে দিল সেদেশে বসবাসকারী সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তা নিয়েও।

[আরও পড়ুন: আঁধারে ডুবল মায়ানমার, ফের পুলিশের গুলিতে নিহত বিক্ষোভকারী]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement