BREAKING NEWS

৮ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৪ নভেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ডোকলামের কাছে ভুটানের জমি দখল করে গ্রাম বানিয়েছে চিন!

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: November 20, 2020 5:42 pm|    Updated: November 20, 2020 7:00 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রাজস্থানের জয়সলমীরে ভারতীয় সেনা জওয়ানদের সঙ্গে দিওয়ালি উদযাপন করতে গিয়ে চিনের আগ্রাসী মনোভাবের কড়া সমালোচনা করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ড্রাগনের বিস্তারবাদ নীতির তীব্র নিন্দা করে অবিলম্বে মনোভাব বদলের পরামর্শ দিয়েছিলেন শি জিনপিংয়ের প্রশাসনকে। কিন্তু, তাতে যে চিন কোনও গুরুত্ব দেয়নি তার প্রমাণ পাওয়া গেল। জানা গেল, নেপালের পর এবার ভুটানের দিকেও থাবা বাড়িয়েছে ড্রাগন। ডোকলাম থেকে মাত্র ৯ কিলোমিটার দূরে ভুটান সীমান্তের ২ কিলোমিটারের মধ্যে একটি গ্রাম বানিয়েছে তারা। যদিও বিষয়টি নিয়ে শোরগোল হতেই সম্পূর্ণ বিপরীত সুর শোনা গিয়েছে ভারতে নিযুক্ত ভুটানের রাষ্ট্রদূতের মুখে। জমি দখলের কথা ভিত্তিহীন বলে দাবি করেছেন তিনি।

বৃহস্পতিবার ঘটনাটির সূত্রপাত হয় চিনের একজন সাংবাদিক শেন শিওয়েইয়ের একটি টুইটকে ঘিরে। তাতে তিনি উল্লেখ করেছিলেন, ইয়াডোং থেকে ৩৫ কিলোমিটার দক্ষিণে অবস্থিত ভুটানের প্যাঙ্গদা (Pangda) গ্রামের ২ কিলোমিটার এলাকা দখল করে নতুন একটি গ্রাম বানিয়েছে চিন (China)। যদিও পরে বিষয়টি নিয়ে বিতর্ক তৈরি হওয়ায় ওই টুইটটি ডিলিট করে দেন তিনি। কিন্তু ততক্ষণে খবরটি চারিদিকে ছড়িয়ে পড়ে। পরিস্থিতির উপর কড়া নজর রাখতে শুরু করে নয়াদিল্লি।

[আরও পড়ুন: তাইগ্রে বিদ্রোহীদের মদত দিচ্ছেন WHO প্রধান, বিস্ফোরক অভিযোগ ইথিওপিয়ার]

এই অবস্থায় দাঁড়িয়ে চিনের জমি দখলের কথা সম্পূর্ণ অস্বীকার করেন ভারতে নিযুক্ত ভুটান (Bhutan) -এর রাষ্ট্রদূত। এপ্রসঙ্গে তিনি জানান, সোশ্যাল মিডিয়াতে ভুটানের সীমান্তের মধ্যে চিন গ্রাম তৈরি করেছে বলে একটি খবর ছড়িয়েছে। ঘটনাটি সত্য নয়। এই ধরনের কোনও ঘটনাই ঘটেনি। ভুটানের সীমানার মধ্যে চিনের কোনও গ্রাম নেই। একই বার্তা দেওয়া হয়েছে থিম্পুর তরফেও। যদিও উপগ্রহ চিত্র দেখে আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ভুটানের এই দাবি পুরো মিথ্যে। কারণ উপগ্রহ চিত্র থেকে এটা পরিষ্কার বোঝা যাচ্ছে যে ভুটানের সীমানার মধ্যেই পরিকাঠামো তৈরি করেছে চিন।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ২০১৭ সালে ডোকলামে (Doklam) রাস্তা তৈরি ঘটনা নিয়ে বিবাদ শুরু হয়েছিল ভারত ও চিনের। ডোকলাম মালভূমি ভুটানের অন্তর্গত হলেও একে নিজেদের বলে দাবি করে ড্রাগন। তবে ভারতের কড়া মনোভাবের কারণে শেষ পর্যন্ত নিজেদের অবস্থান থেকে পিছিয়ে আসতে হয়েছিল চিনকে। কিন্তু, জুন মাসে লাদাখে ভারতীয় জওয়ানদের সঙ্গে সংঘর্ষ হওয়ার পরেই সিকিম সীমান্তেও তৎপরতা বাড়িয়েছে লালফৌজ। নেপাল সীমান্তেও প্রচুর সেনা মোতায়েন করেছে। এবার ভুটানের জায়গা দখল করে আস্ত একটি গ্রাম তৈরির করার অভিযোগ উঠল তাদের নামে।

[আরও পড়ুন: বিপাকে ইমরান সরকার, পাক যুদ্ধবিমান মিরাজের আধুনিকীকরণে স্পষ্ট ‘‌না’ ফ্রান্সের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement