BREAKING NEWS

১৫ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  মঙ্গলবার ১ ডিসেম্বর ২০২০ 

Advertisement

বারাণসীর ঘাট থেকে ১০০ বছর আগে চুরি যাওয়া অন্নপূর্ণার মূর্তি ফেরাচ্ছে কানাডা

Published by: Abhisek Rakshit |    Posted: November 21, 2020 9:56 pm|    Updated: November 21, 2020 9:56 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:‌ ১০০ বছর আগে ভারতের বারাণসীর ঘাট থেকে চুরি গিয়েছিল দেবী অন্নপূর্ণার (devi annapurna) একটি পাথরের মূর্তি। অবশেষে এতদিন পর সুদূর কানাডার একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে সেটির খোঁজ মিলল। শীঘ্রই তা চলে আসবে ভারতেও।

মূর্তিটির খোঁজ মিলেছে কানাডার (Canada) রেজিনা (Regina) ইউনিভার্সিটির ম্যাকেঞ্জি আর্ট গ্যালারিতে (MacKenzie Art Gallery) স্থান পেয়েছিল। যাঁর নামে এই গ্যালারি, সেই নর্ম্যান ম্যাকেঞ্জির সংগ্রহে ছিল সেই মূর্তি। সম্প্রতি আর্ট গ্যালারিতে মূর্তিটি নজরে আসে শিল্পী দিব্যা মেহরার (Divya Mehra)। এরপরই তিনি মূর্তিটি নিয়ে পড়াশোনা করেন। জানতে পারেন, ১৯১৩ সালে ম্যাকেঞ্জি ভারত সফরের সময় মূর্তিটিকে বারাণসীর (Varanasi) ঘাটে দেখেন। এরপরই এক ব্যক্তি তাকে মূর্তিটি চুরি করে এনে দেন। এরপরই দিব্যা মেহরাকর্তৃপক্ষকে বিষয়টি সম্পর্কে অবগত করেন। শেষপর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের তরফ থেকে বিবৃতি প্রকাশ করে জানানো হয়, মূর্তিটি ভারতের। শীঘ্রই সেটি ভারতে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হবে।

[আরও পড়ুন: রাজনীতিবিদদের নিশানা করতে হাতিয়ার ‘করোনা চিঠি’, সতর্কবার্তা ইন্টারপোলের]

এরপর গত ১৯ নভেম্বর অষ্টাদশ শতাব্দীরও আগের এই মূর্তিটি কানাডায় নিযুক্ত ভারতের হাইকমিশনার অজয় বিসারিয়ার হাতে তুলে দেন রেজিনা বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্তর্বর্তী প্রেসিডেন্ট এবং উপাচার্য টমাস চেস। এই ভারচুয়াল ইভেন্টে উপস্থিত ছিলেন ম্যাকেঞ্জি আর্ট গ্যালারি, গ্লোবাল অ্যাফেয়ার্স কানাডা এবং কানাডা বর্ডার সার্ভিস এজেন্সির আধিকারিকরা। এই প্রসঙ্গে বিসারিয়া জানান, ‘‌‘‌দেবী অন্নপূর্ণার মূর্তি ফের দেশে ফিরে যাচ্ছে, এটা আমাদের জন্য খুবই আনন্দের খবর। এজন্য আমরা রেজিনা বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃতজ্ঞ। তাদের সহযোগিতায় ভারতীয় সংস্কৃতির প্রতীক পুনরায় দেশে ফিরছে।’’‌‌ আপাতত মূর্তিটিকে দেশে ফেরানোর প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

প্রসঙ্গত, পুরাণ অনুযায়ী বারাণসীর ঘাটেই ভগবান শিবকে অন্নদান করেছিলেন। আর এজন্যই এই মূর্তিটির হাতেও ‘‌ক্ষীরের বাটি’‌ রাখা রয়েছে। তবে মহামূল্যবান এই মূর্তিটির দাম জানা যায়নি।

[আরও পড়ুন: চিনকে চাপে রাখার চেষ্টা! হোয়াইট হাউসে তিব্বতের নির্বাসিত সরকারের প্রধান]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement