BREAKING NEWS

১০ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২৬ নভেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‌বিপাকে ইমরান সরকার, পাক যুদ্ধবিমান মিরাজের আধুনিকীকরণে স্পষ্ট ‘‌না’ ফ্রান্সের

Published by: Abhisek Rakshit |    Posted: November 20, 2020 3:35 pm|    Updated: November 20, 2020 3:37 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিপাকে পাকিস্তান (Pakistan)। ইসলাম ধর্মের অপমান করেছেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ, এই অভিযোগে ফ্রান্সের বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে মুখ খুলেছিল ইমরান খানের (Imran Khan) সরকার। এমনকী পাকিস্তানের রাস্তায় ফরাসি জিনিস বয়কটের ডাক দিয়ে একাধিক মিছিলও হয়েছে। এই পরিস্থিতিতে পাকিস্তানকে পালটা চাপে ফেলে দিল ফ্রান্স (France)। একটি সর্বভারতীয় প্রতিবেদনের দাবি, ইসলামাবাদকে স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, ফ্রান্সের থেকে কেনা মিরাজ (Mirage) যুদ্ধবিমান, এয়ার ডিফেন্স সিস্টেম এবং অগস্টা ৯০বি ক্লাস (Agosta 90B class) সাবমেরিন আধুনিকীকরণ বা আরও উন্নত করতে আর কোনওরকম সাহায্য করা হবে না। ফলে ঘোর সংকটে পাকিস্তান।

গত কয়েক দশকে ফ্রান্সের দাসাউ অ্যাভিয়েশনের কাছ থেকে একাধিক মিরাজ যুদ্ধবিমান কিনেছে পাকিস্তান। সব মিলিয়ে প্রায় ১৫০টি মিরাজ। এর মধ্যে কিছু মিরাজ ৩ এবং বাকিগুলো মিরাজ ৫ যুদ্ধবিমান। যদিও এর অর্ধেকই এখন ব্যবহারযোগ্য। তা সত্ত্বেও বিমানগুলোকে আর উন্নত করতে সাহায্য করবে না ফ্রান্স। আর সেটাই ইসলামাবাদকে স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। এছাড়া ফ্রান্স–ইটালি সহযোগে তৈরি যে এয়ার ডিফেন্স সিস্টেম পাকিস্তান ব্যবহার করে, সেটির আপগ্রেডেও স্পষ্ট ‘‌না’‌ করে দিয়েছে ফ্রান্স। এরপর সাবমেরিনের ক্ষেত্রেও একই সিদ্ধান্ত নেয় ফরাসি সরকার। ফলে ঘোরতর সংকটেই ইমরান খানের প্রশাসন। কারণ বন্ধু চিন (China) পাশে থাকলেও সেক্ষেত্রে যুদ্ধের সরঞ্জাম অনেকটাই কমে যাবে তাঁদের।

[আরও পড়ুন:‌ ‌‘ইতিহাসের অন্যতম দায়িত্বজ্ঞানহীন প্রেসিডেন্ট’, নাছোড়বান্দা ট্রাম্পকে বেনজির কটাক্ষ বিডেনের]

এখানেই কিন্তু শেষ নয়, সম্প্রতি রাফালে (Rafale) যুদ্ধবিমান ভারতের (India) হাতে তুলে দিয়েছে ফ্রান্স। অন্যদিকে, কাতারের কাছেও রয়েছে একই যুদ্ধবিমান। কোনওভাবে যেন ওই যুদ্ধবিমানের ধারেকাছেও না ঘেঁষতে পারে পাকিস্তানের কোনও টেকনিশিয়ান, সে ব্যাপারেও কাতারকে (Quatar) সাবধান করে দিয়েছে ফ্রান্স। কারণ সেক্ষেত্রে ভারতের হাতে থাকা অত্যাধুনিক যুদ্ধবিমান রাফালের খুঁটিনাটি তথ্য চলে যেতে পারে ইসলামাবাদের হাতে। সেকারণেই এই নিষেধ। এই প্রসঙ্গে গত অক্টোবরে ভারতের বিদেশসচিব শ্রিংলাকে আশ্বস্তও করেছে ফ্রান্স। এখন দেখার, ঘর সামলাতে শেষপর্যন্ত ফ্রান্সের সঙ্গে সমঝোতায় হাঁটে কি না পাকিস্তান।

[আরও পড়ুন:‌ ভারতের ম্যাপ থেকে বাদ কাশ্মীর! বিদেশমন্ত্রকের চাপে বিতর্কিত নোট প্রত্যাহার সৌদির‌]

 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement