৯ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৬  শুক্রবার ২৪ মে ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo নির্বাচন ‘১৯ দেশের রায় LIVE রাজ্যের ফলাফল LIVE বিধানসভা নির্বাচনের রায় মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার
নির্বাচন ‘১৯

৯ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৬  শুক্রবার ২৪ মে ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:  ফের অবৈধ যাত্রীদের নিয়ে যাওয়ার পথে ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবি৷ প্রাণ গেল অন্তত ৬০ জনের, যাঁদের মধ্যে ৩৮ জনই বাংলাদেশের বাসিন্দা৷ লিবিয়া থেকে অবৈধভাবে তাঁরা ইটালি যাচ্ছিলেন বলে জানা গিয়েছে৷

আন্তর্জাতিক সংস্থা রেড ক্রিসেন্ট সূত্রে জানা গিয়েছে, যুদ্ধবিধ্বস্ত লিবিয়া থেকে প্রাণের দায়ে ইতালি পালিয়ে যাচ্ছিলেন ৭৫ জনের একটি দল৷ তবে তাঁদের কাছে ইতালি যাওয়ার বৈধ কোনও নথি ছিল না৷ যাত্রী হিসেবে ছিলেন ৫১ জন বাংলাদেশি, তিন জন মিশরের বাসিন্দা, মরক্কো ও চাদের মোট ৬জন৷ ছিল বেশ কয়েকজন শিশুও৷ সলিলসমাধিতে বাংলাদেশি কয়েকটি শিশুরও মৃত্যু হয়েছে বলে খবর৷

[আরও পড়ুন: শ্রীঘর থেকে ফিরে জাতীয় পার্টির হয়ে উপনির্বাচনে লড়ছেন হিরো আলম]

জানা গিয়েছে, গত বৃহস্পতিবার রাতের অন্ধকারে লিবিয়ার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের জুয়ারা উপকূল থেকে একটি বড় নৌকায় করে ভূমধ্যসাগর দিয়ে ইতালির উদ্দেশে পাড়ি দেয় একটি বড় দল৷ গভীর রাতে তাঁদের মধ্যে ৭৫ জনকে তিউনিসিয়া জলসীমার কাছে একটি ছোট নৌকায় নামিয়ে দেওয়া হয়৷ সেই নৌকাটিতে গাদাগাদি করে ওঠার মাত্র ১০ মিনিটের মধ্যেই তার সলিলসমাধি ঘটে৷ তিউনিসিয়ায় রেড ক্রিসেন্টের কর্মকর্তা মোনজি স্লিম জানিয়েছেন, বাতাসভরতি একটি নৌকায় বাড়তি যাত্রী তুলে দেওয়ায় এই সমস্যা৷ নৌকাডুবির সংকেত পেয়ে উদ্ধারে নামে তিউনিসিয়ার উপকূলরক্ষা বাহিনী৷ ১৫ জনকে উদ্ধার করা হয়৷ উদ্ধার হওয়া যাত্রীদের কথায়, প্রায় আট ঘণ্টা তাঁরা ঠাণ্ডা জলে ভেসেছিলেন৷

[আরও পড়ুন: হদিশ মিলল ২৬০০ বছরের পুরনো গাছের, হতবাক বিজ্ঞানীরা]

মধ্যপ্রাচ্য থেকে ভূমধ্যসাগর পেরিয়ে যেতে পারলেই ইউরোপের ভূখণ্ডে পৌঁছে যাওয়া যায়৷ সেটাই উদ্দেশ্য থাকে লিবিয়া, সিরিয়া থেকে যাওয়া অভিবাসীদের৷ সেটাই সহজ রাস্তা৷ আর তা করতে গিয়ে এমন দুর্ঘটনা প্রায়শয়ই ঘটেছে৷ এই ঘটনাও আরেকটি সংযোজনমাত্র৷ সম্প্রতি ইতালি-সহ ইউরোপের বেশ কয়েকটি দেশ শরণার্থী প্রবেশ বন্ধ করে দিয়েছে৷ কিন্তু তা সত্বেও যুদ্ধ থেকে বাঁচতে বাসিন্দাদের ইউরোপের শরণাপন্ন হওয়া থেকে আটকানো যাচ্ছে না৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং