২৪ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৭  রবিবার ৭ জুন ২০২০ 

Advertisement

‘মেয়েটির হাত পচে গিয়েছিল’, নারকীয় সিরিয়ার বিভীষিকা শোনালেন ডাক্তার

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: October 21, 2019 11:33 am|    Updated: October 21, 2019 4:13 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ‘গুলির আঘাতে মেয়েটির হাতে পচন ধরে গিয়েছিল। পচা মাংসের গন্ধে কাছে গেলেই গা গুলিয়ে উঠছিল।’ কাঁপা গলায় কথাগুলি বলছিলেন ডেভ ইউবাঙ্ক। পেশায় তিনি ডাক্তার। বহু মরা ও আহতদের ঘাঁটলেও এক আহত কুর্দ কিশোরীর যন্ত্রণার বিবরণ দিয়ে গিয়ে যেন শিউরে উঠছিলেন তিনি।

মার্কিন নাগরিক ডেভ বর্তমানে রয়েছেন যুদ্ধবিধ্বস্ত সিরিয়ায়। আহতদের পরিষেবা দিচ্ছে তাঁর স্বেচ্ছাসেবী চিকিৎসকদের দল ‘ফ্রি বার্মা রেঞ্জার্স।’ আন্তর্জাতিক সংবাদমধ্যম এবিসি-কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি জানান, সিরিয়ায় বাঁধ ভাঙা জলের মতো ঢুকছে তুরস্কের সেনাবাহিনী। প্রবল লড়াই চলছে দু’দেশের সীমান্ত লাগোয়া তেল তামর শহর দখলের জন্য। সদ্য সেখান থেকে সরে এসছে মার্কিন ফৌজ। ফলে তুর্কি বাহিনীর সঙ্গে একাই লড়াই করতে হচ্ছে ‘সিরিয়ান ডেমোক্রেটিক ফোর্সেস’ বা কুর্দ বাহিনীকে। শহরে ঢোকার বেশ কয়েকটি রাস্তায় কবজা জমিয়েছে তুরস্ক। ফলে আহত নাগরিকদের বের করে আনায় সমস্যা হচ্ছিল। এদিকে, কুর্দদের আবেদনে সাড়া দিয়ে ওই শহরে পৌঁছে গিয়েছে সিরিয়ার সরকারি ফৌজ। আপাতত প্রেসিডেন্ট বাশার-আল-আসাদের নির্দেশে কুর্দ মিলিশিয়াদের সঙ্গে মিলে তুর্কি হানাদার বাহিনীর সঙ্গে লড়াই করছে তারা। সব মিলিয়ে তেল তামর যেন হয়ে উঠেছে মৃত্যুপুরী। তবে সেখান থেকে আহত নাগরিকদের বের করে আনার অনুমতি দিয়েছে তুরস্ক ও কুর্দ উভয়পক্ষই।

খানিকটা শিউরে উঠেই ডেভ ইউবাঙ্ক জানান, ওই শহরেই এক আহত কুর্দ কিশোরীর চিকিৎসা করছিলেন তিনি। তার হাতে গুলি লেগেছিল। সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ায় পচন ধরে গিয়েছিল। তার কাছে গেলেই পচা মাংসের গন্ধে গা গুলিয়ে উঠছিল। তবুও তাল আমার ছেড়ে কিছুতেই যেতে চাইছিল না সে। উন্নত চিকিৎসা না পেলে মৃত্যু হতে পারে জেনেও পরিবারকে ছেড়ে কিছুতেই অনতর যেতে চাইছিল না ওই কিশোরী। সাক্ষাৎকারে কিছুটা আক্ষেপের সুরেই ডেভ বলেন, “তাল আমার থেকে সরে গিয়েছে মার্কিন ফৌজ। তারা ইরাক চলে যাচ্ছে। সেখান থেকে হয়ত বা আমেরিকা ফিতে যাবে। কিন্তু মার্কিন নাগরিক হিসেবে আমি মনে করি, বন্ধু কুর্দদের সঙ্গে আমরা বিশ্বাসঘাতকতা করেছি। তুরস্কের মুখে তাদের এক ফেলে পালিয়ে যাচ্ছি আমরা।’ উল্লেখ্য, চলতি মাসের শুরুতেই সিরিয়া থেকে সেনা প্রত্যাহারের নির্দেশ দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তারপরই কুর্দদের একা ফেলে পাততাড়ি গুটিয়েছে মার্কিন ফৌজ। সব মিলিয়ে, সিরিয়ায় চলা বহুমুখী লড়াইয়ের মাশুল দিতে হচ্ছে নিরীহ নাগরিকদের।

[আরও পড়ুন: ব্রেক্সিট বিপাকে নাজেহাল জনসন, আরজি বিবেচনা করার আশ্বাস দিল ইইউ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement