৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘অক্সফোর্ডের করোনা ভ্যাকসিন নিরাপদ’, দাবি করে ট্রায়াল চালুর অনুমতি দিল MHRA

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: September 12, 2020 7:59 pm|    Updated: September 12, 2020 8:09 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ফের করোনা প্রতিষেধক নিয়ে উলটো সুর। এই মুহূর্তে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় ও ওষুধ প্রস্তুতকারী সংস্থা অ্যাস্ট্রাজেনেকার (AstraZeneca) তৈরি করোনার ভ্যাকসিন নিরাপদ বলে ফের মানবদেহে পরীক্ষামূলক প্রয়োগের কাজ চালিয়ে যাওয়ার অনুমতি দিল মেডিসিনস হেলথ রেগুলেটরি অথরিটি (MHRA)। শনিবারই সংস্থার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে ওই ওষুধ পরীক্ষার পর জানানো হয়েছে, তা সম্পূর্ণ নিরাপদ। পরীক্ষা চলতেই পারে। MHRA’র এই অনুমোদনে স্বস্তি ফিরেছে গবেষক মহলে।

দিন দুই আগে অক্সফোর্ডের এই ভ্যাকসিনের চূড়ান্ত পর্বের পরীক্ষামূলক প্রয়োগ চলাকালীন এক স্বেচ্ছাসেবক অসুস্থ হয়ে পড়ায় ব্রিটেনে বন্ধ করে দেওয়া হয় ট্রায়াল। যেহেতু ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটে (Serum Institute of India) এই প্রতিষেধকটি তৈরির কাজ চলছে, তাই সেখানেও স্থগিত করা হয় কাজ। পাশাপাশি, পৃথিবীর অন্য যে কটি দেশ অক্সফোর্ডের ফর্মুলা অনুযায়ী ভ্যাকসিন তৈরির তোড়জোড় করছিল, তারাও কাজ বন্ধ করে দেয়। ফের তৈরি হয় উদ্বেগ। তাহলে কি করোনা (Coronavirus) প্রতিষেধক পাওয়ার কাজ ফের পিছিয়ে গেল? নতুন করে ফের মাথাচাড়া দেয় ভাবনা।

[আরও পড়ুন: করোনা মোকাবিলা কীভাবে করতে হয় পাকিস্তানকে দেখে শিখুন, পরামর্শ WHO’র]

তবে শনিবার চিন্তার অবসান ঘটিয়ে MHRA সাফ জানাল, অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার তৈরি প্রতিষেধকটি একেবারে সুরক্ষিত। ট্রায়াল ফের চালু করা হোক। অ্যাস্ট্রাজেনেকার তরফে জানানো হয়েছে, ”বিশ্বজুড়ে সর্বত্র বন্ধ হয়ে গিয়েছিল ট্রায়াল। ব্রিটিশ কমিটি বিষয়টি তদন্তের জন্য MHRAতে পাঠিয়েছিল। MHRA তদন্তের পর ফের ট্রায়াল চালুতে অনুমতি দিয়েছে।” আরও জানা গিয়েছে,  এই কাজের সঙ্গে যুক্ত সমস্ত স্বেচ্ছাসেবক এবং কর্মীদের নতুন খবর জানানো হয়েছে। ফের ট্রায়ালের জন্য প্রস্তুত হতে বলা হয়েছে তাঁদের।  এ বিষয়ে এর চেয়ে বেশি তথ্য প্রকাশ্যে আনতে নারাজ অ্যাস্ট্রাজেনেকা। এবার কি সেরাম ইনস্টিটিউটও তাদের কাজ শুরু করবে? এখনও সংস্থার তরফে এ বিষয়ে কিছু জানা যায়নি।

[আরও পড়ুন: আফগানিস্তানে ফিরবে শান্তি! কাতারে সরকারি প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক শুরু তালিবানের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement