BREAKING NEWS

৮ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  বুধবার ২৫ নভেম্বর ২০২০ 

Advertisement

প্রয়াত দেশের দীর্ঘদিনের প্রধানমন্ত্রী বিন সলমন আল খলিফা, শোকের ছায়া বাহরাইনে

Published by: Abhisek Rakshit |    Posted: November 11, 2020 3:59 pm|    Updated: November 11, 2020 3:59 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:‌ শোকের ছায়া বাহরাইনে (Bahrain)। প্রয়াত হলেন সেদেশের প্রধানমন্ত্রী (Prime Minister) প্রিন্স শেখ খলিফা বিন সলমন আল খলিফা (Sheikh Khalifa bin Salman Al Khalifa)। ৮৪ বছর বয়সে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করলেন তিনি। বুধবার টুইট করে এই খবর জানায় বাহরিনের রয়্যাল প্যালেস। প্রিন্স খলিফা বিন সলমন আল খলিফা গোটা বিশ্বে সবচেয়ে বেশিদিন প্রধানমন্ত্রীর চেয়ারে বসার রেকর্ড গড়েছেন।

জানা গিয়েছে, সম্প্রতি আমেরিকায় (United States) ছিলেন তিনি। শারীরিক অসুস্থতার কারণে ভরতি ছিলেন মায়ো ক্লিনিক নামে সেখানকারই একটি হাসপাতালে। সেখানেই নাকি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন শেখ খলিফা বিন সলমন। যদিও তাঁর মৃত্যু নিয়ে বিস্তারিত কোনও তথ্যই জানানো হয়নি।

তবে প্রধানমন্ত্রীর মৃত্যুতে কার্যত বাকরুদ্ধ গোটা দেশ। সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেকেই সমবেদনা জানিয়েছেন। বাহরাইনের রাজা কিং হামাদ বিন ইসা আল খলিফা (King Sheikh Hamad bin Isa Al Khalifa), বাহরিনের র‌য়্যাল কোর্ট প্রত্যেকেই প্রধানমন্ত্রীর মৃত্যুতে শোকজ্ঞাপন করেছেন। দেশের পতাকাও অর্ধনমিত রাখা হয়েছে। ঘোষণা করা হয়েছে রাষ্ট্রীয় শোকেরও।

 

[আরও পড়ুন: প্রশ্নের মুখে পাকিস্তানি পাইলটদের যোগ্যতা, ১৮৮ দেশে নিষিদ্ধ হতে পারে পাক বিমান]

প্রিন্স খলিফা বিন সলমন আল খলিফার মৃত্যুতে বাহরিনে কার্যত একটি যুগের পরিসমাপ্তি ঘটল। ১৯৩৫ সালের ২৪ নভেম্বর বাহরাইনের রাজ পরিবারের জন্ম নেওয়া প্রিন্স খলিফা বিন সলমন আল খলিফা ১৯৭০ সাল থেকে বাহরাইনের প্রধানমন্ত্রী। অর্থাৎ ১৫ আগস্ট ১৯৭১ সালে বাহরাইন স্বাধীন হওয়ার আগে থেকেই দায়িত্ব পান তিনি। তারপর থেকে এখনও পর্যন্ত তিনিই সেদেশের প্রধানমন্ত্রী ছিলেন। বিশ্বের আর কোনও দেশের প্রধানমন্ত্রীর কাছে এতদিন চেয়ারে বসার রেকর্ড নেই। যদিও ২০০২ সালে অনেকটাই ক্ষমতা তাঁর হাত থেকে কেড়ে নেন কিং হামাদ বিন ইসা আল খলিফা। এমনকী ২০১১ সালে দুর্নীতির অপরাধে নিজের পদ হারাতেও বসেছিলেন প্রয়াত প্রধানমন্ত্রী। যদিও সে যাত্রায় নিজের গদি বাঁচাতে সক্ষম হন। 

[আরও পড়ুন: জনমতের পরোয়া নেই! হোয়াইট হাউস ছাড়বেন না ট্রাম্প, জল্পনা উসকে ইঙ্গিত পম্পেওর]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement